ঈদকে সামনে রেখে কালুহাটিতে তৈরি হচ্ছে চটি স্যান্ডেল

আপডেট: জুন ২২, ২০১৭, ১:১২ পূর্বাহ্ণ

আমানূল হক আমান, বাঘা


রাজশাহীর চারঘাট উপজেলা সদর থেকে ১৫ কিলোমিটার উত্তর দিকে এবং বাঘা উপজেলার আড়ানী বাসস্ট্যান্ড থেকে দেড় কিলোমিটার দক্ষিণ দিকে কালুহাটি গ্রাম। এই গ্রামে ঈদকে সামনে রেখে তৈরি হচ্ছে বাহারি চটি স্যান্ডেল। সেই সাথে ব্যস্ততা বেড়েছে স্যান্ডেল তৈরির কারিগরদের। রমজানের প্রায় শুরু থেকে রাতদিন কাজ করে যাচ্ছেন কারিগররা। অন্যান্য বারের মতো এবার সন্তোষজনক অর্ডার পেয়েছেন মালিকরা। তবে স্যান্ডেল তৈরির কাঁচামালের দাম বৃদ্ধি পাওয়ায় পণ্যের দাম অন্যান্য বারের চেয়ে কিছুটা চড়া বলে জানান কারখানা মালিকেরা। কালুহাটি পাদুকা সমবায় সমিতির সাধারণ সম্পাদক ও কোনিকা সুজ ফ্যাক্টরির মালিক সোহেল রানা বলেন, বছরের অন্যান্য মাসগুলোর তুলনায় চটি স্যান্ডেলের বিক্রি বেড়েছে কয়েক গুণ। মানের দিক দিয়ে বিভিন্ন ব্র্যান্ডের স্যান্ডেলের মতো টেকসই এসব কারখানায় স্যান্ডেলগুলো। স্থানীয়ভাবে তৈরি হওয়ায় দামেও সস্তা। এই জন্য বিভিন্ন শ্রেণির ক্রেতারা প্রতিদিন ভিড় জমাচ্ছেন কারখানায়। এই গ্রামে স্যান্ডেল তৈরির প্রায় দুই শতাধিক কারখানা রয়েছে। প্রায় কারখানায় সমানতালে চলছে বেচাকেনা। এছাড়া দাম অন্যান্য বারের চেয়ে চড়া হওয়ায় বেচাকেনার ওপরে কিছুটা প্রভাব পড়েছে। চামড়া, আঠা, সোল এবং সুতাসহ স্যান্ডেল তৈরির উপকরণের দাম বাড়ায় অন্যান্য স্থানের মতো কালুহাটিতে তুলনামূলক বাজার চড়া বলে মনে করছেন কারখানা মালিকেরা।
কালুহাটি পাদুকা সমবায় সমিতির প্রতিষ্ঠাতা ও তোহা সুজ ফ্যাক্টরির মালিক মিজানুর রহমান বলেন, কারখানায় রেডিমেড সোল, দুই ফিতা, চটি, বেল্ট মডেলসহ বিভিন্ন ডিজাইনের তৈরি করা হচ্ছে স্যান্ডেল। তারা আরো জানান, ঈদকে সামনে রেখে কারিগররা ব্যস্ত সময় কাটাচ্ছেন। আগে সকাল ৮টা থেকে রাত ৮টা পর্যন্ত কাজ চললেও বর্তমানে প্রায় সারারাত ধরে কারিগররা কাজ করছেন।
পাদুকা সুজের কারিগর মিনারা বেগম, আমিনুল ইসলাম, নান্টু হোসেন, আনুরা বেগম, শিল্পী বেগম, ফাইমা বেগম বলেন, প্রকার ভেদে এক ডজন স্যান্ডেল তৈরি করলে মুজুরি পাওয়া যায় ছয়’শ টাকা থেকে এক হাজার টাকা। এতে সংসার ভালোভাবে চলে বলে তারা জানান। এছাড়া ঈদকে সমানে রেখে রাতদিন কাজ করতে হচ্ছে ফ্যাক্টরিতে।
কালুহাটি পাদুকা সমবায় সমিতির সভাপতি আবদুল মান্নান বলেন, কারখানার কারিগররা বিভিন্ন ডিজাইনের চটি তৈরি করছেন। এই চটি সর্বনি¤œ ১৫০ টাকা থেকে সর্বোচ্চ ৮০০ টাকা দামের বিভিন্ন শ্রেণির ক্রেতা এই স্যান্ডেল কিনছেন। ছয় মাস গ্যার‌্যান্টিযুক্ত এইসব স্যান্ডেল বাজারের অন্যান্য ব্র্যান্ডেড স্যান্ডেলের মতোই টেকসই বলে দাবি করেন তিনি। একই সাথে সীমিত সুযোগ সুবিধা সত্ত্বেও মানসম্মত স্যান্ডেল তৈরির প্রচেষ্টা অব্যহত থাকবে বলেও জানান তিনি।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ