এসএসসি’র ফল প্রকাশ শিক্ষার্থীদের জন্য রইল শুভকামনা

আপডেট: নভেম্বর ২৯, ২০২২, ১:১৪ পূর্বাহ্ণ

করোনাকালের ক্ষীণ চোখ-রাঙানির মধ্যেই এ বছর এসএসসি পরীক্ষা গ্রহণ হয়েছিল। একই পরিস্থিতির মধ্যে সোমবার (২৮ নভেম্বর) এসএসসি পরীক্ষার ফল প্রকাশ হয়েছে। এবার সংক্ষিপ্ত সিলেবাসে নয়- পূর্ণাঙ্গ সিলেবাসেই এসএসসি পরীক্ষা হলেও স্বাস্থ্য সুরক্ষা মেনে পরীক্ষা সম্পন্ন করা হয়েছে। তবে এটা বলার অপেক্ষা রাখে না যে, করোনার সংক্রমণের নেতিবাচক প্রভাব এবারো ছিল। ভারচ্যুয়েলি ক্লাসের যে ব্যবস্থা নেয়া হয়েঠিল তাতে সমভাবে দেশের সব শিক্ষার্থীর জন্য সুযোগ করে দেয়া যায় নি। এই ব্যবস্থায় শহরভিত্তিক শিক্ষার্থীরা ভারচ্যুয়েলি শিখনের সুযোগ পেলেও গ্রাম-পর্যায়ের শিক্ষার্থীদের অধিকাংশই সে সুযোগ থেকে বঞ্চিত হয়েছে। অর্থাৎ বঞ্চিত শিক্ষার্র্থীরা স্বাভাবিকভাবেই কিছুটা পিছিয়ে পড়েছে স্বাভাবিকভাবেই। শিক্ষা-সংশ্লিষ্টরা বলছেন, এ কারণে এবারের এসএসসি ফলাফলে এর প্রভাব পড়েছে অর্থাৎ গত বছরের থেকে এবার পাসের হার কমেছে।
সাধারণত ফেব্রুয়ারি মাসে মাধ্যমিক পরীক্ষা হয়ে এলেও মহামারীতে শিক্ষাসূচি পাল্টে যাওয়ায় এ বছর সাড়ে চার মাস পিছিয়ে গত ১৯ জুন এ পরীক্ষা শুরুর দিন ঠিক হয়েছিল। পরে বিভিন্ন জেলায় বন্যার কারণে স্থগিত হওয়া সে পরীক্ষা শুরু হয় আরও তিন মাস পর, ১৫ সেপ্টেম্বর থেকে। এ ক্ষেত্রে শিক্ষার্থীদের মানসিক চাপ ছিল।
এ বছর ১১টি শিক্ষা বোর্ডে ১৯ লাখ ৯৪ হাজার ১৩৭ জন শিক্ষার্থী মাধ্যমিক ও সমমানের চূড়ান্ত পরীক্ষায় অংশ নেয়, তাদের মধ্যে ১৭ লাখ ৪৩ হাজার ৬১৯ জন পাস করেছে।
উত্তীর্ণ শিক্ষার্থীদের মধ্যে ২ লাখ ৬৯ হাজার ৬০২ জন জিপিএ ৫ পেয়েছে, যা উত্তীর্ণের মোট সংখ্যার ১৫ দশমিক ৪৬ শতাংশ। এই হিসাবে এবার পাসের হার কমেছে ৬ দশমিক ১৪ শতাংশ পয়েন্ট। আর পূর্ণাঙ্গ জিপিএ পাওয়া শিক্ষার্থীর সংখ্যা বেড়েছে ৮৬ হাজার ২৬২ জন।
গত বছর মাধ্যমিক পরীক্ষায় পাস করেছিল রেকর্ড ৯৩ দশমিক ৫৮ শতাংশ, জিপিএ-৫ পেয়েছিল ১ লাখ ৮৩ হাজার ৩৪০ জন।
উত্তীর্ণ পরীক্ষার্থীদের অনেক অনেক শুভেচ্ছা ও ভালবাসা। নিশ্চয় তারা তাদের জীবনের লক্ষ ঠিক করে নতুন শপথে লেখাপড়ায় গভীরভাবে মনোনিবেশ করবে। আর যারা এবারে উত্তীর্ণ হতে ব্যর্থ হয়েছে- সেইসব শিক্ষার্থীরা হতদ্যম না হয়ে পড়ায় আরো বেশি মনোনিবেশ করবেÑ এটাই প্রত্যাশা। এই ব্যর্থতা মোটেও গ্লানিকর নয়। নতুন করে জয়ী হওয়ার মানসিক প্রস্তুতি নিয়েই এগোতে হবে। আজ সম্ভব হয়নিÑ আগামীকাল তা হবে না এমন ভাবার কোনোই কারণ নেই। চেষ্টা ও মনোবল থাকলে জয় হবেই হবে। সব শিক্ষার্থীর জন্য রইল শুভকামনা।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ