উচ্চপ্রযুক্তির ২ কমোড

আপডেট: ডিসেম্বর ১৫, ২০১৬, ১২:০৬ পূর্বাহ্ণ

সোনার দেশ ডেস্ক



কমোডটির দামই বাংলাদেশি টাকায় দশ লাখ। হবে না! এটা যে উচ্চ প্রযুক্তির কমোড! জাপানের একটি কোম্পানির ‘দ্য টুটু অ্যাকটিলাইট’ সিরিজের এই কমোডটিতে একটি স্বয়ংক্রিয় পরিষ্কার যন্ত্র রয়েছে। কমোডে বসলেই স্বয়ংক্রিয়ভাবে কমোডটি হালকা গরম থাকবে, দুর্গন্ধরোধী একটি পদার্থ নিঃসরিত হবে, সুগন্ধ বের হবে।এবার আপনি যদি ফ্লাশ করতে চান তাহলে রিমোট কন্ট্রোলে দুটো অপশন আছে।
রিয়ার ওয়াশ বাটনে চাপলে আপনার পশ্চাৎদেশ ধুঁয়ে দেবে। আর ফ্রন্ট ওয়াশ বাটনে চাপলে সামনের অংশ পরিষ্কার করে দেবে। এই বাটনটাকে মাঝে মাঝে ‘ল্যাডিজ ওয়াশ’ও বলা হয়। পেছনের যে দ-টি আপনার পশ্চাৎদেশ পরিষ্কার করবে তার পানিপ্রবাহের গতিবেগও আপনি নিয়ন্ত্রণ করতে পারবেন। এমনকি পানির তাপমাত্রাও নির্ধারণ করে দিতে পারবেন। তারপর আপনার ভেজা অংশকে গরম হাওয়া দিয়ে শুকিয়ে ফেলতে পারবেন। এবং এই কমোডটি খুবই স্বাস্থ্যসম্মত।
ফ্লাশ দেওয়ার পর ইলেকট্রোলাইট কমোডের সকল ব্যাকটেরিয়াকে নির্মূল করে ফেলে। এবং সেখানে কিছু অতিবেগুনি রশ্মি (ইউভি) নিঃসরিত হয় যা বিভিন্ন জীবাণুকে মেরে ফেলে। জাপানি সেই কোম্পানি ২০০৯ সালে লন্ডনে তাদের বিক্রয়কেন্দ্র খুলে। হাই টেক বিভিন্ন মডেলের কমোড বিত্তশালীদের আকৃষ্ট করছে। জাপানের অপর একটি কোম্পানি লিক্সিল স্যাটিস জি টাইপের একটি কমোড বানিয়েছে যেটাতে ব্লুটুথ সংযোগ রয়েছে। আপনার মোবাইল থেকে কমোডটি পরিচালনা করতে পারবেন। আপনার মল-মূত্রের প্রকৃতির বিভিন্ন তথ্য মোবাইল অ্যাপে সংরক্ষিত থাকবে। এটাকে নির্মাতা প্রতিষ্ঠান টয়লেট ডায়রি হিসেবে দেখছেন। টয়লেট ডায়রিতে আপনার মলমূত্রের গতিপ্রকৃতি ও শারীরিক অবস্থা মনিটর করা যাবে। বিভিন্ন হাসপাতালে এই কমোডটি ব্যবহার শুরু হয়েছে। এটার দাম তুলনামূলক কম। বাংলাদেশি টাকায় মাত্র চারলাখ টাকা।
ব্লুটুথ সংযোগের ফলে অনেকের মনে ভয় থাকতে পারে সেটা হ্যাকিং হবে কিনা? ব্যবহারকারীর গোপন সমস্যা প্রকাশ হয়ে যাবে কিনা। নির্মাতা প্রতিষ্ঠান আশ্বস্থ করে জানায় একটি নির্দিষ্ট মোবাইল ফোনের সাথেই সে ব্লুটুথ সংযোগটি থাকবে। এজন্য হ্যাকিংয়ের কোন ভয় নেই। সূত্র: বিবিসি

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ