ঈশ্বরদীর একটিতে বিদ্রোহী অন্য ৬ ইউপিতে নৌকা জয়ী

আপডেট: নভেম্বর ২৯, ২০২১, ১০:১৪ অপরাহ্ণ

ঈশ্বরদী (পাবনা) প্রতিনিধি:


দিনভর বিক্ষিপ্ত ঘটনার মধ্য দিয়ে রোববার ঈশ্বরদীর ৭টি ইউনিয়নে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়েছে। এর মধ্যে একটিতে আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী এবং অন্য ৬ অইউপিতে নৌকার প্রার্থীরা জয়লাভ করেছে। নির্বাচনে লক্ষীকুন্ডা ইউনিয়নে দফায় দফায় বিক্ষিপ্ত কিছু ঘটনা, দাশুড়িয়ার মাড়মী সুলতানপুরের ৬নং ওয়ার্ডে ব্যালট বাক্স ছিনতাই, পুলিশের গুলিবর্ষনে ব্যালট বাক্স ছিনতাইকারী গুলিবিদ্ধ হওয়ার ঘটনা ঘটেছে। এছাড়া আরো কিছু এলাকায় মেম্বার প্রার্থীদের মধ্যে হাতাহাতি-মারামারির ঘটনা এবং নির্বাচনের পর রোববার রাত থেকে গতকাল সোমবার দুপুর ১টা পর্যন্ত দফায় দফায় হামলা ও মারধর করার ঘটনা ঘটে।

এসব ঘটনা ছাড়া সাত ইউনিয়নে মোটামুটি শান্তিপূর্ণভাবে নির্বাচন সম্পন্ন হয়েছে। উপজেলার ৭টি ইউনিয়ন ঘুরে দেখা গেছে গ্রামে গ্রামে উৎসব মুখর পরিবেশে ভোটগ্রহন হয়েছে। ভোটাররা স্বতস্ফুর্তভাবে ভোট দিতে এসেছেন ভোটকেন্দ্রে।

নির্বাচনে সাহাপুর ইউনিয়নে আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী এমলাক হোসেন বাবু বড় ব্যবধানে পরাজিত করেন নৌকার প্রার্থী আকাল উদ্দিন সরদারকে। এছাড়া বাকি তিন ইউনিয়নের সাঁড়ায় আওয়ামী লীগের এমদাদুল হক রানা সরদার, লক্ষীকুন্ডায় নৌকার প্রার্থী আনিস-উর-রহমান শরীফ, ও সলিমপুর ইউপিতে আওয়ামী লীগের প্রার্থী আব্দুল মজিদ বাবলু মালিথা চেয়ারম্যান নির্বাচিত হন। এর আগে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় পাকশী, দাশুড়িয়া ও মুলাডুলিতে আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থীরা চেয়ারম্যান নির্বাচিত হন। এই তিন ইউনিয়নের চেয়ারম্যানরা হলেন পাকশীতে সাইফুজ্জামান পিন্টু, দাশুড়িয়ায় বকুল সরদার ও মুলাডুলিতে আব্দুল খালেক মালিথা। রোববার রাতে উপজেলা নির্বাচন অফিস থেকে ঈশ্বরদীর ৭ ইউনিয়নের নবনির্বাচিত চেয়ারম্যানদের বেসরকারীভাবে নির্বাচিত ঘোষণা করা হয়।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ