ঈশ্বরদীতে পোল্ট্রি খামারির বাড়িতে মাদক ব্যবসায়ীদের হামলা || ইয়াবাসহ গ্রেফতার ৩

আপডেট: মার্চ ৪, ২০১৭, ১২:১১ পূর্বাহ্ণ

ঈশ্বরদী প্রতিনিধি


ঈশ্বরদীতে মাদক ব্যবসার প্রতিবাদ করায় কামাল উদ্দিন স্বপন নামে এক পোল্ট্রি ব্যবসায়ীর বাড়িতে হামলা চালিয়ে ভাঙচুর করেছে মাদক ব্যবসায়ীরা। গত বৃহস্পতিবার দিবাগত রাত ১০টার দিকে শহরের পিয়ারাখালি দরিনারিচা এলাকায় ওই পোল্ট্রি খামারির বাড়িতে এই হামলা চালানো হয়।
খবর পেয়ে অভিযান চালিয়ে ওই এলাকার মাদকের আখড়া থেকে তিন মাদক ব্যবসায়ীকে ১০২ পিস ইয়াবাসহ গ্রেফতার করে পুলিশ। গতকাল শুক্রবার সকালে তাদের বিরুদ্ধে মাদকদ্রব্য আইনে মামলা দায়ের করে পাবনা জেল হাজতে পাঠানো হয়। গ্রেফতারকৃতরা হলেন, পাবনার গয়েশপুর রথখোলা এলাকার ইসমাইল হোসেনের ছেলে রফিকুল ইসলাম (৩৮), তার স্ত্রী দরিনারিচা পিয়ারাখালি এলাকার পারভীন আক্তার ও একই এলাকার আক্কেল আলীর মেয়ে রিনা খাতুন।
পুলিশ ও স্থানীয়রা জানায়, মাদক ব্যবসায়ী রফিকুল ইসলাম পিয়ারখালি এলাকায় জনৈক এক ব্যক্তির বাড়ি ভাড়া নিয়ে দীর্ঘদিন ধরে মাদক ব্যবসা চালিয়ে আসছিল। তিনি ওই বাড়ির একটি কক্ষে মাদক সেবনকারী ও ক্রেতা-বিক্রেতাদের আখড়ায় পরিণত করে। তাদের মাদক ব্যবসায় এলাকাবাসী অতিষ্ঠ হয়ে পড়েন। প্রতিবাদ করলে মাদক ব্যবসায়ীরা তাদের হুমকি ও মিথ্যা মামলায় জড়ানোর ভয় দেখাতো। এ ঘটনা জানতে পেরে বাড়ির মালিক পানি উন্নয়ন বোর্ডের অবসরপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ফজলুর রহমান মাদকের আখড়া উচ্ছেদ করার জন্য পুলিশের স্মরণাপন্ন হন। একই সঙ্গে মাদক ব্যবসায়ীদের বাড়ি ছাড়ার নোটিশও দেন তিনি। এরপরও তারা গত ৬ মাস ধরে ভাড়া না দিয়েই জোরপূর্বক বাড়িতে অবস্থান করে। বাড়িওয়ালার অভিযোগের ভিত্তিতে বৃহস্পতিবার পুলিশ সেখানে গিয়ে তাদের বাড়ি ছাড়ার নির্দেশ দিয়ে আসে। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে একই বাড়ির অন্য দুইটি কক্ষে স্ত্রী ও সন্তানদের নিয়ে ভাড়া থাকা পোল্ট্রি খামারি কামাল উদ্দিন স্বপনকে সন্দেহ করে তাকে ও তার পরিবারের সদস্যদের হুমকি দেয় মাদক ব্যবসায়ীরা। রাত ১০টার দিকে মাদক ব্যবসায়ী রফিকুল ইসলামের নেতৃত্বে তার স্ত্রী, ভাই-বোনসহ অন্য ৮/১০ জন মাদক ব্যাবসায়ীরা সংগঠিত হয়ে স্বপনের বাসায় লাঠিসোটা নিয়ে হামলা চালায়। এসময় তারা ভাঙচুর ও বাড়িতে ইটপাটকেল নিক্ষেপ করে। খবর পেয়ে রাত ১১টার দিকে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে তিনজনকে গ্রেফতার করলেও বাকিরা পালিয়ে যায়।
এ বিষয়ে ঈশ্বরদী থানার শহর উপপরিদর্শক মতিউর রহমান জানান, ঘটনাস্থল থেকে রফিকুলকে গ্রেফতার করলে মাদক ব্যবসায়ীরা তাকে ছাড়িয়ে নেয়ারও চেষ্টা করে। তবে আরো বেশি সংখ্যক পুলিশ এলে অন্য মাদক ব্যবসায়ীরা পালিয়ে যায়।