ঈশ্বরদীতে আ’লীগের সম্মেলন ঘিরে বর্তমান ও সাবেক মেয়রের দ্বন্দ্ব প্রকাশ্যে

আপডেট: সেপ্টেম্বর ২০, ২০২১, ৯:১৮ অপরাহ্ণ

ঈশ্বরদী (পাবনা) প্রতিনিধি:


আগামী ২৯ সেপ্টেম্বর পাবনার ঈশ্বরদী উপজেলা আওয়ামী লীগের সম্মেলনের তারিখ ঘোষণা করা হয়েছে। আসন্ন এই সম্মেলনকে কেন্দ্র করে স্থানীয় পর্যায়ে আওয়ামী লীগের দুটি পক্ষের পাল্টাপাল্টি পুরনো দ্বন্দ্ব এখন প্রকাশ্যে এসেছে। এ নিয়ে গত কয়েকদিন ধরে ঈশ্বরদীতে আওয়ামী লীগের উভয় পক্ষের মধ্যে উত্তেজনার সৃষ্টি হয়েছে। কমিটি নিয়ে দ্বন্দ্বের দুই পক্ষের একদিকে রয়েছেন ঈশ্বরদী পৌর আওয়ামী লীগের সভাপতি সাবেক পৌর মেয়র আবুল কালাম আজাদ মিন্টু এবং অন্যদিকে রয়েছেন সাধারণ সম্পাদক ও বর্তমান মেয়র ইছাহক আলী মালিথা।

ঈশ্বরদী আওয়ামী লীগের দুই পক্ষের এই সংকট নিরসনের চেষ্টা করতে পাবনা জেলা আওয়ামী লীগের উদ্যোগে রোববার রাতে ঈশ্বরদীতে দুই পক্ষের সঙ্গে আলাদা আলাদা বৈঠক করেছেন জেলা আওয়ামী লীগের নেতারা। পাবনা জেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি রেজাউল রহিম লাল, সাধারণ সম্পাদক গোলাম ফারুক প্রিন্স এমপি এই বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন। পাবনা-৪ আসনের এমপি বীর মুক্তিযোদ্ধা নুরুজ্জামান বিশ্বাাসের বাড়িতে এবং দলীয় কার্যালয়ে পৃথক বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়েছে বলে জানান পাবনা জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক গোলাম ফারুক প্রিন্স এমপি।
প্রথমে এক পক্ষের সঙ্গে বৈঠকে পাবনা-৪ আসনের এমপি বীর মুক্তিযোদ্ধা নুরুজ্জামান বিশ্বাস ছাড়াও উপজেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি নায়েব আলী বিশ্বাস, সিনিয়র সহসভাপতি গোলাম মোস্তফা চান্না মন্ডল, সহসভাপতি আলাউদ্দিন প্রামানিক, পৌর আওয়ামী লীগের সভাপতি আবুল কালাম আজাদ মিন্টু ও বিভিন্ন ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের নেতারা উপস্থিত ছিলেন। অপর দিকে রোববার রাতেই উপজেলা আওয়ামী লীগ কার্যালয়ে অপর পক্ষের সঙ্গে পৃথক বৈঠকে জেলা আওয়ামী লীগের নেতাদের উপস্থিতিতে উপস্থিত ছিলেন উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মকলেছুর রহমান মিন্টু, সাংগঠনিক সম্পাদক মীর জহুরুল হক পুনো, পৌর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক পৌর মেয়র ইছাহক আলী মালিথাসহ উপজেলা আওয়ামী লীগের বিভিন্ন পর্যায়ের নেতারা।

দুই পক্ষের সঙ্গে পৃথক বৈঠক শেষে পাবনা জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক গোলাম ফারুক প্রিন্স এমপি সাংবাদিকদের বলেন, ঈশ্বরদী পৌর আওয়ামী লীগের সভাপতি সাবেক পৌর মেয়র আবুল কালাম আজাদ মিন্টু ও সাধারণ সম্পাদক বর্তমান মেয়র ইছাহক আলী মালিথার মধ্যে দ্বন্দ্বের সৃষ্টি হয়েছে। আমরা চেষ্টা করছি সম্মেলনের আগে এই সংকট নিরসন করতে। দুই পক্ষের সঙ্গে আমরা আলাদা আলাদা ভাবে বসে দ্বন্দ্ব নিরসন করার জন্য কথা বলেছি। তিনি বলেন, আগামী ২৯ সেপ্টেম্বর এই উপজেলায় আওয়ামী লীগের সম্মেলন হবে, এ নিয়ে পক্ষে বিপক্ষে পছন্দ অপছন্দ থাকতে পারে তাই বলে কোন সংঘাত সহিংসতা যেন না ঘটে সেদিকে সবার খেয়াল রাখতে হবে।
এদিকে আওয়ামী লীগের আসন্ন সম্মেলন সফল করতে এবং দ্বন্দ্ব নিরসন করার দাবি জানিয়ে ‘প্রচার মিছিল’ করেছে যুবলীগ ও ছাত্রলীগ। রোববার সন্ধ্যায় উপজেলা ও পৌর যুবলীগ. উপজেলা, পৌর ও কলেজ শাখা ছাত্রলীগ যৌথভাবে এই মিছিল বের করে। মিছিলটি শহরের পোষ্ট অফিস মোড় থেকে শুরু হয়ে রেলওয়ে গেট, প্রধান সড়ক ও বাজার এলাকা প্রদক্ষিণ করে আওয়ামী লীগ অফিসে এসে শেষ হয়। মিছিলে নেতৃত্ব দেন উপজেলা যুবলীগের সভাপতি শিরহান শরীফ তমাল, সাংগঠনিক সম্পাদক ইমতিয়াজ চৌধুরী মিলন, সাবেক কমিশনার ফখরুল ইসলাম মনি, পৌর যুবলীগের সভাপতি আলাউদ্দিন বিপ্লব, সাধারণ সম্পাদক আরিফুল ইসলাম লিটন, উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি রাকিবুল হাসান রনি, সাধারণ সম্পাদক সুমন দাসসহ উপজেলা ও পৌর যুবলীগ, উপজেলা, পৌর ও কলেজ ছাত্রলীগের কয়েকশ’ নেতা-কর্মী।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ