ঈশ্বরদীতে মাদক ব্যবসায়ীদের কারণে ভাই-বোনের স্কুল-কলেজে যাওয়া বন্ধ

আপডেট: March 13, 2017, 12:23 am

সেলিম সরদার, ঈশ্বরদী


ঈশ্বরদীতে মাদক ব্যবসায়ীদের হুমকি ও ভয়ে আতঙ্কিত হয়ে গত ১০ দিন ধরে স্কুলে-কলেজে যাওয়া বন্ধ রয়েছে দশম শ্রেণির ছাত্র সাব্বির ও একাদশ শ্রেণির ছাত্রী শারমিন আক্তার শম্পা নামের আপন দুই ভাই-বোনের। সাব্বির হোসেন ঈশ্বরদী এসএম মডেল স্কুল এন্ড কলেজের দশম শ্রেণির ছাত্র এবং তার বড় বোন শারমিন আক্তার শম্পা ঈশ্বরদী মহিলা কলেজের একাদশ শ্রেণির ছাত্রী। তারা ঈশ্বরদী শহরের পিয়ারাখালি দরিনারিচা এলাকার পোল্ট্রি ব্যবসায়ী কামাল উদ্দিন স্বপনের সন্তান।
স্থানীয় একটি নির্ভরযোগ্য সূত্রে খবর পেয়ে গতকাল রোববার সকালে সরেজমিন তাদের বাড়িতে গিয়ে জানা যায় এসব কথা। ছাত্র-ছাত্রী দুই ভাইবোন এবং তাদের বাবা কামাল উদ্দিন স্বপন জানান, মাদক ব্যবসা ও আখড়া নিয়ে প্রতিবাদ করায় স্থানীয় মাদক ব্যবসায়ীরা সংঘবদ্ধ হয়ে তাদের বাড়িতে হামলা, ভাঙচুর, ইটপাটকেল নিক্ষেপ, পোল্ট্রি খামারের শতাধিক মুরগিকে ধরে আছড়ে, পায়ে পিষ্ট করে মেরে ফেলা, তারা বাড়ির বাইরে বের হলে লাঞ্ছিত করাসহ হত্যার হুমকি প্রদান করায় তাদের বাড়ির সদস্যরা বাড়ির বাইরে বের হতে ভয় পাচ্ছেন। কলেজ ছাত্রী শম্পা জানান, মাদক ব্যবসায়ীদের ভয়ে তারা সবাই আতঙ্কিত। গত ১০ দিন ধরে তারা দুই ভাইবোন স্কুল-কলেজে যেতে পারে নি। প্রাইভেট পড়াও বন্ধ রয়েছে তাদের। শম্পা জানায়, কলেজে যাওয়ার পথে যদি ওরা (মাদক ব্যবসায়ী) কিছু একটা করে বসে সে ভয়ে আতঙ্কিত সে। শম্পার বাবা স্বপন জানান, বাড়ির নিত্য প্রয়োজনীয় কাজ, ব্যবসা এমনকি বাজারে যেতেও ভয় পাচ্ছেন তিনি।
পুলিশ ও স্থানীয়রা জানায়, ওই এলাকার কুখ্যাত মাদক ব্যবসায়ী রফিকুল ইসলাম পিয়ারখালি এলাকায় বাড়ি ভাড়া নিয়ে দির্ঘদিন ধরে মাদক ব্যবসা চালিয়ে আসছিল, সে ওই বাড়ির একটি কক্ষে মাদক সেবনকারী ও ক্রেতা-বিক্রেতাদের আখড়ায় পরিণত করে। তাদের মাদক ব্যবসায় এলাকাবাসী অতিষ্ঠ হয়ে পড়েন। প্রতিবাদ করলে মাদক ব্যবসায়ীরা তাদের হুমকি ও মিথ্যা মামলায় জড়ানোর ভয় দেখাতো। এলাকাবাসীর এসব অভিযোগ পেয়ে সম্প্রতি পুলিশ সেখানে অভিযান চালালে ক্ষিপ্ত হয়ে ওঠে মাদক ব্যবসায়ীরা। একই বাড়ির অন্য দুটি কক্ষে স্ত্রী ও সন্তানদের নিয়ে ভাড়া থাকা পোল্ট্রি খামারি কামাল উদ্দিন স্বপনকে সন্দেহ করে তাকে ও তার পরিবারের সদস্যদের হুমকি দেয় মাদক ব্যবসায়ীরা। পরে মাদক ব্যবসায়ী রফিকুল ইসলামের নেতৃত্বে তার স্ত্রী, ভাই-বোনসহ অন্যান্য ৮/১০ জন মাদক ব্যাবসায়ীরা সংগঠিত হয়ে স্বপনের বাসায় লাঠিসোটা নিয়ে হামলা চালিয়ে ভাঙচুর করে, বাড়িতে অবিরাম ইটপাটকেল ছুঁড়তে থাকে। এ খবর পেয়ে পুলিশ ৩ মাদক ব্যবসায়ীকে ১০২ পিস ইয়াবাসহ গ্রেফতার করলে আরো ক্ষুব্ধ হয়ে ওঠে তাদের সহযোগি মাদক ব্যবসায়ীরা। এদের গ্রেফতার করায় পোল্ট্রি খামারি কামাল উদ্দিন স্বপনের হাত রয়েছে বলে সন্দেহ করে তার পোল্ট্রি খামারে মাদক ব্যবসায়ীরা হামলা চালায়।
ঈশ্বরদী থানার শহর উপপরিদর্শক মতিউর রহমান এসব ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, ইতিমধ্যে পুলিশ অভিযান চালিয়ে ঘটনাস্থল থেকে মাদক ব্যবসায়ী রফিকুল ইসলাম, পারভীন আক্তার, রিনা খাতুন, আরিফুল ইসলাম ও সীমাকে গ্রেফতার, ইয়াবা, চোরাই মোটরসাইকেল ও চোরাই রিকশা উদ্ধার করেছে পুলিশ।
দুই ভাইবোনের স্কুলে-কলেজে যাওয়ার নিরাপত্তার বিষয়ে ঈশ্বরদী থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) আব্দুল হাই বলেন, মাদক ব্যবসায়ীদের বিরুদ্ধে থানায় মামলা হয়েছে, কয়েকজন গ্রেফতার হয়েছে, ভয়ের কোন কারন নেই আরো মাদক ব্যবসায়ীদের গ্রেফতার করতে অভিযান চলছে।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ