ঈশ্বরদীতে নবজাতক হত্যার প্রতিবাদে মানববন্ধন : থানা ঘেরাও জমজম হাসপাতাল বন্ধের দাবি

আপডেট: জুন ১১, ২০২৪, ৭:৪৪ অপরাহ্ণ


ঈশ্বরদী (পাবনা) প্রতিনিধি:


পাবনার ঈশ্বরদীতে জমজম স্পেশালাইজড্ হাসপাতালে চিকিৎসকের অবহেলায় নবজাতকের মৃত্যুর প্রতিবাদে বিক্ষোভ মিছিল, মানববন্ধন ও থানা ঘেরাও করা হয়েছে। মঙ্গলবার (১১ জুন) শহরের রেলওয়ে গেট ট্রাফিক মোড় ও প্রধান সড়কে এসব কর্মসূচী পালন করেন নিহত সবজাতকের পিতা, স্বজন ও স্থানীয়রা। এসময় অবিলম্বে এ ঘটনায় দায়ী চিকিৎসক নাফিসা কবির ও প্রসূতির ডেলিভারি করার কাজে জড়িত হাসপাতালের নার্স, আয়া-ঝাড়ুদারদের গ্রেপ্তার ও শাস্তি এবং ওই হাসপাতাল বন্ধ করার দাবি জানান বিক্ষুব্ধ এলাকাবাসী।

প্রায় এক ঘণ্টাব্যাপি মানববন্ধন ও পথসভা শেষে বিক্ষোভ মিছিল নিয়ে ঈশ্বরদী থানা ঘেরাও করেন এলাকাবাসী। থানার প্রধান ফটক অতিক্রম করে ওসির কার্যালয়ের সামনে গিয়ে তাদের বিভিন্ন দাবি উল্লেখ করে বিভিন্ন শ্লোগান দেন তারা। এক পর্যায়ে পরে থানার দ্বিতীয় কর্মকর্তা সুব্রত কুমার বিক্ষোভকারীদের দাবির প্রতি সমর্থন ও সুষ্ঠু বিচারের আশ্বাস দিলে পরিস্থিতি শান্ত হয়।

প্রসঙ্গত: গত শনিবার রাতে ঈশ্বরদী পৌর এলাকার হাসপাতাল রোডে অবস্থিত জমজম ষ্পেশালাইজড্ হাসপাতালে জিমু খাতুন নামে এক প্রসূতী সন্তান প্রসবের জন্য ভর্তি হন। হাসপাতালের ডাক্তার নাফিসা কবির ওই প্রসূতীর আল্ট্রাসনো করতে বলে বাসায় চলে যান। ৩ ঘন্টা অপেক্ষার পর রাত তিনটার দিকে জিমুর প্রসব ব্যাথা উঠলে ডাক্তারকে খবর দেওয়া হলেও তিনি না এসে হাসপাতালের নার্স, আয়া ও ঝাড়ুদারদের দিয়ে ওই প্রসূতীর ডেলিভারি করানো হয়। এতে ভূমিষ্ট হওয়ার সাথে সাথেই নবজাতকের মৃত্যু হয়।

এ ঘটনায় জিমু খাতুনের স্বামী সাইদুর রহমান ঈশ্বরদী থানায় লিখিত অভিযোগ করেছেন। এ বিষয়ে ঈশ্বরদী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) রফিকুল ইসলাম বলেন, ইতোমধ্যে হাসপাতাল পরিদর্শন করেছে পুলিশ। অভিযোগ তদন্ত করে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

Exit mobile version