আম্ফানে পশ্চিমবঙ্গের ক্ষতি ১ লাখ ২ হাজার ৪৪২ কোটি রুপি

আপডেট: জুন ৭, ২০২০, ১:৪৪ অপরাহ্ণ

সোনার দেশ ডেস্ক:


গত মাসে ঘূর্ণিঝড় আম্ফান তাণ্ডব চালিয়ে গেছে ভারত-বাংলাদেশ উপকূলে। এতে প্রাণ হারিয়েছেন শতাধিক মানুষ, লণ্ডভণ্ড হয়ে গেছে অসংখ্য বাড়িঘর, গাছপালা, ভেঙেছে বাঁধ। শক্তিশালী এ ঝড়ের প্রভাব কতটা ভয়ঙ্কর ছিল তা আবারও বোঝা গেল ক্ষয়ক্ষতির হিসাব দেখে ৷
কেন্দ্র থেকে পাঠানো প্রতিনিধি দলের কাছে উপস্থাপিত প্রতিবেদনে পশ্চিমবঙ্গ সরকার জানিয়েছে, ঘূর্ণিঝড় আম্ফানে রাজ্যে ক্ষতির মোট পরিমাণ কমপক্ষে ১ লাখ ২ হাজার ৪৪২ কোটি রুপি।
প্রতিবেদন অনুসারে, আম্ফানে পশ্চিমবঙ্গে প্রায় সাড়ে ২৮ লাখ বাড়িঘর ভেঙে পড়েছে ৷ এ থেকেই ক্ষতির পরিমাণ ধরা হয়েছে ২৮ হাজার ৫৬০ কোটি রুপি ৷ নষ্ট হয়েছে লাখ লাখ হেক্টর জমির ফসল। এ খাতে ক্ষতির পরিমাণ ১৫ হাজার ৮৬০ কোটি রুপি ৷
ঝড়ে নষ্ট হয়েছে প্রচুর ফলের বাগান ও পানের বরজ। এতে ক্ষতির পরিমাণ উল্লেখ করা হয়েছে ৬ হাজার ৫৮১ কোটি রুপি ৷ মৎস্যচাষে ক্ষতি হযেছে ২ হাজার কোটি রুপির। ঝড় ও দুর্যোগে ২১ লাখ ২২ হাজার গবাদি পশু মারা গেছে ৷ ফলে প্রাণিসম্পদ খাতে ক্ষতি ধরা হয়েছে অন্তত ৪৫২ কোটি রুপি।
ঘূর্ণিঝড় আম্ফানে বিদ্যুৎখাতে ৩ হাজার ২৩০ কোটি রুপি ক্ষতির দাবি করেছে পশ্চিমবঙ্গ সরকার৷ নষ্ট হয়েছে প্রায় দেড় লাখ হেক্টর বনভূমি ৷ এতে ক্ষতি ১ হাজার ৩৩ কোটি রুপি।
ঝড়ে শিক্ষাক্ষেত্রে ক্ষতি হয়েছে ৭৯৩ কোটি রুপির, স্বাস্থ্যক্ষেত্রে ১ হাজার ২৭০ কোটি, ক্ষুদ্র ব্যবসায় ক্ষতি ২৬ হাজার ৭৯০ কোটি রুপি।
শনিবার নবান্নে মুখ্যসচিবের সঙ্গে প্রায় দেড় ঘণ্টা বৈঠক হয়েছে কেন্দ্রীয় প্রতিনিধি দলটির৷ এসময় তাদের কাছে ক্ষয়ক্ষতির বিস্তারিত তুলে ধরেন রাজ্য সরকারের কর্মকর্তারা।
উল্লেখ্য, ঘূর্ণিঝড় আম্ফানের ক্ষয়ক্ষতি মেটাতে ইতোমধ্যেই পশ্চিমবঙ্গকে এক হাজার কোটি রুপি সহায়তার ঘোষণা দিয়েছে কেন্দ্রীয় সরকার। ঝড়ের দু’দিন পরে ক্ষতিগ্রস্ত এলাকা পরিদর্শন শেষে এই আর্থিক সহায়তা ঘোষণা দেন ভারতীয় প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি।
সূত্র: নিউজ১৮, জাগোনিউজ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ