ঈশ্বরদীতে নকল সয়াবিন তেল, কারখানায় অভিযান ১ লাখ টাকা জরিমানা

আপডেট: জানুয়ারি ১৩, ২০২২, ৮:২২ অপরাহ্ণ


ঈশ্বরদী (পাবনা) প্রতিনিধি:


স্যাঁতসেঁতে ঘরের এক কোনায় বড়সড় একটি পানির ট্যাংকি। সেই ট্যাংকি থেকে পাইপ লাইন টেনে অন্য ঘরে গোপন স্থানে সারি সারি বসানো পানি সরবরাহের ট্যাপ। দেখে বোঝার কোনো উপায় নেই যে পাইপলাইনে ট্যাপের মধ্য দিয়ে পানির বদলে পাশের ঘরে বসানো পানির ট্যাংকি থেকে আসে নকল সয়াবিন তেল। ঈশ্বরদীর গোকুল নগরে অভিনব কায়দায় খুব গোপনে এমন একটি ভেজাল পণ্য উৎপাদনকারী কারখানায় দীর্ঘদিন ধরে চলে আসছিল নকল সয়াবিন তেলসহ বিভিন্ন নকল পণ্য তৈরির কাজ।

পাবনার ঈশ্বরদী উপজেলার সাঁড়া ইউনিয়নের গোকুল নগর এলাকায় নকল ও ভেজাল ভোজ্য তেল তৈরি হচ্ছে এমন গোপন সংবাদের ভিত্তিতে বুধবার বিকেলে অভিযান চালায় ঈশ্বরদী উপজেলা প্রশাসন। ঈশ্বরদী উপজেলা নির্বাহী অফিসার পিএম ইমরুল কায়েস এ বিষয়ে বলেন, আমরা নিজ চোখে না দেখলে বুঝতেই পারতাম না এমন অভিনব উপায়ে ছোট্ট একটি ঘরে তৈরি করা হতে পারে বিভিন্ন ব্রান্ডের ভোজ্য তেল।

 

শুধু তৈরিই নয়, বোতলজাত করাও হয় এই ঘরেই। তিনি বলেন, পার্শ্ববর্তী ভেড়ামারা উপজেলার ইসলামপুর গ্রামের জনৈক মাহমুদুল হক এখানে একটি ঘর ভাড়া নিয়ে সরকারি আদেশ অমান্য করে ‘ডলফিন’ ব্র্যান্ডের নকল সয়াবিন তেল বোতলজাত করে বিভিন্ন এলাকায় এজেন্ট নিয়োগের মাধ্যমে বাজারজাত করে আসছিলেন। তাদের কোনো বৈধ লাইসেন্স কিংবা নূন্যতম কোনো কাগজপত্রও নেই বলে জানান ইউএনও।

এই অবস্থায় ‘ডলফিন’ নামের এই ভেজাল ও নকল সয়াবিন তৈরির কারখানায় অভিযান চালিয়ে কারখানাটি সিলগালা করে বন্ধ করে দেয়া হয়েছে। এসময় ওই প্রতিষ্ঠানকে এক লাখ টাকা জরিমানা করে ভ্রাম্যমান আদালত। প্রশাসনের লোকজন আসার খবর পেয়ে আগেই পালিয়ে যায় নকল পণ্য তৈরিকারক মাহমুদুল হক। এ ঘটনায় ঈশ্বরদী থানায় একটি মামলা হয়েছে।