উন্নয়ন বঞ্চিত একডালা ইউনিয়নকে ডিজিটাল ইউনিয়নে পরিণত করতে চান স্বতন্ত্র প্রার্থী রুহুল আমীন

আপডেট: অক্টোবর ২৪, ২০২১, ৪:৫৬ অপরাহ্ণ


নওগাঁ প্রতিনিধি:


আগামী ১১নভেম্বর দ্বিতীয় ধাপে অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে নওগাঁর রাণীনগর উপজেলার ৭নং একডালা ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন। এই নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে মাঠ চষে বেড়াচ্ছেন সকল মহলের সমাদৃত বিশেষ করে যুব সমাজের আইকন মো. রুহুল আমীন।
এই নির্বাচনকে সামনে রেখে ভোট প্রার্থনা আর গণসংযোগে ব্যস্ত সময় পার করছেন রুহুল আমীন। প্রতিদিনই তিনি ইউনিয়নের প্রতিটি গ্রাম, পাড়া ও মহল্লা চষে বেড়াচ্ছেন। তারই ধারাবাহিকতায় শনিবার বিকেলে ঐতিহ্যবাহী আবাদুপুকর হাটের চারমাথায় গণসংযোগ, ভোটারদের কাছে ভোট ও দোয়া প্রার্থনা করেন তিনি।

এসময় রুহুল আমীন বলেন একডালা ইউনিয়নবাসী অবহেলিত ও উন্নয়ন বঞ্চিত। বর্তমান সরকারের ডিজিটাল উন্নয়নের কোনো ছোঁয়াই এই এলাকার মানুষকে স্পর্শ করেনি। আমি এই অবহেলিত ও উন্নয়ন বঞ্চিত মানুষের পাশে পরিবর্তনের সুখবর নিয়ে পাশে দাড়াতে চাই। ইউনিয়নবাসী বিগত সময়ে আমাকে যে ভালোবাসা দিয়ে আপনজনের বন্ধনে আবদ্ধ করেছে, তারা যে স্বপ্ন দেখেছে তাদের আশা আর স্বপ্নকে বাস্তবায়ন করতেই এই নির্বাচনে অংশ নেয়া। তাই তাদের পছন্দের প্রার্থী হিসেবে সাধারন মানুষদের চাওয়া পূরন করতেই আমার এই যুদ্ধের মাঠে নামা।

আমি শত বাধা আর বিপত্তিকে মাথা পেতে নিয়েছি। একডালাবাসীর স্বপ্ন পূরন করতে যদি আমার জীবন উৎসর্গ করতে হয় তুবও আমি নির্বাচনের মাঠে আছি, শেষ পর্যন্ত থাকবো ইনশাআল্লাহ। আমি বিশ্বাস করি সাধারন মানুষের ভালোবাসায় বিপুল ভোটে জয়ী হয়ে চেয়ারম্যান নির্বাচিত হবো। আমি চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়ে জননেত্রী শেখ হাসিনার অঙ্গিকার শহরের সকল সুবিধা আমার ইউনিয়নের প্রতিটি ঘরে ঘরে পৌছে দিতে চাই। এই ইউনিয়নকে নিয়ে আমার দেখা স্বপ্নগুলোর কিছু পরিকল্পনা আমি আমার নির্বাচনী ইশতেহারে প্রকাশ করেছি।

আমি একডালাবাসীকে সঙ্গে নিয়ে হাজার বছরের শ্রেষ্ঠ বাঙ্গালী বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্বপ্নের বাংলাদেশের অংশ হিসেবে এই ইউনিয়নকে দেশের মধ্যে একটি অন্যতম মডেল ইউনিয়নে পরিণত করতে চাই। আমি শতভাগ আশাবাদি যদি সাধারন মানুষরা নির্বিঘ্নে শান্তিপূর্ন পরিবেশে কেন্দ্রে গিয়ে ভোট দিতে পারেন তাহলে আল্লাহর রহমতে ও সাধারন মানুষদের ভালোবাসা, দোয়া আর আর্শিবাদে আমি বিপুল ভোটে চেয়ারম্যান নির্বাচিত হবো ইনশাল্লাহ। এই ইউনিয়ন পরিষদ ৩৯টি গ্রাম নিয়ে গঠিত। মোট ভোটার হচ্ছে ২২হাজার ৩৭৮জন। এর মধ্যে পুরুষ ভোটার ১১ হাজার ২৬৯জন এবং নারী ভোটার ১১ হাজার ১০৯ জন।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ