আড়ানী আশ্রমে যজ্ঞানুষ্ঠানে ভারতীয় সহকারি হাই কমিশনার

আপডেট: মে ১৪, ২০২২, ৯:০৪ অপরাহ্ণ

বাঘা প্রতিনিধি:


রাজশাহীর বাঘা উপজেলার আড়ানী ক্ষ্যাপা বাবার আশ্রমে বিশ্ব মানবতার কল্যাণ কামনায়, দেশ মাতৃকার ও জাতির মঙ্গলার্থে ২৪ প্রহর তিনদিন ব্যাপী ৪৫ তম মহানাম যজ্ঞানুষ্ঠানে রাজশাহীস্থ ভারতীয় সহকারি হাই কমিশনার সঞ্জীব কুমার ভাটী আগমন করেন।

শনিবার (১৪ মে) বিকাল ৪টায় এ অনুষ্ঠানে উপস্থিত হন। এ সময় তাকে ফুল দিয়ে সংবর্ধনা দেয়া হয়। পরে তাকে আশ্রমের ইতিহাস সংবলিত একটি মানপত্র প্রদান করা হয়। এ সময় উপস্থিত ছিলেন আশ্রমের পরিচালক ও অধ্যক্ষ জিতেন্দ্র নাথ চৌধুরী, বাঘা থানার ওসি সাজ্জাদ হোসেন, পলাশ কুমার দোবে, হিন্দু বৌদ্ধ খ্রীষ্টান ঔক্য পরিষদের সভাপতি রাম গোপাল সাহা, সাবেক সভাপতি শান্তি রঞ্জন সরকার, জেলা পরিষদের সদস্য জয়জয়ন্তী সরকার মালতী, যজ্ঞানুষ্ঠান পরিচালনা কমিটির সভাপতি ও আড়ানী মনোমোহিনী উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক সঞ্জয় কুমার দাস, সাধারণ সম্পাদক স্বপন কুমার সরকার, আড়ানী পৌরসভার মেয়র মুক্তার আলী, আড়ানী পৌর আওয়ামী লীগের সভাপতি মতিউর রহমান মতি, সাধারণ সম্পাদক রিবন আহমেদ বাপ্পী, আড়ানী পৌরসভার প্যানেল মেয়র ও কাউন্সিলর কার্তিক চন্দ্র হালদার প্রমুখ।

মহানাম যজ্ঞানুষ্ঠানে পিরোজপুরের বাগেরহাটের অষ্ট সখী সম্প্রদায়, ঢাকা মানিকগঞ্জের নিত্য নিরাঞ্জন সেবা সংঘ, গোপালগঞ্জের প্রভুপ্রাণ কিশোর সম্প্রদায়, মাগুড়ার মা দুর্গা সম্প্রদায়, গোপালগঞ্জের মাধবী লতা সম্প্রদায়, রাজবাড়ীর নব নিত্য নিরঞ্জন সম্প্রদায় এবং আড়ানী ক্ষ্যাপা বাবার আশ্রমের পাগলা বাবা সম্প্রদায় সহ সাতটি দল অংশ গ্রহন করে।

জানা গেছে, ১৯৭১ সালে স্বাধীনতা বিরোধী রাজাকার চক্র আশ্রমটি ধ্বংস করে। তারপর ১৯৯২ সালের ৭ নভেস্বর আশ্রমটি জামায়াত-শিবিরের নেতৃত্বে ভাঙচুর, লুটপাট ও অগ্নিসংযোগ করা হয়েছিল। তারপর আশ্রমের পরিচালক ও অধ্যক্ষ পাগলা বাবা জিতেন্দ্র নাথ চৌধুরী ভারতে পালিয়ে যায়। দীর্ঘদিন পর নতুনভাবে পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলম এমপি’র আন্তরিকতায় আবারও প্রাণ ফিরে এসেছে।
উল্লেখ্য, ১১ মে রাত ৯টায় ২৪ প্রহর তিনদিন ব্যাপী ৪৫ তম মহানাম যজ্ঞানুষ্ঠানের উদ্বোধন করা হয়।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ