ওমিক্রনের চেয়েও বেশি সংক্রামক হবে করোনার পরের স্ট্রেন, বাড়বে প্রাণহানিও! জানাল WHO

আপডেট: ফেব্রুয়ারি ৯, ২০২২, ৬:২৯ অপরাহ্ণ

সোনার দেশ ডেস্ক:


ওমিক্রনের প্রাথমিক ধাক্কা কাটিয়ে ধীরে ধীরে ছন্দে ফিরতে শুরু করেছে বিশ্ব। নতুন বছরের শুরুতে গোটা দুনিয়ায় নতুন করে দাপট দেখায় করোনার এই নয়া প্রজাতি। কিন্তু এই ধাক্কাই য়ে শেষ নয়, ফের একবার মনে করিয়ে দিল বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (WHO)। এমনকী এও স্পষ্ট করে দিল, ওমিক্রনের থেকেও বেশি সংক্রামক প্রজাতির আবির্ভাব ঘটতে চলেছে। যা সম্ভবত আরও বেশি প্রাণঘাতীও হবে।

WHO-এর তরফে করোনা অতিমারী বিশেষজ্ঞ মারিয়া ভ্যান কার্কোভ জানাচ্ছেন, আপাতত বিশ্ব থেকে অতিমারী বিদায়ের কোনও সম্ভাবনা নেই। বরং কোভিড-১৯-এর আরও নতুন স্ট্রেনের আবির্ভাব ঘটতে চলেছে। যা ওমিক্রনের থেকে আরও বেশি ভয়ংকর। বিশেষজ্ঞের কথায়, করোনার পরবর্তী প্রজাতিটি হার মানাবে বহুবার মিউটেড হওয়া ওমিক্রনকেও। আরও দ্রুত গতিতে ছড়াবে সেই স্ট্রেন। এমনকী এই ভাইরাসে আরও বেশি প্রাণহানির আশঙ্কাও প্রকাশ করলেন তিনি।

মঙ্গলবারই WHO আক্ষেপ করে জানিয়েছে, ওমিক্রনের আবির্ভাবের পর থেকে গোটা বিশ্বে প্রাণ হারিয়েছেন বহু মানুষ। এখনও পর্যন্ত ৫ লক্ষেরও বেশি মানুষ করোনার বলি। ১৩০ মিলিয়ন ওমিক্রন সংক্রমিতের খবর সামনে এসেছে। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার দাবি, বিশ্বের প্রতিটি প্রান্তে টিকাকরণে একইরকম ভাবে জোর দেওয়া সম্ভব হলে এবং কোভিডবিধি পালন করা হলে, এই পরিস্থিতি হয়তো নিয়ন্ত্রণ করা যেত।

আর তারই মধ্যে উদ্বেগ বাড়িয়ে WHO নতুন করে জানিয়ে দিল, অদূর ভবিষ্যতে অতিমারীর ইতি ঘটছে না। মারিয়া ভ্যানের কথায়, “আগামী দিনে কোভিড-১৯-এর ব্যপ্তি কমবে বলেই আশা করা যায়। কিন্তু যাঁরা ভ্যাকসিন নেননি, তাঁদের মাধ্যমেই ছড়িয়ে পড়বে সংক্রমণ। রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা যাঁদের কম, তাঁদের উপরই গভীর প্রভাব ফেলবে নয়া স্ট্রেন।”

উল্লেখ্য, ২০২০ সালে ডেল্টা ভ্যারিয়েন্টকে ‘ভয়ংকর’ আখ্যা দিয়েছিল WHO। কারণ এটি আলফা প্রজাতির থেকে ৫০ শতাংশ বেশি সংক্রামক। এরপর গত বছর মাথাচাড়া দেয় ওমিক্রন। যা আরও দ্রুত হারে ছড়াতে থাকে। এবার আরও ভয়াবহ প্রজাতির আবির্ভাবের ইঙ্গিতও দিয়ে রাখলেন বিশেষজ্ঞরা।
তথ্যসূত্র: সংবাদ প্রতিদিন