ইংরেজি মাধ্যমের স্কুলে ভ্যাট নিয়ে রায় স্থগিত

আপডেট: জানুয়ারি ৩, ২০১৭, ১১:০২ অপরাহ্ণ

সোনার দেশ ডেস্ক


ইংরেজি মাধ্যমের স্কুলে টিউশন ফির ওপর আরোপিত সাড়ে সাত শতাংশ ভ্যাট অবৈধ ঘোষণা করে দেওয়া হাই কোর্টের রায় স্থগিত করেছে আপিল বিভাগ।
ওই রায়ের বিরুদ্ধে জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের আবেদনে প্রধান বিচারপতি এসকে সিনহা নেতৃত্বাধীন চার বিচারকের আপিল বেঞ্চ মঙ্গলবার এ আদেশ দেন। এ বিষয়ে শুনানির জন্য ২৯ জানুয়ারি দিন ঠিক করে দিয়ে তার মধ্েয রাজস্ব বোর্ডকে আপিলের আবেদন করতে বলেছে সর্বোচ্চ আদালত।
বাংলাদেশে ইংরেজি মাধ্যমের ১০২টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীদের বেতনের ওপর ২০১২ সালে সাড়ে ৪ শতাংশ ভ্যাট আরোপ করা হয়। ২০১৫-১৬ অর্থবছরের বাজেটে তা বাড়িয়ে করা হয় সাড়ে ৭ শতাংশ, সেই সঙ্গে এর আওতায় আনা হয় বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়গুলোকে। এরপর বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থীরা আন্দোলনে নামলে তাদের ক্ষেত্রে ভ্যাট আরোপের সিদ্ধান্ত বাতিল করা হয়।
বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থীরা আন্দোলন করে সফল হওয়ার পর ভ্যাট বাতিলের দাবিতে ঢাকার বিভিন্ন স্থানে মানববন্ধন করেন ইংরেজি মাধ্যমের স্কুলগুলোর শিক্ষার্থীদের অভিভাবকরা। এরপর সানিডেল ও সান বিম স্কুলের দুই শিক্ষার্থীর অভিভাবকের করা রিট আবেদনে ২০১৫ সালের ১৭ সেপ্টেম্বর বিচারপতি শামীম হাসনাইন ও বিচারপতি মোহাম্মদ উল্লাহর হাই কোর্ট বেঞ্চ ভ্যাট স্থগিতের আদেশ দেয়। ভ্যাট আরোপের সিদ্ধান্ত কেন বেআইনি ঘোষণা করা হবে না, তা জানতে চেয়ে সে সময় রুল দেয় হাই কোর্ট।
জাতীয় রাজস্ব বোর্ড হাই কোর্টের ওই আদেশের বিরুদ্ধে চেম্বার আদালতে গেলে বিচারক হাই কোর্টের আদেশের কার্যকারিতা আট সপ্তাহের জন্য স্থগিত করে দেয়। রিট আবেদন হওয়ার এক বছরের বেশি সময় পর ২০১৬ সালের ১২ ডিসেম্বর রুল নিষ্পত্তি করে রায় দেয় বিচারপতি জুবায়ের রহমান চৌধুরী ও মো. মজিবুর রহমান মিয়ার হাই কোর্ট বেঞ্চ। রায়ে ইংরেজি মাধ্যমের স্কুলে টিউশন ফির ওপর আরোপিত সাড়ে সাত শতাংশ ভ্যাট অবৈধ ঘোষণা করা হয়। সেই সঙ্গে জানুয়ারি সেশন থেকে টিউশন ফির ওপর আর ভ্যাট আদায় না করতে নির্দেশ দেয়া হয়। এর বিরুদ্ধে জাতীয় রাজস্ব বোর্ড আপিল বিভাগে যাওয়ায় হাই কোর্টের ওই রায় আটকে গেল।- বিডিনিউজ