উপেক্ষিত প্রধানমন্ত্রীর প্রতিশ্রুতি চাঁপাইনবাবগঞ্জ-ঢাকা রুটে আন্তঃনগর ট্রেন চালুতে রেলওয়ের টালবাহানা

আপডেট: মার্চ ৩১, ২০১৭, ১২:৪২ পূর্বাহ্ণ

চাঁপাইনবাবগঞ্জ অফিস


প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার প্রতিশ্রুত চাঁপাইনবাবগঞ্জ-ঢাকা রুটে আন্তঃনগর ট্রেন সার্ভিস চালুতে টালবাহানা শুরু করেছে রেল কর্তৃপক্ষ। কবে নাগাদ এই রুটে সরাসরি আন্তঃনগর ট্রেন চলবে এ ব্যাপারে কোন সুখবর দিতে পারেন নি বাংলাদেশ রেলওয়ে পশ্চিমাঞ্চলের মহাব্যবস্থাপক। ফলে খুব শিগরিই চালু হচ্ছে না প্রধানমন্ত্রীর প্রতিশ্রুত এই ট্রেন সার্ভিস।
এদিকে চাঁপাইনবাবগঞ্জ-ঢাকা রুটে আন্তঃনগর ট্রেন চালুর ক্ষেত্রে নতুন নতুন অজুহাত তুলে প্রতিবন্ধকতার সৃষ্টি করা হচ্ছে বলে ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন স্থানীয় সাংসদ আবদুল ওদুদ। প্রধানমন্ত্রীর প্রতিশ্রুতি বাস্তবায়িত না হলে আগামী সংসদ নির্বাচনে এর প্রভাব পড়তে পারে বলে মনে করছেন তিনি।
রাজধানী ঢাকার সঙ্গে সহজ যোগাযোগের জন্য চাঁপাইনবাবগঞ্জ থেকে আন্তঃনগর ট্রেন চালুর বিষয়টি জেলাবাসীর প্রাণের দাবি। এ দাবি আদায়ের লক্ষ্যে দীর্ঘদিন ধরে বিক্ষোভ মিছিল, সভা-সমাবেশ, মানববন্ধন, রেলস্টেশন ঘেরাওসহ নানা কর্মসূচি পালন করে আসছে বিভিন্ন সংগঠন। ২০১১ সালের ২৩ এপ্রিল চাঁপাইনবাবগঞ্জ সফরে এসে স্থানীয় দাবির পরিপ্রেক্ষিতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা চাঁপাইনবাবগঞ্জ থেকে ঢাকা রুটে সরাসরি আন্তঃনগর ট্রেন সার্ভিস চালুর প্রতিশ্রুতি দেন। প্রধানমন্ত্রীর দেয়া প্রতিশ্রুতির একবছরের মাথায় ২০১২ সালের ১ ফেব্রুয়ারি চাঁপাইনবাবগঞ্জ-রাজশাহী রুটে আনুষ্ঠানিকভাবে চালু করা হয় কমিউনিটি ট্রেন সার্ভিস। তৎকালীন রেলমন্ত্রী সদ্য প্রয়াত সুরঞ্জিত সেনগুপ্ত এই ট্রেনের উদ্বোধন করেন। উদ্বোধনের দিন থেকেই কমিউনিটি ট্রেনটি রাজশাহী থেকে ঢাকার উদ্দেশ্যে ছেড়ে যাওয়া পদ্মা আন্তঃনগর ট্রেনের সংযোগ ট্রেন হিসেবে ব্যবহৃত হচ্ছে। চাঁপাইনবাবগঞ্জ রেলওয়ে স্টেশনে টিকিট কাটা যাত্রীরা এই ট্রেনে রাজশাহী গিয়ে আন্তঃনগর পদ্মা এক্সপ্রেসে করে ঢাকা যাচ্ছেন। কিন্তু চাঁপাইনবাবগঞ্জ-ঢাকা রুটে সরাসরি আন্তঃনগর ট্রেন সার্ভিস চালুর ব্যাপারে প্রধানমন্ত্রীর দেয়া ঘোষণা ৬ বছরেও বাস্তবায়ন করতে পারে নি রেল বিভাগ।
রেলওয়ের পক্ষ থেকে এতোদিন বলা হচ্ছিলো, চাঁপাইনবাবগঞ্জ-ঢাকা রুটে সরাসরি আন্তঃনগর ট্রেন চালুর ক্ষেত্রে বড় বাঁধা আমনুরা রেল জংশন। এছাড়া ট্রেনের রক্ষণাবেক্ষণ ও ধোয়ামোছার জন্য একটি ওয়াসপিট নির্মাণ করা দরকার। চাঁপাইনবাবগঞ্জ থেকে চলাচলকারী ট্রেনগুলোকে বর্তমানে আমনুরা রেল জংশনে ইঞ্জিন ঘুরিয়ে রাজশাহী রুটে চলাচল করতে হয়। ফলে রেল চলাচলে দেড় থেকে দুই ঘণ্টা অতিরিক্ত সময় ব্যয় হয়। সেই বাঁধা কাটাতে আমনুরা রেল জংশনের প্রায় দেড় কিলোমিটার পশ্চিমে পাবনার ইশ্বরদী বাইপাসের আদলে দুই কিলোমিটার বাইপাস রেলপথ নির্মাণ করছে রেল কর্তৃপক্ষ। প্রকল্পের আওতায় দুই কিলোমিটার নতুন রেলপথ নির্মাণের পাশাপাশি আমনুরা বাইপাস রেল স্টেশন নামে একটি নতুন স্টেশন ভবনও নির্মাণ করা হচ্ছে। ২১ কোটি ১৪ লাখ ৭১ হাজার টাকা ব্যয়ে ‘আমনুরা বাইপাস রেল লাইন নির্মাণ’ প্রকল্প নামে এই প্রকল্পের প্রায় ৮০ শতাংশ কাজ এরই মধ্যে শেষ হয়েছে। প্রকল্পের মেয়াদ রয়েছে আগামী জুন পর্যন্ত।
গতকাল বৃহস্পতিবার প্রকল্প এলাকা ঘুরে দেখা গেছে, দ্রুত গতিতে এগিয়ে চলছে প্রকল্পের কাজ। এরই মধ্যে রেল লাইনের বেড তৈরি ও কালভার্ট নির্মাণের কাজ শেষ হয়েছে। রেল স্টেশন ভবন নির্মাণের কাজও শেষ পর্যায়ে। ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান ম্যাক্স ইনফ্রাস্টাকচার লিমিটেডের প্রকৌশলী মশিউর রহমান জানান, রেল লাইন বসানো হলেই শেষ হবে এই প্রকল্পের কাজ।
বাংলাদেশ রেলওয়ের (পশ্চিমাঞ্চল) প্রধান প্রকৌশলী রমজান আলী জানান, নির্ধারিত সময়ের আগেই ‘আমনুরা বাইপাস রেল লাইন নির্মাণ’ প্রকল্পের কাজ শেষ হবে।
কিন্তু অনুসন্ধানে জানা গেছে, প্রতিক্ষিত আমনুরা বাইপাসের কাজ শেষ হলেও খুব শিগরিই চালু হচ্ছে না আন্তঃনগর ট্রেন সার্ভিস। পর্যাপ্ত ইঞ্জিন ও কোচ না থাকার অজুহাত তুলে আটকে দেয়া হয়েছে চাঁপাইনবাবগঞ্জ থেকে আন্তঃনগর ট্রেন চালুর প্রক্রিয়াকে। এছাড়া ট্রেনের রক্ষণাবেক্ষণ ও ধোয়ামোছার জন্য চাঁপাইনবাবগঞ্জে একটি ওয়াসপিট নির্মাণের ব্যাপারেও এখনো কোন উদ্যোগ নেয়া হয় নি।
বিষয়টি নিয়ে বাংলাদেশ রেলওয়ের (পশ্চিমাঞ্চল) মহাব্যবস্থাপক খাইরুল আলমের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান, শুধু আমনুরা বাইপাস রেলপথের কাজ শেষ হলেই হবে না, রেলওয়েতে এখনো ইঞ্জিন ও বগির সঙ্কট রয়েছে। এছাড়া চাঁপাইনবাবগঞ্জ থেকে আন্তঃনগর ট্রেন চালুর বিষয়টি মন্ত্রণালয়ের সিদ্ধান্তের উপর নির্ভর করছে।
তিনি আরো বলেন, আগামী জুন-জুলাই মাসে নতুন কিছু ইঞ্জিন ও বগি রেলবহরে যোগ হবে। তারপরেই এ ব্যাপারে সিদ্ধান্ত হতে পারে। ওয়াসপিট নির্মাণের বিষয়টি খুব একটা বড় সমস্যা নয় উল্লেখ করে তিনি বলেন, রেল মন্ত্রণালয় এ ব্যাপারে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত গ্রহণ করলে ছোটখাটো সমস্যাগুলো দ্রুত সমাধান করে চাঁপাইনবাবগঞ্জে আন্তঃনগর ট্রেন চালু করা সম্ভব।
চাঁপাইনবাবগঞ্জ সদর আসনের সাংসদ ও জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আবদুল ওদুদ ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, অনেক আগেই চাঁপাইনবাবগঞ্জ থেকে আন্তঃনগর ট্রেন চালু হওয়া দরকার ছিল। কিন্তু আমলাতান্ত্রিক জটিলতার কারণে তা আটকে আছে। কতিপয় কর্মকর্তার জন্য প্রধানমন্ত্রীর প্রতিশ্রুত প্রকল্পগুলো বাধাগ্রস্ত হচ্ছে বলে অভিযোগ করেন তিনি। তিনি দায়ী কর্মকর্তাদের চিহ্নিত করে দ্রুত চাঁপাইনবাবগঞ্জ থেকে আন্তঃনগর ট্রেন চালুর তাগিদ দেন।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ