ঈশ্বরদীতে ডেঙ্গুজ্বরে আক্রান্ত হয়ে শিশুর মৃত্যু

আপডেট: অক্টোবর ২১, ২০১৯, ১:৩১ পূর্বাহ্ণ

সেলিম সরদার, ঈশ্বরদী


ঈশ্বরদীতে ডেঙ্গু জ্বরে আক্রান্ত হয়ে তাজ মোহম্মদ ইব্রাহিম (৭) নামের এক শিশুর মৃত্যু হয়েছে। গতকাল রোববার সকাল সাড়ে এগারোটার দিকে ঈশ্বরদী হাসপাতাল থেকে চিকিৎসার জন্য রাজশাহীতে নেওয়ার পথে চারঘাট এলাকায় তার মৃত্যু হয়। ঈশ্বরদী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের আবাসিক মেডিকেল অফিসার ডা. শফিকুল ইসলাম শামিম মৃত্যুর বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।
ইব্রাহিম উপজেলার মুলাডুলি ইউনিয়নের রেজাননগর গ্রামের বাসিন্দা মো. হাফিজুর রহমানের ছেলে। হাফিজুর রহমান ঢাকার উত্তরায় এলপিএল স্কুলের সহকারী শিক্ষক হিসেবে কর্মরত।
নিহত ইব্রাহিমের চাচা জামাল উদ্দিন জানান, পারিবারিকভাবে বড় ভাই হাফিজুর রহমান তার স্ত্রী, সন্তানসহ পরিবার পরিজন নিয়ে ঢাকার উত্তরায় বসবাস করেন। গত বুধবার তারা ঈশ্বরদীতে গ্রামের বাড়িতে বেড়াতে আসেন, ঈশ্বরদীতে আসার পর থেকেই ইব্রাহিম প্রথমে সামান্য জ্বরে আক্রান্ত হয়। গত তিন দিনে ইব্রাহিমের শরীরে জ্বরের মাত্রা বাড়তে থাকে এবং মাঝে মাঝে বমিও করছিল সে। শনিবার রাতে তার শরীরে জ্বরের মাত্রা বেড়ে যায়। গতকাল রোববার চিকিৎসার জন্য ঈশ্বরদী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যাওয়া হয় তাকে। হাসপাতালে কর্তব্যরত চিকিৎসকরা তাকে পরীক্ষা করে দেখতে পান ইব্রাহিমের শরীরের বিভিন্ন স্থানে ফোস্কা পড়ে গেছে। প্রাথমিকভাবে চিকিৎসকরা ধারণা করেন ডেঙ্গুজ্বরের কারণে শিশুটি প্রায় নিস্তেজ হয়ে পড়েছে। দ্রুত তাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করার পরামর্শ দেন চিকিৎসকরা। রাজশাহীতে নেওয়ার পথেই শিশুটি মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়ে।
ঈশ্বরদী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের আবাসিক মেডিকেল অফিসার ডা. শফিকুল ইসলাম শামিম জানান, শিশুটিকে আরো আগে হাসপাতালে নিয়ে এলে হয়তো তাকে বাঁচানো যেত। তিনি বলেন, ঈশ্বরদী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ডেঙ্গুজ্বরে আক্রান্ত রোগির চিকিৎসা দেওয়ার মত ব্যবস্থা নেই, সে কারণে তাকে রাজশাহীতে নিয়ে চিকিৎসা দেওয়ার পরামর্শ দেওয়া হয়েছিল।