এক ম্যাচের দাম ৮ হাজার ৮০০ কোটি টাকা!

আপডেট: ডিসেম্বর ২, ২০১৬, ১১:৪১ অপরাহ্ণ

সোনার দেশ ডেস্ক



রিয়াল-বার্সা ম্যাচ মানেই মাঠের বাইরে উত্তেজনার ছড়াছড়ি আর মাঠে আগুনে লড়াই। এল ক্লাসিকো এলে এর পাশাপাশি চায়ের টেবিলে ঝড় ওঠে দুই দলের খেলোয়াড়দের দাম নিয়েও। সেই বিবেচনায় এবারের দ্বৈরথটিকে বলা যায় বিলিয়ন ইউরোর ম্যাচ।
রিয়াল-বার্সার স্কোয়াডের মিলিত দাম ১০৪ কোটি ৯০ লাখ ইউরো। বাংলাদেশের মুদ্রায় যেটা প্রায় ৮ হাজার ৮০০ কোটি টাকা।
স্কোয়াড গড়তে খরচ করার দিক দিয়ে বার্সার চেয়ে রিয়ালই এগিয়ে। গত কয়েক বছরে খেলোয়াড় কিনতে ৬১৩.৪ মিলিয়ন ইউরো ব্যয় করেছে স্পেনের সফলতম ক্লাবটি।
পর্তুগালের তারকা ফরোয়ার্ড ক্রিস্টিয়ানো রোনালদোকে ২০০৯ সালে ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড থেকে দলে ভেড়াতে ৯৪ মিলিয়ন ইউরো খরচ করেছিল রিয়াল। টটেনহাম থেকে গ্যারেথ বেলকে দলে টানে ৯১ মিলিয়ন ইউরোতে। আর হামেস রদ্রিগেজকে কিনতে খরচ করেছে ৮০ মিলিয়ন ইউরো।
এই দলে আরো ১০ জন খেলোয়াড় আছে, যাদের জন্য ২০ থেকে ৪০ মিলিয়ন ইউরো করে ব্যয় করেছে রিয়াল। টনি ক্রুস, লুকা মডরিচ, করিম বেনজেমা, সার্জিও রামোস আর পেপেÍ১০ জনের মধ্যে এই পাঁচজন ফিট থাকলে শুরুর একাদশে জায়গা পাকা থাকে। অন্য পাঁচজন দানিলো, ইসকো, মাতেও কোভাচিচ, আলভারো মোরাতা আর ফাবিও কোয়েন্ত্রাও ব্যাক-আপ হিসেবে যথেষ্ট ভালো।
বাকিদের মধ্যে কেইলর নাভাস (১০ মিলিয়ন ইউরো), দানি কারভাহাল (৬.৫ মিলিয়ন ইউরো) আর কাসেমিরোরাও (৯ মিলিয়ন ইউরো) নিজের মূল্যের প্রতি সুবিচার করে পারফরম্যান্স করে যাচ্ছেন। রিয়ালের একাডেমির খেলোয়াড় নাচোও নিজেকে জিনেদিন জিদানের দলের জন্য বেশ কার্যকরী বলে প্রমাণ করেছেন।
বার্সেলোনার স্কোয়াডের বড় অংশের জোগান আসে তাদের বিখ্যাত যুব একাডেমি থেকে। দামের দিক দিয়ে সর্বকালের রেকর্ড নিশ্চিতভাবে ভেঙে দিতেন যে খেলোয়াড়টি, এক অর্থে তাঁকে কিনতেই হয়নি বার্সাকে। মেসির দাম ২০০ মিলিয়ন ইউরোও উঠতে পারে বলে ধারণা করা হয়। যে মেসিকে শৈশবেই পেয়ে গিয়েছিল তারা। বুসকেটস, রবার্তো আর আন্দ্রেস ইনিয়েস্তাদের মূল্য কম হতো না। মাসিপ আর রাফিনহার একাডেমি থেকে উঠে এসেছেন।
তবে ইদানীং তারকা খেলোয়াড় কেনার পেছনে তারাও কম টাকা ঢালছে না। লুইস সুয়ারেস, নেইমার, ইভান রাকিতিচ, টের স্টেগেনদের কিনতে বিস্তর টাকা ঢালতে হয়েছে। সুয়ারেজের পেছনে ৮১ মিলিয়ন ইউরো, রাকিতিচ ১৮, টের স্টেগেনের জন্য ১২ মিলিয়ন ইউরো খরচ হয়েছে কাতালান ক্লাবটির। আরদা তুরান, অ্যালেক্স ভিদাল, সিলেসেন, উমতিতি, দিনিয়ে, ডেনিস সুয়ারেস আর আন্দ্রে গোমেসকে কিনতেও খরচ হয়েছে বেশ। নেইমারের অঙ্কটা যে কত, এ নিয়ে ধোঁয়াশা আছে। স্পেনের সংবাদমাধ্যমে আসা সবশেষ অঙ্কটা ধরলে যে দাম ৮৫.৪ মিলিয়ন ইউরো।
সব মিলিয়ে এই দুই দলের স্কোয়াডের দাম বিলিয়ন ইউরো। এর সঙ্গে স্পনসর, টিভি স্বত্ব, টিকিট ও কোচিং স্টাফদের দাম ধরলে সেই টাকার পরিমাণ কোন আকাশ ছোঁবে কে জানে! এমনিতে বিশ্বের সবচেয়ে দামি দুই ক্লাবের মধ্যে কিন্তু সব সময়ই থাকে তারা। তথ্যসূত্র: মার্কা,প্রথম আলো অনলাইন।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ