ইরানকে বিক্ষোভের সময় ‘অতিরিক্ত’ শক্তি ব্যবহার না করার আহ্বান জাতিসংঘের

আপডেট: সেপ্টেম্বর ২৪, ২০২২, ১:৩৪ অপরাহ্ণ

ইরানের রাজধানী তেহরানে সরকারিবিরোধী বিক্ষোভ চলাকালে প্রতিবাদকারীরা রাস্তায় আগুন ধরায়। ছবি: রয়টার্স

সোনার দেশ ডেস্ক :


ইরানের বিক্ষোভকারীদের বিরুদ্ধে ‘অপ্রয়োজনীয় বা অতিরিক্ত’ শক্তি ব্যবহার থেকে বিরত থাকতে দেশটির নিরাপত্তা বাহিনীগুলোর প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন জাতিসংঘের মহাসচিব আন্তোনিও গুতেরেস।

ইরানের ‘নীতি পুলিশের’ হেফাজতে ২২ বছরের তরুণী মাশা আমিনির মৃত্যুকে কেন্দ্র করে গত সপ্তাহ থেকে দেশজুড়ে সরকারবিরোধী বিক্ষোভ চলছে। কয়েক বছরের মধ্যে সবচেয়ে গুরুতর এ অস্থিরতায় অন্তত ৩৫ জনের মৃত্যু হয়েছে বলে খবর পশ্চিমা গণমাধ্যমের।

পরিস্থিতি আরও নাজুক হওয়া এড়াতে গুতেরেস সবাইকে সংযম প্রদর্শনেরও আহŸান জানিয়েছেন।
শুক্রবার নিউ ইয়র্কে গুতেরেসের মুখপাত্র স্টেফান দুজারিক সাংবাদিকদের বলেন, “শান্তিপূর্ণ বিক্ষোভে অতিরিক্ত শক্তি প্রয়োগ করার কারণে বহু মৃত্যু ও আহত হওয়ার ঘটনা ঘটেছে, এমন খবরে আমরা উদ্বিগ্ন।

আমরা কর্তৃপক্ষের প্রতি মত প্রকাশের স্বাধীনতা, শান্তিপূর্ণ সমাবেশ ও সভা করার অধিকারের প্রতি শ্রদ্ধা প্রদর্শনের জন্য ফের আহŸান জানাচ্ছি।”
দুজারিক জানান, বৃহস্পতিবার জাতিসংঘ সাধারণ পরিষদের ৭৭তম বার্ষিক অধিবেশনের ফাঁকে ইরানের প্রেসিডেন্ট ইব্রাহিম রাইসির সঙ্গে বৈঠককালে গুতেরেস মানবাধিকারের ইস্যুটি তুলেছিলেন।

গত সপ্তাহে ইরানের কুর্দিস্তান থেকে রাজধানী তেহরানে আসা ২২ বছর বয়সী নারী মাশা আমিনিকে হিজাব আইন লংঘনের দায়ে গ্রেপ্তার করেছিল নগরীর নীতি পুলিশ। গত শুক্রবার তাদের হেফাজতে মাশার মৃত্যু হয়। মারা যাওয়ার আগে ওই তরুণী তিনদিন কোমায় ছিলেন।

আমিনির মৃত্যুর বিষয়ে ‘স্বাধীন দক্ষ কর্তৃপক্ষের মাধ্যমে দ্রুত, নিরপেক্ষ ও কার্যকর তদন্ত শুরু করার জন্য’ গুতেরেস রাইসির প্রতি আহŸান জানিয়েছেন বলে দুজারিক জানিয়েছেন।

রয়টার্স জানিয়েছে, জাতিসংঘ নারী অধিকার ও অন্যান্য মানবাধিকার লংঘন থেকে নারীদের রক্ষার জন্য কার্যকর পদক্ষেপ নিতে ইরানি কর্তৃপক্ষের প্রতি আহ্বান জানিয়েছে।

শুক্রবার ইরানের বেশ কয়েকটি শহরে চলমান সরকার-বিরোধী বিক্ষোভের বিরুদ্ধে পাল্টা কর্মসূচি নিয়ে রাস্তায় নেমেছিল সরকার সমর্থকরা। তারা প্রতিবাদকারীদের ‘দাঙ্গাকারী’অভিহিত করে তাদের মৃত্যুদণ্ড কার্যকরের দাবি জানিয়েছেন।
তথ্যসূত্র: বিডিনিউজ