ইসরায়েল উপকূলে মিললো ক্রুসেডারদের তলোয়ার

আপডেট: অক্টোবর ১৯, ২০২১, ৬:৪৫ অপরাহ্ণ

ক্রসেডাররা তলোয়ারটি ব্যবহার করেছে বলে ধারণা করা হচ্ছে

সোনার দেশ ডেস্ক:


উত্তর ইসরায়েলের সমুদ্রে সাঁতার কাটছিলেন এক শখের ডুবুরি। হঠাৎ করে একটি তলোয়ার পেয়ে যান তিনি। ধারণা করা হচ্ছে প্রায় নয়শ’ বছর আগের তলোয়ারটি ব্যবহার করেছে ক্রুসেডার যোদ্ধারা।

হাইফা এলাকার অগভীর সমুদ্রে প্রায় এক মিটার দীর্ঘ তলোয়ারটি খুঁজে পান ডুবুরি স্লোমি কাটজিন। ধারণা করা হচ্ছে সামুদ্রিক জীবে আবৃত হয়ে পড়ে তলোয়ারটি। বালু সরে যাওয়ায় এটি ডুবুরির দৃষ্টিগোচর হয়।

ইসরায়েলের পূরাকীর্তি কর্তৃপক্ষ (আইএএ) জানিয়েছে, তলোয়ারটি পরিষ্কার এবং বিশ্লেষণের পর মানুষের প্রদর্শনীর জন্য রাখা হবে।

১০৯৫ সালে শুরু হওয়া ক্রুসেড চলেছে প্রায় এক শতাব্দি। এতে ইউরোপের খ্রিষ্টান ধর্মাবলম্বীরা মধ্যপ্রাচ্য জুড়ে ঘুরে বেড়িয়েছে কেবল জেরুজালেম এবং মুসলমানদের অন্য পবিত্র ভূমির নিয়ন্ত্রণ পাওয়ার চেষ্টায়।

আইএএ’র সামুদ্রিক পূরাকীর্তি ইউনিটের প্রধান কোবি শারভিট বলেছেন, তলোয়ারটি পাওয়া গেছে কারমেল উপকূলে। ওই এলাকাটি কয়েক শতাব্দি ধরে উপকূলীয় বাণিজ্যিক পরিবহনে ব্যবহৃত জাহাজগুলোকে ঝড়ের সময় আশ্রয় দিয়েছে। তিনি বলেন, ‘এই কারণে যুগ যুগ ধরে বাণিজ্যিক জাহাজ এসেছে, পড়ে রয়েছে সমৃদ্ধ পূরাকীর্তি।’

গবেষকেরা অবাক হয়ে ধারণা করছেন তলোয়ারটির সঙ্গে সম্ভবত ক্রুসেডারদের আতলিট দুর্গের সম্পর্ক রয়েছে। কোবি শারভিট বলেন, ‘এতে লাগানো পাথরের কারণে অনেক ভারি আর এটির লোহার পাতটি খুবই বড়।’

কোবি শারভিট বলেন, ‘এর অর্থ হলো এই তলোয়ার যারা ব্যবহার করেছে তারা খুবই শক্তিশালী। তারা হয়তো আমাদের চেয়ে বড় ছিলো, কিন্তু আমাদের চেয়ে শক্তিশালী ছিলো তা নিশ্চিত।’
তথ্যসূত্র: বাংলাট্রিবিউন

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ