ঈদের মাসে ‘সামান্য’ বেড়েছে মূল্যস্ফীতি

আপডেট: অক্টোবর ৪, ২০১৬, ১১:৪৪ অপরাহ্ণ

সোনার দেশ ডেস্ক
কোরবানির ঈদের মাস সেপ্টেম্বরে খাদ্যপণ্যের দাম বাড়ায় বাংলাদেশে সাধারণ মূল্যস্ফীতি সামান্য বেড়েছে বলে তথ্য দিয়েছে বাংলাদেশ পরিসংখ্যান ব্যুরো।
গতমাসে পয়েন্ট-টু-পয়েন্ট ভিত্তিতে সাধারণ মূল্যস্ফীতি হয়েছে ৫ দশমিক ৫৩ শতাংশ, যা আগের অর্থবছরের একই মাসে ৬ দশমিক ৩৭ শতাংশ ছিল।
পরিকল্পনামন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল মঙ্গলবার মূল্যস্ফীতির এই হালনাগাদ তথ্য সাংবাদিকদের সামনে তুলে ধরেন।
তিনি বলেন, “ঈদুল আজহার কারণে খাদ্যপণ্যের দাম বেড়ে যাওয়ায় মূল্যস্ফীতি কিছুটা বেড়েছে।” অবশ্য অন্য ঈদের পরে যে হারে মূল্যস্ফীতি বাড়ে, এবার ‘ততোটা বাড়েনি’ বলে মন্তব্য করেন তিনি।
মুস্তফা কামাল বলেন, “বর্তমান মূল্যস্ফীতি সরকারের লক্ষ্যমাত্রার বিবেচনায় ঠিক আছে।”
চলতি ২০১৬-১৭ অর্থবছরের বাজেটে সরকার গড় মূল্যস্ফীতি ৫ দশমিক ৮ শতাংশে নামিয়ে আনার লক্ষ্য ঠিক করেছে।
পরিকল্পনামন্ত্রী বলেন, সেপ্টেম্বরে খাদ্য খাতে মূল্যস্ফীতি ৪ দশমিক ৩০ শতাংশ থেকে বেড়ে ৫ দশমিক ১০ শতাংশ হয়েছে। খাদ্যবহির্ভূত খাতে মূল্যস্ফীতি ৭ শতাংশ থেকে কমে হয়েছে ৬ দশমিক ১৯ শতাংশ।
এদিকে শহর এলাকায় সেপ্টেম্বরে সাধারণ মূল্যস্ফীতি ৭ দশমিক ১৫ শতাংশ থেকে বেড়ে ৭ দশমিক ২১ শতাংশ হয়েছে। শহরে খাদ্য খাদে মূল্যস্ফীতি ৬ দশমিক ৩৯ শতাংশ থেকে বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৭ দশমিক ০৩ শতাংশে।
তবে শহরে খাদ্যবহির্ভূত খাতে মূল্যস্ফীতি আগের মাসের চেয়ে কমে ৭ দশমিক ৯৯ শতাংশ থেকে ৭ দশমিক ৪২ শতাংশে নেমেছে।
গত মাসে গ্রামে সার্বিক মূল্যস্ফীতি ৪ দশমিক ৪১ শতাংশ থেকে বেড়ে ৪ দশমিক ৬৩ শতাংশে উঠেছে।এর মধ্যে খাদ্য খাতে মূল্যস্ফীতি বেড়ে ৩ দশমিক ৪০ শতাংশ থেকে বেড়ে ৪ দশমিক ২৭ শতাংশ হয়েছে।
তবে খাদ্যবহির্ভূত খাতে মূল্যস্ফীতি ৬ দশমিক ২৮ শতাংশ থেকে কমে ৫ দশমিক ৩১ শতাংশে নেমেছে।
শেরেবাংলা নগরের এনইসি সম্মেলনকক্ষে পরিকল্পনামন্ত্রীর এই সংবাদ সম্মেলনে অর্থ ও পরিকল্পনা প্রতিমন্ত্রী এম এ মান্নান ও পরিকল্পনা সচিব তারিক-উল-ইসলাম উপস্থিত ছিলেন।- বিডিনিউজ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ