একুশে পদকের জন্য প্রস্তাব আহ্বান

আপডেট: জুলাই ১৩, ২০১৭, ১:০০ পূর্বাহ্ণ

সোনার দেশ ডেস্ক


একুশে পদক প্রদান সংক্রান্ত নীতিমালা অনুযায়ী অন্যান্য বছরের মতো ২০১৮ সালেও একুশে পদক দিতে উদ্যোগ নিয়েছে সরকার।
বুধবার সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়েছে।
এতে বলা হয়েছে, এজন্য ভাষা আন্দোলন, শিল্পকলা (সংগীত, নৃত্য, অভিনয়, চারুকলাসহ সকল ক্ষেত্রে), মুক্তিযুদ্ধ, সাংবাদিকতা, গবেষণা, শিক্ষা, বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি, অর্থনীতি, সমাজসেবা, রাজনীতি, ভাষা ও সাহিত্যসহ সরকারের তরফ থেকে নির্ধারিত অন্য কোনো ক্ষেত্রে প্রশংসনীয় ও গৌরবোজ্জ্বল অবদানের স্বীকৃতিস্বরূপ ব্যক্তি (জীবিত/মৃত), গোষ্ঠী, প্রতিষ্ঠান ও সংস্থার জন্য মনোনয়ন বা প্রস্তাব আহ্বান করেছে সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রণালয়।
সরকারের সব মন্ত্রণালয় ও বিভাগ, সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের আওতাধীন দপ্তর বা সংস্থা, পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ, জেলা প্রশাসন এবং স্বাধীনতা পদক ও একুশে পদকে ভূষিত সুধীদের আগামী ২ অক্টোবরের মধ্যে এ মনোনয়ন বা প্রস্তাব সংস্কৃতি মন্ত্রণালয়ে পাঠানোর অনুরোধ করা হয়েছে।
বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, এ সংক্রান্ত যাবতীয় তথ্যাবলি, একুশে পদক নীতিমালা এবং মনোনয়ন প্রস্তাবের ফরম সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রণালয় (িি.িসড়পধ.মড়া.নফ) ও তথ্য মন্ত্রণালয়ের (িি.িসড়র.মড়া.নফ) ওয়েবসাইটে পাওয়া যাবে।
প্রসঙ্গত, একুশে পদক বাংলাদেশের একটি জাতীয় এবং সর্বোচ্চ বেসামরিক পুরস্কার। বাংলাদেশের বিশিষ্ট ভাষাসৈনিক, ভাষাবিদ, সাহিত্যিক, শিল্পী, শিক্ষাবিদ, গবেষক, সাংবাদিক, অর্থনীতিবিদ, দারিদ্র্য বিমোচনে অবদানকারী, সামাজিক ব্যক্তিত্ব ও প্রতিষ্ঠানকে জাতীয় পর্যায়ে অনন্য অবদানের স্বীকৃতি প্রদানের উদ্দেশে ১৯৭৬ সাল থেকে একুশে পদক প্রদান করা হচ্ছে। ভাষা আন্দোলনের শহীদদের স্মরণে ১৯৭৬ সালে এই পদকের প্রচলন করা হয়। তথ্যসূত্র: রাইজিংবিডি