ইউক্রেনের সদস্যপদ নিয়ে মুখ খুললো ৯ ন্যাটো মিত্র

আপডেট: অক্টোবর ৩, ২০২২, ৯:০৩ অপরাহ্ণ

ন্যাটো এবং জোটভুক্ত কয়েকটি দেশের পতাকা। ছবি: রয়টার্স

সোনার দেশ ডেস্ক:


পশ্চিমা সামরিক জোট ন্যাটোতে ইউক্রেনের সদস্যপদ নিয়ে মুখ খুলেছে জোটের ৯টি সদস্য রাষ্ট্র। রবিবার এক যৌথ বিবৃতিতে এ নিয়ে কথা বলেছেন মধ্য ও পূর্ব ইউরোপের এই দেশগুলোর প্রেসিডেন্টরা। ন্যাটোতে ইউক্রেনের সদস্যপদকে সমর্থন জানানোর পাশাপাশি আগ্রাসন মোকাবিলায় কিয়েভের প্রতি সামরিক সহায়তা বাড়ানোর আহ্বান জানান তারা। সোমবার এক প্রতিবেদনে এ খবর জানিয়েছে যুক্তরাষ্ট্রভিত্তিক সংবাদমাধ্যম সিএনএন।

যে ৯টি দেশের প্রেসিডেন্টরা এই বিবৃতি দিয়েছেন সেই দেশগুলো হচ্ছে চেক প্রজাতন্ত্র, এস্তোনিয়া, লাটভিয়া, লিথুয়ানিয়া, উত্তর মেসিডোনিয়া, মন্টিনিগ্রো, পোল্যান্ড, স্লোভাকিয়া ও রোমানিয়া। দেশগুলোর নেতারা বলছেন, ন্যাটোতে ইউক্রেনের ভবিষ্যৎ সদস্যপদ সংক্রান্ত ২০০৮ সালের বুখারেস্ট সম্মেলনের সিদ্ধান্তের প্রতি তাদের জোরালো সমর্থন রয়েছে।

বিবৃতিতে বলা হয়, ‘রুশ আগ্রাসনের বিরুদ্ধে ইউক্রেনের প্রতিরক্ষার প্রতি আমাদের সমর্থন রয়েছে।’
অবিলম্বে সমস্ত অধিকৃত অঞ্চল থেকে রুশ বাহিনী প্রত্যাহার এবং সব মিত্রদেরকে ইউক্রেনে তাদের সামরিক সহায়তা যথেষ্ট পরিমাণে বাড়ানোর আহ্বান জানান ৯ প্রেসিডেন্ট।

বিবৃতিতে উল্লেখ করা হয়েছে, এই দেশগুলোর নেতারা ‘যুদ্ধ চলাকালে কিয়েভ পরিদর্শন করেছেন এবং রুশ আগ্রাসনের প্রভাব স্বচক্ষে প্রত্যক্ষ করেছেন।’

৯ প্রেসিডেন্ট বলেন, ‘ইউক্রেনের সার্বভৌমত্ব এবং আঞ্চলিক অখ-তার প্রতি আমাদের সমর্থন পুনর্ব্যক্ত করছি। দেশটির কোনও ভূখন্ডকে সংযুক্ত করার রুশ প্রচেষ্টাকে আমরা স্বীকৃতি দেই না এবং এই স্বীকৃতি দেওয়া হবে না।’

এর আগে ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট ভলোদিমির জেলেনস্কি বলেছেন, কিয়েভের পক্ষ থেকে শিগগিরই ন্যাটোতে যোগদানের জন্য আবেদন করা হবে। শুক্রবার ইউক্রেনের দখলকৃত চারটি ভূখন্ডকে রাশিয়ার অংশ হিসেবে ঘোষণার পর এমন মন্তব্য করেন তিনি।

সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে প্রকাশ করা একটি ভিডিওতে জেলেনস্কি বলেন, মস্কোর সঙ্গে কোনও আপোস করবে না কিয়েভ। যত দিন পুতিন রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট হিসেবে থাকবেন তত দিন দেশটির সঙ্গে কোনও সমঝোতা করবে না ইউক্রেন।
তথ্যসূত্র: বাংলাট্রিবিউন

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ