এভাবে বিয়ে করার অধিকার নেই দলিতদের! উত্তরাখণ্ডে ঘোড়া থেকে নামিয়ে দেওয়া হল বরকে

আপডেট: মে ৬, ২০২২, ৮:৩৭ অপরাহ্ণ

সোনার দেশ ডেস্ক:


ঘোড়ায় চড়ে বিয়ে করতে যাওয়ার সময় এক দলিত ব্যক্তিকে ঘোড়া থেকে নামিয়ে দেওয়ার অভিযোগ উঠল উত্তরাখণ্ডে। রাজ্যের আলমোরা জেলার এই ঘটনায় চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে। ইতোমধ্যেই তদন্তের নির্দেশ দিয়েছে জেলা প্রশাসন।

ঠিক কী হয়েছিল? জানা গিয়েছে, বিক্রম কুমার নামের এক যুবক বিয়ে করতে যাচ্ছিলেন। বরযাত্রীদের সঙ্গে আলো ঝলমলে সেই আসরে ঘোড়ার পিঠে বসেছিলেন তিনি। আচমকাই সেখানে হাজির হন স্থানীয় কিছু মানুষ। অভিযোগ, এরপরই জোর করে ওই যুবককে ঘোড়া থেকে নামিয়ে দেওয়া হয়। বলা হয়, যেহেতুও বিক্রম দলিত, তাই তিনি ঘোড়ায় চড়তে পারবেন না।

পুলিশে অভিযোগ দায়ের করেছেন বিক্রমের বাবা দর্শন লাল। তিনি তাঁর অভিযোগে জানিয়েছেন, উত্তেজিত গ্রামবাসী হুমকি দিয়েছিলেন যদি বিক্রম ঘোড়া থেকে না নামেন, তাহলে তাঁকে খুন করা হবে। এপ্রসঙ্গে আলমোরার জেলাশাসক বন্দনা সিং জানান, ”আমি সাব ডিভিশনাল ম্যাজিস্ট্রেটকে নির্দেশ দিয়েছি বিষয়টি তদন্ত করে দেখতে। যাঁরা এর সঙ্গে জড়িত তাঁদের কড়া শাস্তি দেওয়া হবে।”

ছেলের অপমান প্রসঙ্গে দর্শন লাল জানিয়েছেন, যদি দ্রুত কোনও পদক্ষেপ না করা হয়, তাহলে তিনি নিজে এই ঘটনার প্রতিবাদে আন্দোলন শুরু করবেন। তবে সব অভিযোগ উড়িয়ে দিচ্ছেন গ্রামপ্রধান। তাঁর কথায়, ”আমাদের গ্রামে ভূমিয়া দেবতার (স্থানীয় দেবতা) এক মন্দির রয়েছে। নিয়ম হল, এখান দিয়ে যাওয়ার সময় কেউই ঘোড়ার পিঠে চাপতে পারবেন না। এখানে জাতের কোনও ব্যাপার নেই। গ্রামবাসীরা ওই যুবককে অনুরোধ করেন ঘোড়ার থেকে নেমে হেঁটে যেতে। কিন্তু তিনি সেটা শোনেননি। কিছু মানুষ এই এলাকার শান্তিভঙ্গ করতে চাইছেন।”

শেষ পাওয়া খবরে জানা গিয়েছে, পরে পুলিশ ওই গ্রামে গিয়ে তদন্ত করেছে। বিক্রমের বাবার অভিযোগের ভিত্তিতে ৬ জন অভিযুক্তের বিরুদ্ধে এফআইআর দায়ের করা হয়েছে। তাঁদের বিরুদ্ধে ইচ্ছাকৃত অপমান, অপরাধমূলক আচরণ এবং তফসিলি জাতি-উপজাতির প্রতি দমনমূলক আচরণের অভিযোগ আনা হয়েছে।
তথ্যসূত্র: সংবাদ প্রতিদিন

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ