ইস্তানবুলে নারীদের বিক্ষোভ, তুর্কি পুলিশের টিয়ার গ্যাস নিক্ষেপ

আপডেট: নভেম্বর ২৬, ২০২১, ৪:৪১ অপরাহ্ণ

ইস্তানবুলে বিক্ষোভ করেন নারীরা

সোনার দেশ ডেস্ক :


নারীর প্রতি সহিংসতা নির্মূলের আন্তর্জাতিক দিবস উদযাপনে ইস্তানবুলে আয়োজিত মিছিলে টিয়ার গ্যাস ও রাবার বুলেট ছুড়েছে তুরস্কের পুলিশ। বৃহস্পতিবার ওই বিক্ষোভ মিছিল আয়োজন করা হয়।
বিক্ষোভকারীরা তুরস্ককে ‘ইস্তানবুল কনভেনশনে’ ফের যুক্ত হওয়ার দাবি তোলে। এই দাবিতে দেশজুড়ে বিক্ষোভ কর্মসূচির অংশ হিসেবে ইস্তানবুলে বিক্ষোভ করে হাজার হাজার মানুষ, তাদের বেশিরভাগই নারী।

২০১১ সালে নারীদের সুরক্ষায় স্বাক্ষরিত হয় ইস্তানবুল কনভেনশন। এতে স্বাক্ষর করে ৪৫টি দেশ। প্রথম দেশ হিসেবে তুরস্ক এই চুক্তিতে স্বাক্ষর করলেও গত বছরের জুলাইতে প্রথম দেশ হিসেবেই তারা এই চুক্তি থেকে বেরিয়ে যায়। ওই সময় তুর্কি প্রেসিডেন্ট রজব তাইয়্যেব এরদোয়ান দাবি করেন, সমকামিতাকে স্বাভাবিক করতে চাওয়া মানুষেরা এই উদ্যোগ ছিনিয়ে নিয়েছে।
গত বছরের মার্চে এরদোয়ান যখন প্রথম প্রত্যাহারের আগ্রহের কথা ঘোষণা করেন তখনও তুর্কি নারীরা বিক্ষোভ করেন। জুলাইতে আনুষ্ঠানিকভাবে তুরস্ক বেরিয়ে যাওয়ার পরও বড় আকারের বিক্ষোভ হয়।

এরদোয়ান দাবি করে আসছেন, বিদ্যমান আইন দিয়েই তুরস্ক যথেষ্ট পরিমাণে নারী সুরক্ষা দিচ্ছে। তবে নারী মানবাধিকার গ্রæপগুলো বলছে, কনভেনশনে যেসব গুরুত্বপূর্ণ আইনের রোডম্যাপ বর্ণনা করা হয়, সেগুলো তুর্কি সরকার কখনোই বাস্তবায়ন করেনি।
তুরস্কের একটি বেসরকারি সংস্থার হিসেব অনুযায়ী ২০২১ সালে এখন পর্যন্ত দেশটিতে পুরুষের হাতে হত্যার শিকার হয়েছে ২৮৫ নারী। বৃহস্পতিবার তুরস্কের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী স্বীকার করেন গত বছরের চেয়ে এই সংখ্যা অনেক বেশি। তবে সরকার এর পরিমাণ নামিয়ে আনতে কাজ করছে।
তথ্যসূত্র: বাংলা ট্রিবিউন