ঈশ্বরদীতে শেখ হাসিনার ট্রেনে গুলি মামলা সাবেক চেয়ারম্যানসহ দ-প্রাপ্ত আরো ৮ আসামীর আত্মসমর্পণ

আপডেট: জুলাই ১৫, ২০১৯, ১:০৪ পূর্বাহ্ণ

সেলিম সরদার, ঈশ্বরদী


ঈশ্বরদীর চাঞ্চল্যকর শেখ হাসিনার ট্রেনে গুলি মামলায় যাবজ্জীবন ও ১০ বছরের দ-প্রাপ্ত পলাতক আরো ৮ আসামী আদালতে আত্মসমর্পণ করেছেন। গতকাল রোববার পাবনার অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ প্রথম আদালতে (ঈশ্বরদী) স্বেচ্ছায় হাজির হয়ে এসব দ-প্রাপ্ত আসামী জামিন আবেদন করলে বিচারক রুস্তম আলী তাদের জামিন না মঞ্জুর করে পাবনা জেলা কারাগারে প্রেরণের নির্দেশ দেন। আত্মসমর্পনকারিদের মধ্যে যাবজ্জীবন দ-প্রাপ্ত পাকশী ইউনিয়ন পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান বিএনপি নেতা আবুল কালাম আজাদ, আমিনুল ইসলাম আমিন, আজাদ হোসেন খোকন, মো. রবি ও মামুন হেসেন ছাড়াও দশ বছর কারাদ-ে দ-িত পলাতক আসামীদের মধ্যে উপজেলা বিএনপির সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক হুমায়ুন কবির দুলাল, রনো রিয়াজী ও চাঁদ আলী স্বেচ্ছায় আদালতে উপস্থিত হয়ে আত্মসমর্পণ করেন।
আদালত সূত্র জানায়, তৎকালীন বিরোধী দলীয় নেত্রী ও বর্তমানে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ১৯৯৪ সালের ২৩ সেপ্টেম্বর দলীয় কর্মসূচিতে ট্রেনবহর নিয়ে রেলপথে খুলনা থেকে সৈয়দপুর যাচ্ছিলেন। পথিমধ্যে ঈশ্বরদী রেলওয়ে জংসন স্টেশনে তাকে বহনকারী ট্রেনবহর যাত্রাবিরতি করলে ওই ট্রেন ও শেখ হাসিনার কামরা লক্ষ্য করে গুলিবর্ষণ করে ট্রেনবহরে হামলা চালায় তৎকালীন বিএনপি ও ছাত্রদলের কতিপয় নেতাকর্মীরা। এ ঘটনায় ঈশ্বরদীতে দলীয় কর্মসূচি সংক্ষিপ্ত করে শেখ হাসিনা সেদিন দ্রুত ঈশ্বরদী ত্যাগ করেন। পরে রেলওয়ে পুলিশ বাদী হয়ে তৎকালীন ছাত্রদল নেতা ও বর্তমানে ঈশ্বরদী পৌর বিএনপির সাধারণ সম্পাদক জাকারিয়া পিন্টুসহ ৭ জনকে আসামী করে মামলা দায়ের করেন। ১৯৯৬ সালে আওয়ামীলীগ সরকার গঠন করার পর মামলাটি পুনঃতদন্ত করে পুলিশ। তদন্ত শেষে নতুনভাবে ঈশ্বরদীর শীর্ষস্থানীয় বিএনপি, যুবদল ও ছাত্রদলের নেতাকর্মীসহ ৫২ জনকে এই মামলার আসামী করা হয়। মামলাটি দায়ের করার বছরে এই মামলায় পুলিশ কোন স্বাক্ষী না পেয়ে আদালতে চুড়ান্ত রিপোর্টও দাখিল করে, কিন্তু আদালত সে রিপোর্ট গ্রহণ না করে অধিকতর তদন্তের জন্য সিআইডিতে প্রেরণ করে। ১৯৯৬ সালের দিকে সিআইডি তদন্ত করে আদালতে চার্জশীট দাখিল করে।
২৫ বছর পর গত ৩ জুলাই এই মামলার রায়ে বিএনপির ৯ নেতাকর্মীকে মৃত্যুদ- ২৫ জনের যাবজ্জীবন কারাদ- এবং ১৩ জনকে ১০ বছর করে সশ্রম কারাদ- দেওয়া হয়। পাবনার অতিরিক্ত দায়রা জজ আদালত-১-এর বিচারক রুস্তম আলী গত ৩ জুলাই জনাকীর্ণ আদালতে এ রায় ঘোষণা করেন। উল্লেখ্য ফাঁসির দ-প্রাপ্ত ঈশ্বরদী পৌর বিএনপির সাধারণ সম্পাদক জাকারিয়া পিন্টু, যাবজ্জীবন কারাদ- প্রাপ্ত ৫ জন এবং দশ বছর সাজাপ্রাপ্ত ১ জনসহ ৭ আসামী এখনো পলাতক রয়েছে।