ওপেনিংয়ের সুযোগটা নিতে চান রাজশাহীর শান্ত

আপডেট: নভেম্বর ২৪, ২০১৬, ১০:১৭ অপরাহ্ণ


সোনার দেশ ডেস্ক
বয়সভিত্তিক ক্রিকেট খেলে উঠে এসেছেন রাজশাহীর ছেলে নাজমুল হোসেন শান্ত। এর মধ্যে অনূর্ধ্ব-১৯ দলের হয়েই খেলেছেন ৫৮টি ম্যাচ। যেখানে সব দেশের য্বুাদের ছাড়িয়ে সবচেয়ে বেশি রানের রেকর্ডটি গড়েছেন তিনি। এজন্য অবশ্য অনূর্ধ্ব-১৯ জাতীয় দলের হয়ে সবচেয়ে বেশি ৫৮টি ম্যাচও খেলতে হয়েছে। এই ম্যাচ খেলে ৩৭.৩১ গড়ে ২ সেঞ্চুরি ও ১২ হাফসেঞ্চুরিতে নাজমুল হোসেন শান্ত করেছেন রেকর্ড ১ হাজার ৮২০ রান।
শুধু তাই নয় ঘরের মাঠে চলতি বছরের জানুয়ারিতে অনুষ্ঠিত যুব বিশ্বকাপে বাংলাদেশের হয়ে সবচেয়ে বেশি রানও করেছেন তরুণ এই অলরাউন্ডার। ৬ ম্যাচে এক সেঞ্চুরি ও এক হাফসেঞ্চুরিতে ২৫৯ রান সংগ্রহ করেছেন।
বয়সভিত্তিক ক্রিকেটে যতটুকু সাফল্য সবটাই মিডল অর্ডারে ব্যাটিং করেই। বিপিএল-এর চলতি আসরে কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ানসের হয়ে খেলা শান্ত শেষ দুটি ম্যাচে ওপেনিংয়ে ব্যাটিং করেছেন। আর মিডল অর্ডার থেকে ওপেনিংয়ে ব্যাটিং করে বেশ স্বাচ্ছন্দেই আছেন তিনি। তাই আপাতত তার ভাবনায় ওপেনিংয়ে সুযোগ নেওয়া।
যেই লক্ষ্যে নাজমুলকে ডেকে নিয়ে আলাদা করে কথা বললেন ঢাকার কোচ ও জাতীয় দলের ম্যানেজ্যার খালেদ মাহমুদ সুজন। কুমিল্লার অনুশীলন তখন শেষ। ঢাকা ডায়নামাইটস একাডেমিতে ঢুকছে অনুশীলনের জন্য। তখন ছোট্ট ওই মিটিংয়ে যোগ দিলেন মিজানুর রহমান বাবুলও। আগামী ৯ কিংবা ১০ ডিসেম্বর সিডনিতে নিউজিল্যান্ড সিরিজের জন্য ক্যাম্প অনুষ্ঠিত হবে। নাজমুল ২২ সদস্যের ওই দলে আছেন। সৌম্যর ফর্মহীনতায় নিউজিল্যান্ড সফরে নাজমুলকে হয়তো ওপেনিংয়ে দেখা যাবে!
যদিও জাতীয় দলে তামিমের সঙ্গী হিসেবে ওপেনিংয়ে বেশ কয়েকজন লড়াই করছেন। সৌম্য সরকার ও ইমরুল কায়েস মূল লড়াইয়ে থাকলেও দলের বাইরে থাকা এনামুল হক বিজয় ফেরার লড়াইটা এখনো চালিয়ে যাচ্ছেন। একইভাবে ওপেনিংয়ের সুযোগটা কাজে লাগানোর কথা বলে লড়াইয়ের ইঙ্গিত দিয়ে রাখলেন নাজমুল হোসেন শান্ত।
যদিও বাংলা ট্রিবিউনকে এ ব্যাপারে তিনি বলেছেন, ‘আসলে সব সময়ই তিন নম্বরে ব্যাটিং করা হয়, সুযোগ পেয়েছি তাই চেষ্টা করবো সব সময় যেন ভাল কিছু করতে পারি। ওপেনিং প্রতিযোগিতায় যাওয়ার কিছু নেই। আমি ব্যাটিং অর্ডারে যেখানেই সুযোগ পাবো, ভালো কিছু করার চেষ্টা করি। এর বাইরে আসলে কোনও কিছু নিয়ে ভাবি না।’
বিপিএল-এ ৮ ম্যাচে ১৫৯ রান নেওয়া নাজমুল হোসেন শান্ত কুমিল্লার সর্বোচ্চ সংগ্রাহক। এর মধ্যে চিটাগং ভাইকিংসের বিপক্ষে উদ্বোধনী ম্যাচেই অপরাজিত ৫৪ রানের ইনিংস খেলেছিলেন। প্রায় প্রত্যেক ম্যাচেই ব্যাট হাতে দলে অবদান রেখে চলছেন। সামনের ম্যাচেও এই ধারাবাহিকতা রাখতে চান তিনি, ‘পাঁচটি ম্যাচ আছে, তাই লক্ষ্য থাকবে অনেক বড় কিছু করার। প্রতিটি ম্যাচেই আমার অবদানটা বেশি রাখতে চেষ্টা করব, যতকুটু দেই তার চেয়ে ২০-৫০ ভাগ বেশি দেওয়ার চেষ্টা করব। তবে আমি পাঁচটি ম্যাচ নিয়ে নয়, আপাতত সামনের ম্যাচ নিয়েই ভাবছি।’
৭ ম্যাচের মাত্র একটিতে জিতে পয়েন্ট টেবিলের তলানিতে কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ানস। দলের এমন অবস্থায় এখান থেকে পাওয়ার কী আছে জানতে চাইলে শান্ত বলেছেন, ‘পাওয়ার অনেক কিছুই আছে। আমরা যারা তরুণ খেলোয়াড় আছি, তাদের পারফর্ম করাটা অনেক বেশি গুরুত্বপূর্ণ। আগের ম্যাচগুলোতেও আমরা কিছু প্লেয়ার পারফর্ম করেছি। যারা করতে পারিনি তাদের পরের পাঁচটি ম্যাচে পারফর্ম করার সুযোগ আছে।’-বাংলা ট্রিবিউন