এবার স্কুলের পাঠ্যবইতেও ভারতের জায়গাকে নিজেদের বলে দেখাল নেপাল

আপডেট: September 18, 2020, 7:59 pm

সোনার দেশ ডেস্ক


কোনও ফাঁক রাখতে চাইছে না নেপাল। মানচিত্র নিয়ে বিতর্ক হয়েছে আগেই ভারতের কালাপানিকে নিজেদের বলে চিহ্নিত করেছে সেদেশের কমিউনিস্ট সরকার। এবার স্কুলের পাঠ্য বইতেও সেই মানচিত্রকেই মান্যতা দিল ওলি সরকার।
উত্তরাখণ্ডের পিথোরাগড়কে নিজেদের বলে দাবি করেছে নেপাল। এবার সেই পরিবর্তনই পাঠ্যবইতে অন্তর্ভুক্ত করে মান্যতা দেওয়া হল সেদেশে।
নেপালের শিক্ষামন্ত্রী গিরিরাজ মনি পোখারেল এই খবর নিশ্চিত করেছে ভারতীয় সংবাদমাধ্যমে। নেপালের ভূখণ্ড সংক্রান্ত ওই বই সেদেশের উচ্চমাধ্যমিক স্তরের ছাত্রছাত্রীদের পাঠ্য। শিক্ষমন্ত্রী নিজেই প্রচ্ছদ লিখেছেন। আর সেখানে বিতর্কিত এলাকা কালাপানিকে নেপালের অংশ বলে চিহ্নিত করা হয়েছে।
এই বইতে নেপালের মোট ভূখণ্ড উল্লেখ করা হয়েছে ১,৪৭,৬৪১.২৮ স্কোয়্যার কিলোমিটার। এর মধ্যে শুধু কালাপানি এলাকা ৪৬০ স্কোয়্যার কিলোমিটার।
অন্যদিকে আবার নেপালের মন্ত্রিসভা অবুমোদন দিয়েছে যাতে সেদেশে নতুন ১ টাকা ও ২ টাকার কয়েন তৈরি করা হয় ও তাতে নতুন মানচিত্র থাকে। দশেরার দিক সেই কয়েন প্রকাশ করার কথাও জানানো হয়েছে।
গত কয়েক মাস ধরে নেপালের সঙ্গে ভারতের সম্পর্ক ক্রমশ অবনতির দিকে গিয়েছে। আর নেপালের নতুন মানচিত্রেই তার সূত্রপাত। ভারতের তিনটি জায়গা নিজেদের মানচিত্রে রেখে বিতর্কের মুখে পড়েছে নেপালের কমিউনিস্ট সরকার। এবার সেই মানচিত্রই ভারতে পাঠানোর সিদ্ধান্তও নিয়েছে নেপাল।
শুধু ভারতেই নয়, গুগলে ও ইন্টারন্যাশনাল কমিউনিটির কাছেও ওই মানচিত্র পাঠানোর সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। নেপালের ওই পরিবর্তিত মানচিত্রে জায়গা পেয়েছে ভারতের লিপুলেখ, কালাপানি ও লিম্পিয়াধুরা।
স্থানীয় সংবাদমাধ্যমের রিপোর্ট অনুযায়ী, ইংরাজিতে ওই ম্যাপ ইতিমধ্যেই প্রকাশ করেছে নেপাল। ওই ম্যাপই পাঠানো হচ্ছে হচ্ছে রাষ্ট্রসংঘ ও গুগলের কাছে। যাতে ইন্টারনেটে ও বিশ্ব মানচিত্রে নেপালের ওই বিতর্কিত ম্যাপ সবাই হাতে পান।
তথ্যসূত্র: শড়ষশধঃধ২৪ী৭

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ