আমার মা

আপডেট: May 9, 2020, 11:46 pm

নূবাহ্ রাইসা চৌধুরী


মা! মা!! মা!!!
সব্বার মুখে এক ডাক।
যে কথা কয় না, সেও ইশারায়
‘মা’ ডাকে। এ যে প্রিয় সবার ।
কারো কাছে মা মানে জন্মদাত্রী ;
কারো কাছে মা মানে দেশ
কারো কাছে মা যে সাক্ষাৎ দেবী।
কত সম্মান আর শ্রদ্ধার যে ডাক
তা কাউকে কথায় বোঝানো সম্ভব নহে।

এই জগত-সংসারে যত মানুষ আছে,
আছে জ্ঞানী-গুণী জন
তাঁরা মাকে বসিয়েছে শ্রদ্ধা আর
ভালবাসার সিংহাসনে।
মা হাসলে জগত-সংসার হাসে-
জাগে সবুজ প্রাণ, সোনালী শস্যের দানা।
নিষ্ঠুরতার নাগপাশ ছিঁড়ে, বিস্তৃত হয় মমতার বিছানা
নিরাপত্তা, নির্ভরতা, উষ্ণ ভালবাসা আর
আত্মার বাঁধন- মা যে এমনই-
মা মানেই সকল অসাধ্য সাধন
মা নাম জপি, কত সহজেই দিতে পারি
জীবন বিসর্জন।
মায়ের জন্য কত কষ্ট সহা, কত অপমান
তবু বিদ্রোহী প্রাণ, সম্মুখ সমরেও রাখি মান।
এ শুধুই আমার মায়ের জন্য।

মা আমার শুধু জন্মদাত্রী নহে
সে যে অন্তর, ভালবাসা, বিশ্বাস, আস্থা অনিশেষ
শক্তি- সাহস, যা কিছু সুন্দর,
উৎসাহ, অনুপ্রেরণা, আনন্দ- প্রাণভরা গান
সুর ও আলোয় ভরা আমার উঠোন, আমার খেলাঘর।

আমার মা, জীবনের সেরা উপহার
হৃদয়ে খোদিত আজীবনÑ মা আমার
গর্বিত করে গেলে আমায়,
আজন্ম এ গৌরব। তুমি নেই তবুও-
সৌরব ছড়াবে আমাতে
আমার চলার পথে মঙ্গল-আলোকে
মা তুমিই মহান, এর চেয়ে
আর কিছু নেইÑ এই জীবন সংসারে।
(সম্প্রতি প্রয়াত মাকে উৎসর্গ করে লেখা এক কিশোরীর অনুভূতি)