উইকেট নিয়েই যত আলোচনা

আপডেট: অক্টোবর ২৬, ২০১৬, ১০:৫৪ অপরাহ্ণ


সোনার দেশ ডেস্ক
চট্টগ্রামের উইকেট ছিল রহস্যময়। স্পিনারদের ঘূর্ণিতে খেই হারিয়েছে দুই দলের ব্যাটসম্যানরা। ঢাকাতেও কি ওই রহস্যময় উইকেটই হচ্ছে, নাকি কিছুটা স্পোর্টিং উইকেট হবে মিরপুরে! এই সব প্রশ্ন এখন ঘুরপাক খাচ্ছে মিরপুরে। উইকেটের ওপর নির্ভর করেই সাজানো হবে বাংলাদেশের সেরা একাদশ। যদি উইকেট হয় চট্টগ্রামের মতো সেক্ষেত্রে একাদশ সাজানো হবে আগের মতো করেই। উইকেট ফ্লাট হলে নতুন পরিকল্পনা আসবে।
তবে বাংলাদেশ কেমন উইকেট প্রত্যাশা করছে এটা এখনও জানা যায়নি। সহ-অধিনায়ক তামিম ইকবাল কূটনৈতিক উত্তরই দিয়েছেন, ‘এটা আসলে টিম ম্যানেজমেন্ট সিদ্ধান্ত নেবে। এই বিষয় নিয়ে আমার কিছু বলাটা ঠিক হবে না। এটা নিয়ে নিশ্চয়ই পরিকল্পনা হচ্ছে। আমরা সবাই আলোচনা করব। যেটা আমাদের জন্য ভালো, যেটা আমাদের দলের সঙ্গে বেশি মানানসই হবে; আমার মনে হয়, তেমন ধরনের উইকেট হবে।’
বুধবার দুপুরে অনুশীলনে নেমেই প্রধান কোচ হাথুরুসিংহে চলে গেলেন উইকেট দেখতে। অনেকক্ষণ খুঁটিয়ে খুঁটিয়ে উইকেট দেখলেন হাথুরুসিংহে। কিউরেটর গামিনী ডি সিলভার সঙ্গে কথা বলে উইকেটের ভাষা বোঝার চেষ্টা করলেন।
কিছুক্ষণের মধ্যে ব্যাটিং পরামর্শক থিলান সামারাবীরাও চোখ রাখলেন উইকেটে। সাকিব আল হাসান এমনকি ওয়ানডে অধিনায়ক মাশরাফি বিন মর্তুজাও এলেন উইকেট দেখতে। একটু বিরতি দিয়ে তামিম ইকবাল, টেস্ট অধিনায়ক মুশফিকুর রহিম, নির্বাচক হাবিবুল বাশার সমুন; পরে হাথুরুসিংহে, সামারাবীরা মিলে গামিনীর সঙ্গে আলাপ করে নিলেন। ম্যাচের দিন সকালের আগে অবশ্য সেরা কম্বিনেশন দাঁড় করানো যাচ্ছে না।
উইকেট দেখে মূলত একাদশ সাজানো হয়। অনেক সময় যেভাবে চিন্তা করা হয় উইকেট সেভাবে আচরণ করে না। তাহলে এখন কি পরিকল্পনা করা হচ্ছে, এমন প্রশ্নের উত্তরে তামিম ইকবাল বলেছেন, ‘দেখেন উইকেট কিভাবে হবে, কি রকম আচরণ করবে এটার একটা ধারণা সবারই থাকে। যারা ১০-১৫ বছর ধরে ক্রিকেট খেলছে অথবা যারা অভিজ্ঞ তারা এটা বুঝে। এটা হলো টিম ম্যানেজমেন্টের সিদ্ধান্ত। ওরা যেটা ভালো মনে করবে, আমাদের দলের জন্য তাই হবে। উইকেট দেখে যদি মনে হয়, একে খেলানো উচিত কিংবা একে খেলানো উচিত নয়। তাহলে সেটাই করা হবে।’
শুধু বাংলাদেশ নয়, সকালে অনুশীলন শেষ করেই এক পলক উইকেট দেখে নিলেন ইংলিশ অধিনায়ক অ্যালিস্টার কুকও। বুধবার সকালে ইংল্যান্ড অনুশীলন করেছে। অন্যদিকে দুপুর দেড়টা থেকে বাংলাদেশ অনুশীলন করেছে। সাব্বির ছাড়া টেস্ট দলের সবাই অনুশীলনে ছিলেন। এমনকি রঙিন পোশাকের অধিনায়ক মাশরাফির সঙ্গে অনুশীলনে ছিলেন তাসকিন আহমেদ। তবে শুক্রবার দ্বিতীয় টেস্ট নিয়ে দেখা দিয়েছে শঙ্কা। ঘূর্ণিঝড় ‘কায়ান্ট’-এর প্রভাবে দুপুর থেকে মিরপুরের আকাশে মেঘ। সন্ধ্যার দিকে কিছুটা বৃষ্টিও হয়ে গেছে। সব মিলিয়ে তাই ম্যাচটি নিয়ে শঙ্কা থেকেই যাচ্ছে।-বাংলাট্রিবিউন