উত্তরপ্রদেশে পরিযায়ী শ্রমিকদের উপর জীবাণুনাশক স্প্রে!

আপডেট: মার্চ ৩০, ২০২০, ৮:৩৫ অপরাহ্ণ

সোনার দেশ ডেস্ক


লকডাউনের জেরে সমস্যায় পড়েছেন দেশজুড়ে কর্মরত পরিযায়ী শ্রমিকেরা। নানা পদ্ধতিতে তারা নিজেদের পরিবারের কাছে ফিরে আসার জন্য উন্মুখ হয়ে রয়েছেন এই সময়ে এক নয়া ছবি দেখা গেল উত্তরপ্রদেশের বরেলিতে। শ্রমিকদের বরেলির রাস্তায় বসিয়ে তাদের শরীরে জীবাণুমুক্ত করার জেট স্প্রে দিয়ে রাসায়ণিক স্প্রে করা হচ্ছে। আর এই ছবি ভাইরাল হতেই যোগী সরকারের বিরুদ্ধে সমালোচনায় সরব হয়েছেন সকলে।
লখনউ থেকে ২৭০ কিলোমিটার দূরে অবস্থিত এই বরেলি শহর। সোশ্যাল মিডিয়ায় প্রকাশিত হওয়া একটি ভিডিওয় দেখা যায় বরেলির রাস্তায় সার দিয়ে বসে পরিযায়ী শ্রমিকেরা। ভিন রাজ্য থেকে তারা ফিরছেন নিজেদের গ্রামে। বাড়ি ফেরার আগেই ব্যাগ শুদ্ধ রাস্তায় বসিয়ে তাদের গায়ে স্প্রে করা হচ্ছে জীবানুনাশক জেট স্প্রে। এই স্প্রে সাধারণত রাস্তা, বাস, ট্রেন ও হাসপাতালগুলিতে ব্যবহার করা হয় জীবাণুমুক্ত করার জন্য। তবে মানুষের গায়ে সেই স্প্রে করায় যোগী সরকারের অমানবিক আচরণ নিয়ে প্রশ্ন জাগে রাজনৈতিক মহলে। এই ঘটনার তীব্র সমালোচনা করেন কংগ্রেস নেত্রী প্রিয়াঙ্কা গান্ধী। ভিডিওটিতে শোনা যায়, এক পুলিশ আধিকারিক চিৎকার করে তাদের সতর্ক করছেন,”চোখ বন্ধ করুন, বাচ্চাদের চোখ বন্ধ করে দিন।”
সমস্যার বিষয় হল এই পরিযায়ী শ্রমিকদের দলে রয়েছেন মহিলা ও শিশুরা। কোনও কারণে এই স্প্রে থেকে অন্য কোনও সমস্যা দেখা দিলে বা অন্য কোনও রোগ দেখা দিলে নতুন করে জেরবার হতে হবে চিকিৎসকদের। এছাড়াও জীবাণুমুক্ত করণের অনেক উপায় থাকা সত্ত্বেও পরিযায়ী শ্রমিকদের উপর এই স্প্রে করাটা একেবারেই নজিরবিহীন ঘটনা। জানা যায়,এই শ্রমিকদের ফিরিয়ে আনতে একটি বিশেষ বাসের ব্যবস্থা করা হয়। সেই বাস থেকে তাদের নামিয়েই রাস্তায় বসিয়ে চলছে জীবানুমুক্ত করণের কাজ। আর অবাক দৃষ্টিতে সেই জীবাণুমুক্তকরণের প্রক্রিয়া দেখছেন বেশ কিছু তথাকথিত শিক্ষিত পুলিশ আধিকারিকরা। এই ভিডিওটি টুইট করে যোগী সরকারের সমালোচনায় সরব হয়েছেন কংগ্রেস নেত্রী প্রিয়াঙ্কা গান্ধী। তিনি টুইটে আবেদন করেন,”আমি উত্তরপ্রদেশের সরকারের কাছে আর্জি জানাচ্ছি,আমরা সকলেই একসঙ্গে এই সঙ্কটের মোকাবিলা করছি। দয়া করে এমন অমানবিক কাজ করবেন না। এই শ্রমিকরা ইতিমধ্যেই অত্যন্ত ভোগান্তির মধ্যে দিয়ে গিয়েছেন। ওঁদের উপরে এভাবে রাসায়নিক স্প্রে করবেন না। এটা ওঁদের রক্ষা করবে না। বরং ওঁদের স্বাস্থ্যেরই ক্ষতি হবে।”
উত্তরপ্রদেশের এক সরকারি কর্মী অবশ্য জানিয়েছেন, এতে তাঁরা অমানবিকতার কিছু দেখছেন না। তিনি বলেন,”আমরা অমানবিক হতে চাই না। সকলকে স্যানিটাইজ করাটা অত্যন্ত জরুরি। এবং ওখানে ভিড় ছিল। সুতরাং যেটা ঠিক মনে হয়েছে, সেটাই আমরা করেছি।” তিনি আরও দাবি করেন,”অভিবাসীদের উপর ক্লোরিন ও জল মিশিয়ে স্প্রে করা হয়েছে। কোনও রাসায়নিক দ্রবণ নয়। ওদের যাতে কোনও ক্ষতি না হয় তাই আমরা প্রথমেই ওঁদের চোখ বন্ধ করে নিতে বলেছিলাম।”
তথ্যসূত্র: সংবাদ প্রতিদিন

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ