এক পাতিলেই ১৯৯৫ কেজি খিচুড়ি বানিয়ে বিশ্বরেকর্ড

আপডেট: জানুয়ারি ২৬, ২০২০, ১২:০৯ পূর্বাহ্ণ

সোনার দেশ ডেস্ক


১৯৯৫ কেজি খিচুড়ি রান্না হয়েছে এই পাতিলে-সংগৃহীত

ভারতের প্রাকৃতিক সৌন্দর্যমণ্ডিত হিমাচল প্রদেশ অবস্থিত হিমালয় পর্বতের পাশে। একটি পাতিলেই একসঙ্গে ১ হাজার ৯৯৫ কেজি খিচুড়ি তৈরি করে রাজ্যটি জায়গা পেলো গিনেস বুক অব ওয়ার্ল্ড রেকর্ডসে।
সম্প্রতি মকর সংক্রান্তিতে হিমাচল প্রদেশের মান্ডি জেলার তাত্তাপানি গ্রামে বানানো হয় এত বিপুল পরিমাণ খিচুড়ি। এর দায়িত্বে ছিল হিমাচল প্রদেশ পর্যটন বিভাগের ২৫ শেফের একটি দল। এজন্য তাদের লেগেছে ৫ ঘণ্টা।
এ প্রসঙ্গে প্রধান শেফ নন্দলাল শর্মা জানান, তারা আগের রেকর্ড ভাঙতে পেরে আনন্দিত। ৪০৫ কেজি চাল, ১৯০ কেজি ডাল, ৯০ কেজি ঘি, ৫৫ কেজি মরিচ ও ১ হাজার ১০০ লিটার পানি দিয়ে রান্না করেছেন তারা। এর আগে একটি পাতিলেই একসঙ্গে ৯১৮ কেজি ৮০০ গ্রাম খিচুড়ি তৈরি হয়েছিল।
গিনেস ওয়ার্ল্ড রেকর্ডসের অফিসিয়াল বিচারক ঋষি নাথ ঘোষণা করেন, হিমাচল প্রদেশ একটি পাতিলেই ১৯৯৫ কেজি খিচুড়ি রান্না করে বিশ্বরেকর্ড গড়েছে।
হিমাচল প্রদেশের পর্যটন ও বেসামরিক বিমান পরিবহন বিভাগের পরিচালক ইউনুস খান জানান, রেকর্ডটি গড়তে ও বিশ্ব পর্যটনের মানচিত্রে তাত্তাপানিকে তুলে ধরতে অনেক পরিকল্পনা করেছিলেন তারা। এ কাজে তাদের সহযোগিতা করেছে সিমলার দুর্গা দেবী বিহারি লাল চ্যারিটেবল ট্রাস্ট।
জানা গেছে, যে পাতিলে প্রায় দুই হাজার কেজি খিচুড়ি রান্না করা হলো সেটি আনা হয়েছে হরিয়ানার জাগাধারি থেকে। এটি লম্বায় ৫ ফুট ৫ ইঞ্চি, এর পরিধি ৭ ফুট।
হিমাচল প্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী জয়রাম ঠাকুর জানান, তাত্তাপানিতে রেকর্ডের জন্ম হয়েছে। খিচুড়ি রান্নায় নিয়োজিত শেফদের সম্মাননা দেবে রাজ্য সরকার।
জেলা পর্যায়ের মকর সংক্রান্তি মেলায় মুখ্যমন্ত্রী আরও উল্লেখ করেন, এই অঞ্চলে ই-টয়লেট সুবিধা ও আধুনিক ক্যাফেটেরিয়া গড়ে তোলা হবে। এছাড়া জলক্রীড়ার প্রাণকেন্দ্র হিসেবে পরিণত করার উন্নয়নমূলক কাজে সাড়ে ৩ কোটি রুপি বরাদ্দ পাবে তাত্তাপানি। তথ্যসূত্র: টাইমস অব ইন্ডিয়া