ঈশ্বরদীতে যুবলীগ নেতা গুলিবিদ্ধ’র ঘটনায় ৩ দিন পর থানায় এজাহার দায়ের

আপডেট: অক্টোবর ১৯, ২০২১, ৯:২০ অপরাহ্ণ


ঈশ্বরদী (পাবনা) প্রতিনিধি:


পাবনার ঈশ্বরদীতে মো. শাহীন নামে এক যুবলীগ নেতাকে গুলি করার চাঞ্চল্যকর ঘটনার তিন দিন পর ঈশ্বরদী থানায় এজাহার দায়ের করেছেন গুলিবিদ্ধ শাহিনের স্ত্রী সাজেদা খাতুন। মঙ্গলবার (১৯ অক্টোবর) তিনি থানায় লিখিত এজাহার দায়ের করেন। ঈশ্বরদী থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) আসাদুজ্জামান এই এজাহার গ্রহণ করেছেন। গুলিবিদ্ধ শাহীন ঈশ্বরদী ঈশ্বরদী পৌর যুবলীগের ৯নং ওয়ার্ড শাখার সাংগঠনিক সম্পাদক, তিনি ঈশ্বরদী পৌর এলাকার ইস্তা এলাকার আব্দুর রশিদের ছেলে।

এজাহারে শাহিনের স্ত্রী সাজেদা খাতুন অভিযোগ করে বলেন, শনিবার সন্ধ্যা ৭টার দিকে শহরের টেক্সটাইল মিলস উচ্চ বিদ্যালয়ের নিকটস্থ বাঁশের হাটের সামনে ব্যবসার কাজে অবস্থান করার সময় জুবায়ের বিশ্বাস, আরাফাত রাসেল, আলমগীর, শফিকুল ও সোহেল তার পথ রোধ করে প্রকাশ্যে পরপর ৪ রাউন্ড গুলি বর্ষণ করে। গুলিবিদ্ধ হয়ে শাহিন লুটিয়ে পড়ে। তাকে গুরুতর আহত অবস্থায় রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল থেকে ঢাকায় বঙ্গবন্ধু মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। জুবায়ের বিশ্বাসের সঙ্গে পূর্ব শত্রুতার জের ধরে তাকে হত্যার উদ্দ্যেশ্যে এই হামলা ও গুলিবর্ষন করা হয় বলে দাবি করেন তিনি।

ঈশ্বরদী থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) আসাদুজ্জামান আসাদ এজাহার দায়েরের সত্যতা স্বীকার করে বলেন, খবর পেয়ে ঘটনাস্থল পুলিশ পরিদর্শন করে সেখানে ৩ রাউন্ড গুলির খোসা উদ্ধার করা হয়েছে। এজাহার তদন্ত করে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে বলে জানান ওসি। অভিযুক্ত জুবায়ের বিশ্বাস ঈশ্বরদী উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি। তিনি তার বিরুদ্ধে আনিত অভিযোগ সম্পর্কে বলেন, আমি এ ঘটনার সঙ্গে কোনভাবেই জড়িত নই, যুবলীগের বর্তমান কমিটির নেতারা পরিকল্পিতভাবে আমাকে ফাঁসানোর চেষ্টা করছেন।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ