ইতিহাস গড়ার উচ্ছ্বাস জার্মানির

আপডেট: জুলাই ৪, ২০১৭, ১২:৪৫ পূর্বাহ্ণ

সোনার দেশ ডেস্ক


জার্মানির অর্জনের শোকেসে ছিল চার-চারটি বিশ্বকাপ, ইউরোপিয়ান চ্যাম্পিয়নশিপের তিনটি ট্রফি। বাকি ছিল কেবল কনফেডারেশন্স কাপ। চিলিকে হারিয়ে সেই শূন্যতা পূরণের পর খেলোয়াড়দের প্রশংসায় ভাসালেন ইওয়াখিম লুভ। জার্মানির কোচের দৃষ্টিতে ইতিহাস গড়েছে তার তরুণ শিষ্যরা।
রাশিয়ার সেন্ট পিটার্সবার্গে গত রোববার ফাইনালে লার্স স্টিনডলের একমাত্র গোলে চিলিকে হারায় বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন জার্মানি। এর আগে এই প্রতিযোগিতায় তাদের সেরা সাফল্য ছিল ২০০৫ সালে নিজেদের মাঠে তৃতীয় হওয়া।
ম্যাচ শেষের জার্মানিকে প্রথমবারের মতো কনফেডারেশন্স কাপের শিরোপা এনে দেওয়া শিষ্যদের প্রশংসায় ভাসান লুভ। “এর দাম অনেক; কেননা, জার্মানি তাদের ইতিহাসে কখনই এ শিরোপা জিততে পারেনি। তাই এই দল এবং এই জয়ের কথা ইতিহাসে লেখা থাকবে। এই দল অবশ্যই শিরোপার যোগ্য এবং এ কারণে আমরা সবাই খুব-খুব খুশি।”
২০১৪ সালে আর্জেন্টিনাকে হারিয়ে ব্রাজিল থেকে বিশ্বকাপ নিয়ে ফেরে জার্মানি। এবার লুভের দল জিতল কনফেডারেশন্স কাপ। দুই ট্রফির ভার নিয়ে যেন একটু মজাও করলেন জার্মান কোচ, “এটা বিশ্বকাপের চেয়ে ভারী!”
টমাস মুলার, টনি ক্রুস, মানুয়েল নয়ারের মতো নির্ভরযোগ্য অনেককে রেখে তরুণদের নিয়ে কনফেডারেশন্স কাপের দল সাজিয়েছিলেন লুভ। তরুণ এই দলই বাজিমাত করেছে। বায়ার্ন মিউনিখের মিডফিল্ডার জশুয়া কিমিচ তাই সতীর্থদের নিয়ে দারুণ খুশি। “আমি এবং আমার দল শিরোপা জিতে ভীষণ গর্বিত। আসলে কেউই আমাদের গোনায় ধরেনি এবং আমরা দারুণ সব দলকে হারাতে পেরেছি।” “ম্যাচ শেষে চিলি খুবই হতাশ ছিল এবং আপনারাও দেখতে পেরেছেন, শিরোপাটা তাদের কাছে কতখানি ছিল। আমাদের শেষটা তুলনায় ভালো হয়েছে এবং এই দলের বিপক্ষে শিরোপা জেতা চমৎকার। আমরা সেইরকম পার্টি করব।”-বিডিনিউজ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ