এক বছর নিষিদ্ধ ইরফান

আপডেট: মার্চ ৩০, ২০১৭, ১২:১৬ পূর্বাহ্ণ

সোনার দেশ ডেস্ক



(পিএসএল) স্পট ফিক্সিংয়ের ঘটনায় ক্রিকেট থেকে সাময়িকভাবে নিষিদ্ধ হয়েছিলেন পাকিস্তানি পেসার মোহাম্মদ ইরফান। তাঁর বিরুদ্ধে অভিযোগ ছিল বাজিকরেরা অনৈতিক প্রস্তাব দিলেও যথাযথ কর্তৃপক্ষের কাছে সেটি তুলে ধরেন নি। দোষ স্বীকার করায় ইরফানকে এক বছরের জন্য সব ধরনের ক্রিকেট থেকে নিষিদ্ধ করেছে পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ড (পিসিবি)।
দুর্নীতিবিরোধী আইনের নিয়ম হলো, কেউ অন্যায় প্রস্তাব পেলে যত দ্রুত সম্ভব তা কর্তৃপক্ষকে জানাতে হবে। ইরফান করেন নি। না জানানোর কারণ হিসেবে বাবা-মায়ের মৃত্যু ও এর ফলে মানসিকভাবে নিজের ভেঙে পড়ার কথা বলেছিলেন। পাকিস্তানি এই ফাস্ট বোলারের মুক্তি মিলল না। দুর্নীতিবিরোধী নিয়ম হলো, কেউ কোনো অন্যায় প্রস্তাব পেলে নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যেই কর্তৃপক্ষকে জানাতে হবে। এই না জানানোও অপরাধের পর্যায়ে পড়ে।
স্পট ফিক্সিং কেলেঙ্কারি শুরুতেই ঝড় তুলেছিল এবারের পিএসএলে। আন্তর্জাতিক বাজিকর সিন্ডিকেটের সঙ্গে জড়িত এমন একজন ব্যক্তির সঙ্গে সম্পর্ক রাখায় ইসলামাবাদ ইউনাইটেডের দুই ক্রিকেটার শারজিল খান ও খালিদ লতিফকে দুবাই থেকে দেশে ফেরত পাঠান হয়। পরে ওই ঘটনা তদন্ত করে এই দুজনকে ক্রিকেট থেকে সাময়িক নির্বাসনে পাঠানো হয়। পাকিস্তানি ওপেনার নাসির জামশেদকে গ্রেফতার করে যুক্তরাজ্য পুলিশ। পরে অবশ্য তাঁকে এপ্রিল পর্যন্ত জামিন দেয়া হয়। প্রথমে এক ম্যাচের জন্য বসিয়ে দেওয়া হলেও শেষ পর্যন্ত পুরো পিসএলই অবশ্য খেলেছিলেন ইরফান।
২০১০ সালে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে অভিষেক ঘটে ৭ ফুট ১ ইঞ্চি লম্বা এই ফাস্ট বোলারের। ক্রিকেট ইতিহাসেই সবচেয়ে দীর্ঘদেহী ক্রিকেটার হিসেবে আলোচিত ছিলেন। পাকিস্তানের হয়ে ৪টি টেস্ট খেলেছেন। খেলেছেন ৬০ ওয়ানডে আর ২০ আন্তর্জাতিক টি-টোয়েন্টি ম্যাচ। সূত্র: এএফপি,প্রথম আলো অনলাইন।