ঈশ্বরদীতে পুলিশি টহলের মধ্যেই পাথর নিক্ষেপে ট্রেনযাত্রীর মাথা ফাটলো

আপডেট: অক্টোবর ১৩, ২০২১, ৮:১৯ অপরাহ্ণ


ঈশ্বরদী (পাবনা) প্রতিনিধি:


ট্রেনে পাথর নিক্ষেপের বিরুদ্ধে সচেতনতামুলক বিশেষ পুলিশি টহলের মধ্যেই এবার পাবনার ঈশ্বরদীতে চলন্ত ট্রেনে পাথর নিক্ষেপের ঘটনা ঘটেছে। এতে মো. ইসলাম হোসেন (৬২) নামের এক ট্রেনযাত্রীর মাথা ফেটে গুরুতর আহত হয়েছেন। তিনি পাবনার আমিনপুর কাজীপাড়ার আব্দুল হাইয়ের ছেলে। ট্রেনে দায়িত্বরত পুলিশ ও কর্মচারীরা তাকে উদ্ধার করে ট্রেনেই প্রাথমিক চিকিৎসার ব্যবস্থা করেন। মঙ্গলবার রাত ৮টার দিকে ঈশ্বরদীর দাশুড়িয়া রেলওয়ে স্টেশনের নিকট ঈশ্বরদী-ঢালারচর-রাজশাহী রুটে চলাচলরত আন্তঃনগর ঢালার চর এক্সপ্রেস ট্রেনে এ ঘটনা ঘটে।

ঈশ্বরদী রেলওয়ে থানা সূত্রে জানা গেছে, পাকশী রেলওয়ে জেলার পুলিশ সুপার সাহাব উদ্দিন, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার আমিনুর ইসলাম, রেলওয়ে নিরাপত্তা বাহিনীর চিফ ইন্সপেক্টর ফিরোজ আহমেদ ও রেলওয়ের বিভাগীয় কর্মকর্তাদের উপস্থিতিতে মঙ্গলবার ঈশ্বরদী থেকে রাঘবপুর পর্যন্ত রেলপথে বিশেষ ট্রলি বহর নিয়ে ট্রেনে পাথর নিক্ষেপের বিরুদ্ধে সচেতনতামুলক টহল, পথসভা ও মহড়া চলছিল। এ সময় ক্ষুদ্রমাটি বাড়ি ও রাঘবপুর স্টেশন এলাকায় দুটি পথসভায় স্থানীয় জন প্রতিনিধি ও স্থানীয় বাসিন্দাদের নিয়ে মানুষকে এ বিষয়ে সচেতন করতে মত বিনিময়ও করা হয়। এসব কর্মসূচী চলার সময়ই মঙ্গলবার রাতে ঈশ্বরদীর দাশুড়িয়া স্টেশনের নিকট ওই ট্রেনে পাথর নিক্ষেপের এ ঘটনা ঘটে।

ট্রেনে কর্তব্যরত টিটিই, পুলিশ ও ট্রেনের একাধিক যাত্রী জানান, ট্রেনটি রাজশাহী থেকে ঈশ্বরদী হয়ে ঢালার চর অভিমুখে যাওয়ার সময় ট্রেনটি দাশুড়িয়া স্টেশন ছেড়ে যাবার কিছুক্ষণ পর ওই ট্র্রেনে পাথর নিক্ষেপের ঘটনা ঘটে। এতে ট্রেন যাত্রী পাবনার আমিনপুর কাজীপাড়ার আব্দুল হাইয়ের ছেলে মো. ইসলাম হোসেনের মাথার বামপাশে পাথর লাগে। এতে তিনি আহত হলে তাকে উদ্ধার করেন ট্রেনে কর্তব্যরত পুলিশ ও কর্মচারীরা।

ঈশ্বরদী রেলওয়ে থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (চলতি দায়িত্ব) আমজাদ আলী চৌধুরী জানান, তাকে ঈশ্বরদী রেলওয়ে থানায় আনার পর অনেক অনুরোধ করার পরও তিনি মামলা করতে রাজি হননি। পরে রেল পুলিশ তাকে তার গন্তব্যস্থলে পৌঁছে দেওয়ার ব্যবস্থা করেন।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ