আলমগীর কবিরের এক গুচ্ছ ছড়া

আপডেট: সেপ্টেম্বর ২৩, ২০১৭, ১২:০৪ পূর্বাহ্ণ

কেমন করে
রোজ সকালে বস্তা কাঁধে
ছুটছে ওরা ছুটছে,
পথের ধারে দলবেঁধে ঐ
জুটছে সবে জুটছে!
ভাঙা বোতল টিনের কৌটা
খুঁজছে ওরা কত কি!
খুঁজছে আলো মুখটা দেখো
আহা ফুলের মতো কি?
মাথা গোঁজার নাইকো ঠাঁই
আজব এই শহরে,
দেশের নেতা কেমন করে
এই দৃশ্য সহ রে!!

মা
রবের পরে নবী আমার তারপরে তো মা,
মায়ের মুখে গল্প ছাড়া মন জুড়ায় না।
মায়ের মুখে দেখবো হাসি মনে সাধ বড়,
মাগো আমার চাইনা কিছু শুধু দোয়া করো।

রুপকথা নামে
রুপকথার সোহাগমাখা রাতি,
রাতের গায়ে জোনাক জ্বালে বাতি;
তখন চাঁদ ঐ আকাশের সাথি।
উঠোন জুড়ে আলোর খেলা হাসি,
ছুটে মায়ের গল্প শুনতে আসি;
রুপকথার অবাক দেশে ভাসি।

খোকা মা ও পাখি
খোকা বলে,মাগো আমি টিয়ে পাখি চাই,
খাবারও দেব তাকে রাখবো খাঁচায়;
খেতে দেব ফড়িং ও খেতে সে যা চায়।
স্বাধীনতা কেড়ে কেন খাঁচাতে পুরবে,
মা বলেন,শোনো খোকা
পাখিরা উড়বে;
ডানা মেলে হেসে খেলে
আকাশে ঘুরবে।