একক চিন নীতি বদলাতে পারেন ডোনাল্ড ট্রাম্প

আপডেট: ডিসেম্বর ১৩, ২০১৬, ১২:০৪ পূর্বাহ্ণ

সোনার দেশ ডেস্ক



ডোনাল্ড ট্রাম্প বলেছেন একক চিন নীতি মানতে যুক্তরাষ্ট্রের বাধ্য থাকা উচিত নয়।
তাইওয়ানকে উপেক্ষা করে যুক্তরাষ্ট্রের একক চিন নীতি থাকা উচিত কিনা সে নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন যুক্তরাষ্ট্রের নব নির্বাচিত প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প।
তাইওয়ানকে বিচ্ছিন্ন হয়ে যাওয়া একটি প্রদেশ বলে মনে করে চিন। চিনের নীতিমালায় তাইওয়ান এখনো তার নিজের মুল ভূখ-েরই অংশ। কিন্তু এক টেলিভিশন সাক্ষাতকারে মি. ট্রাম্প বলেছেন একক চিন নীতি মানতে যুক্তরাষ্ট্রের বাধ্য থাকা উচিত নয়।
তিনি বলেন চিনের কাছ থেকে কোন ধরনের বাণিজ্যিক ছাড় না পেলে এ নীতির গ্রহণযোগ্যতা নেই।  কদিন আগে তাইওয়ানের প্রেসিডেন্টের সাথে মিস্টার ট্রাম্প টেলিফোনে আলাপ করেছিলেন।  আর শুধু এই ফোনালাপেই কূটনৈতিক প্রতিবাদ করেছিলো বেইজিং।
মি ট্রাম্প অবশ্য এ সম্পর্কে বলেছেন তিনি কার সাথে ফোনে কথা বলবেন সেটা চিন নির্ধারণ করে দিতে পারে না। এখন তাইওয়ানকে আবারো আলাদা একটি রাষ্ট্র হিসেবে মার্কিন সরকার যদি স্বীকৃতি দিয়ে বসে তাতে চিনের দিকে থেকে কেমন প্রতিক্রিয়া হবে সেনিয়ে আশংকা তৈরি হয়েছে। ১৯৭৯ সালে তাইওয়ানের সাথে কূটনৈতিক সম্পর্ক ছিন্ন করে যুক্তরাষ্ট্র। এর বদলে তাইওয়ানকে চিনের অংশ হিসেবে ধরেই একক চিন নিতিমালা অনুসরণ করছিলো যুক্তরাষ্ট্র।- বিবিসি বাংলা

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ