ঈশ্বরদীর অপহরণকৃত ৩ পথ শিশু আত্রাই থেকে উদ্ধার : ৫ অপহরণকারী গ্রেফতার

আপডেট: জুন ৩০, ২০১৭, ১২:৩৬ পূর্বাহ্ণ

ঈশ্বরদী প্রতিনিধি


ঈশ্বরদী থেকে অপহরণের পর উদ্ধারকৃত তিন শিশু ও (ডানে) গ্রেফতারকৃত অপহরণকারীরা-সোনার দেশ

ঈশ্বরদী থেকে অপহরণকৃত তিন জন পথশিশুকে উদ্ধার করেছে ঈশ্বরদী পুলিশ । সেই সাথে অপহরণকারী ২ নারীসহ ৫ জন গ্রেফতার করেছে। গত রোববার রাতে ঈশ্বরদী থানায় এক প্রেস ব্রিফিংএ অতিরিক্ত পুলিশ সুপার জহুরুল হক জানান, গত ২৩শে জুন ঈশ্বরদীর পৌর এলাকার এমএস কলোনী থেকে ভারতে পাচারের উদ্দ্যেশে একটি সংঘবদ্ধ অপহরণকারী চক্র ৩ জন পথ শিশুকে অপহরণ করে। এই শিশুরা গরীব ও প্রান্তিক জনগোষ্ঠি পরিবারের সন্তান। অপহৃত শিশুরা হলো জিম (১১), জিম (৯) এবং শাহিন (১১)। আসামিরা প্রত্যেকেই মাদকাসক্ত তারা মাদকের টাকার জন্য এসব শিশুদের অপহরণ করে ভারতের সীমান্তে দালালদের মাধ্যমে পাচার করে বলে তিনি জানান।
গত ২৩শে জুন এসব শিশু নিখোঁজের বিষয়ে ঈশ্বরদী থানায় অভিযোগ করা হলে পুলিশ তৎপরতা শুরু করে। এব্যাপারে বিভিন্ন থানায় তথ্য প্রেরণ করা হয়। পুলিশ মোবাইল ট্রাকিং এর মাধ্যমে জানতে পারে এরা নওগাঁ জেলার আত্রাই থানায় অবস্থান করছে। এ অবস্থায় আত্রই থানার সহযোগীতা নিয়ে গত ২৪শে জুন ভরতেঁতুলিয়া স্টেশন পাড়া এলাকার একটি দোকানে বসা অবস্থায় অপহৃত ওই তিন শিশুসহ আসামিদের গ্রেফতার করা হয়। পরে আত্রই থানার নিয়ম কানুন পালন করে ২৫শে জুন তাদের ঈশ্বরদীতে আনা হয়।
পুলিশ কর্মকর্তা জহুরুল হক বলেন, আটককৃত আসামিরা জিজ্ঞাসাবাদে জানিয়েছে এসব শিশুদের তারা ২৩ হাজার টাকায় বিক্রি করে। এর আগে তারা বগুড়া, যশোহর বিভিন্ন স্থান থেকে বাচ্চা চুরি করেছে বলে জানিয়েছে। বিভিন্ন এলাকা থেকে গরীব ও প্রান্তিক জনগোষ্ঠির ৮ থেকে ১২ বছর বয়সী পথশিশুদের প্রলোভন দিয়ে অপহরণ করে ভারতে পাচার করে, তার পরের ইতিহাস অজানা। গরীব বাবা মা হারানো জিডি করে কিন্তু ছেলে আর ফিরে আসে না। তিনি দৃঢ়তার সাথে বলেন, কিন্তু এখন থেকে আর এমন হবে না, আমরা হতে দিব না, পুরো গ্যাংটাকে গ্রেফতার করব। আটককৃত অপহরণকারীরা হলো রুবেল ওরফে সাদ্দাম ওরফে মুন্না ওরফে নিরব (২৬), রেজাউল (২১), সুমন (১৯), সালমা (২০)ও রাবেয়া (৩৫)।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ