‘আর্থিক সেবার বাইরে দেশের ৫৫ শতাংশ মানুষ’

আপডেট: সেপ্টেম্বর ২১, ২০১৭, ১২:২৯ পূর্বাহ্ণ

সোনার দেশ ডেস্ক


দুর্যোগ আক্রান্ত এলাকার বাসিন্দা ও শিশু শ্রমিকসহ দেশের মোট জনগোষ্ঠীর ৫৫ শতাংশ ব্যাংকিং ও বিমাসহ বিভিন্ন আর্থিক সেবার বাইরে রয়েছে বলে এক গবেষণায় উঠে এসেছে।
বুধবার রাজধানীর আগারগাঁওয়ের পল্লী কর্ম সহায়ক ফাউন্ডেশন (পিকেএসএফ) মিলনায়তনে আয়োজিত এক জাতীয় সম্মেলনে এ তথ্য তুলে ধরে গবেষণা প্রতিষ্ঠান ইনস্টিটিউট ফর ইনক্লুসিভ ফাইন্যান্স অ্যান্ড ডেভেলপমেন্ট (আইএনএম)।
সেমিনারে দেশের গ্রামীণ ও সুবিধাবঞ্চিত জনগোষ্ঠীকে আর্থিক সেবায় অন্তর্ভুক্তকরণে সরকারি-বেসকারি ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠানগুলোকে বিশেষ ব্যবস্থা নেওয়ার পরামর্শ দেন আইএনএমের নির্বাহী পরিচালক ড. মুস্তফা কে মুজেরি।
তিনি বলেন, “গ্রামীণ ও হাওর এলাকার দুর্যোগ পীড়িত মানুষেরা এবং শ্রমজীবী ও পথশিশুরা ব্যাংক, বিমাসহ আর্থিক সুবিধার বাইরে রয়েছে।
“২০৪১ সালের মধ্যে উন্নত দেশে পরিণত হতে চাইলে এসব জনগোষ্ঠীকে আর্থিক অন্তর্ভুক্তির আওতায় আনতে হবে, তাদের দিয়ে সঞ্চয় করাতে হবে। এ জন্য ব্যাংক-বিমাসহ আর্থিক প্রতিষ্ঠানগুলোকে এসব মানুষদের কথা মাথায় রেখে, তাদের সুবিধা অনুযায়ী নীতি নির্ধারণ ও পদক্ষেপ গ্রহণ করতে হবে।”
দেশের মাত্র ৪৫ শতাংশ জনগোষ্ঠী আর্থিক অন্তর্ভুক্তিতে রয়েছে জানিয়ে এই অধ্যাপক বলেন, “কীভাবে এসব মানুষের কাছে সুবিধা পৌঁছে দেওয়া যায়- তা ভেবে প্রতিষ্ঠানগুলোর সার্বিক ব্যবস্থাপনায় পরিবর্তন আনা জরুরি।
“এ লক্ষ্যে ব্যাংক, এনজিও ও সরকারি সব প্রতিষ্ঠানকে এক হয়ে কাজ করতে হবে। পিছিয়ে পড়া জনগোষ্ঠী আমাদের কাছে পৌঁছাতে পারছে না, আমাদের তাদের কাছে পৌঁছাতে হবে।”
আইএনএম আয়োজিত ‘ফাইনানশিয়াল ইনক্লুশন অব ভালনারেবল সেগমেন্ট ইন বাংলাদেশ’ শীর্ষক এই জাতীয় সম্মেলনের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন প্রধানমন্ত্রীর অর্থনীতি বিষয়ক উপদেষ্টা ড. মশিউর রহমান।
এছাড়া জাপান ইন্টারন্যাশনাল কো-অপারেশন এজেন্সির (জাইকা) জ্যেষ্ঠ উপদেষ্ঠা অধ্যাপক সুজি কাজুতো ও পিকেএসএফের ব্যবস্থাপনা পরিচালক মো. আব্দুল করিম উপস্থিত ছিলেন।
দিনব্যাপী এই সম্মেলনে তিনটি গবেষণাপত্র উপস্থাপন করা হয়।
তথ্যসূত্র: বিডিনিউজ