ওয়াসা কোন পানির দাম বেশি নিতে চায়, জানতে চান বাদশা

আপডেট: আগস্ট ৮, ২০২২, ১২:৫৪ অপরাহ্ণ


সংবাদ বজ্ঞিপ্তি :


রাজশাহী-২ আসনরে সংসদ সদস্য ফজলে হোসনে বাদশা বলছেনে, ওয়াসার মতো প্রতষ্ঠিানগুলো আসলে র্দুবৃত্ত কাঠামোর মতো হয়ে গেছে। মাঝে মাঝে এরা জনগণরে বুকরে ওপর চপেে বসতে চায়! পৃথবিীর অনকে দশেে ট্যাপরে পানি সরাসরি খাওয়া গলেওে ওয়াসার পানি পানরে অযোগ্য। যে পানি খাওয়া যায় না, সইে পানরি দাম তারা কোন আইন ও যুক্তরি ভত্তিতিে বাড়য়িে দয়ে; তা আমি সুনর্দিষ্টিভাবে জানতে চাই।

রববিার বকিালে শহররে শাহমখদুম কলজেরে কনফারন্সে রুমে আয়োজতি এক মতবনিমিয় সভায় তনিি এসব কথা বলনে। জনমতকে উপক্ষো করে ওয়াসা র্কতৃক পানরি তনিগুণ মূল্যবৃদ্ধি প্রত্যাহাররে দাবি জানয়িে রাজশাহীর সচতেন নাগরকিরে ব্যানারে এই সভার আয়োজন করা হয়। এতে রাজশাহীর বভিন্নি পশোজীবী ও সামাজকি সংগঠনরে নতেৃবৃন্দসহ বশিষ্টিজনরা অংশ ননে।

বাংলাদশেরে ওর্য়ার্কাস র্পাটরি সাধারণ সম্পাদক ফজলে হোসনে বাদশা বলনে, বাইররে অনকে দশেরে পাঁচ তারকা হোটলেে ট্যাপরে পানি পান করা যায়। কারণ সখোনে পানি ট্রটিমন্টে না করে সরবরাহ করা হয় না।

অথচ আমাদরে শহরে একটি ট্রটিমন্টে প্ল্যান্ট নইে। আমি দ্বতিীয় ময়োদে সংসদে যাওয়ার পরে রাজশাহীতে একটি ট্রটিমন্টে প্ল্যান্ট করার জন্য প্রজক্টে পাশ করছেলিাম। সইে প্রজক্টে আজও আলোর মুখ দেখেনি। যে প্রজক্টেটি আমাদরে টাকায় না, বিদেশি ফাণ্ডের টাকায় হব,ে সইে প্রজক্টেও আমলাতান্ত্রকি কারণে আমরা বাস্তবায়ন করতে পারিনি।

তনিি বলনে, ওয়াসার র্সাভসি রন্টে কী হবে এবং আইন এই বষিয়ে কী বলে, তার সুনদিষ্টি কাগজ আমরা সংগ্রহ করবো। আজকরে এই সভা থকেে একটি নাগরকি প্রতনিধিি গঠন করে রাজশাহী ওয়াসার এমডরি সাথে কথা বলা হবে।  আমরা সখোনে তাকে বলবো- আইন হচ্ছে এইটা, আপনি পানরি দাম কীভাবে বাড়ান?

তাকে যথাযথ আইন দখোনোর পরে যদি তনিি কথা শুনতে না চান, তবে আমরা আইনরে আশ্রয়ে আদালতে যতেে পান,ি আন্দোলনওে যতেে পার।ি আমাদরে দুই প্রচষ্টোই অব্যাহত থাকব।ে জনমতরে বাইরে নওেয়া কোন সদ্ধিান্তকে আমরা সর্মথন করতে পারি না।

স¤প্রতি দশেে জ্বালানি তলেরে মূল্যবৃদ্ধি নয়িওে কথা বলনে জাতীয় এই রাজনীতকি। তনিি বলনে, সরকাররে জ্বালানি তলেরে মূল্যবৃদ্ধরি সদ্ধিান্তকে পুরোপুরি সঠকি মনে করি না। তলেরে মূল্যবৃদ্ধি হবে, এটি সকলইে জানতো। আমাদরে দশেরে জ্বালানি যহেতেু আমদানি করতে হয়, সহেতেু র্বতমান বশ্বৈকি পরস্থিতিতিে বাংলাদশে জ্বালানি সংকটে পড়তে পার

; এটি অস্বাভাবকি কছিু নয়। সরকাররে ভতিরে এমন কছিু ব্যক্তি আছনে, যারা তলেরে মূল্যবৃদ্ধরি ক্ষত্রেে কীভাবে জনগণরে র্স্বাথ কমা বিপন্ন হবে, তা ববিচেনা করনেন।ি আমাদরে দশেে তলেরে দাম বাড়ানোর ক্ষত্রেে একটি প্রো-পপিল অ্যাপ্রোচ নয়িে আসার প্রয়োজন ছিল।

রাকসুর সাবকে এই ভপিি আরো বলনে, গণপরবিহন ও কৃষক্ষিত্রেে সবথকেে বশেি ব্যবহৃত হয় ডজিলে। অতএব আজকে ডজিলেরে মূল্য কছিুটা বাড়য়িে পট্রেোল ও অকটনেরে মূল্য বশেি বাড়ানো যুক্তযিুক্ত ছলি। ডজিলেরে মূল্য বশেি বাড়ানোর কারণে এর প্রভাব এসে পড়বে জনগণরে ওপর। ফলে মধ্যরাতে যে নীতরি ভত্তিতিে তলেরে দাম বাড়ানো হয়েছে এবং এমন সদ্ধিান্ত যারা নয়িছেনে; তারা কখনো সরকাররে বন্ধু হতে পারে না। আমরা যারা ক্ষমতায় আছি, তাদরে চন্তিা করতে হবে- মানুষকে সন্তুষ্টরি মধ্যে রখেইে র্বতমান বশ্বি পরস্থিতিতিে বাংলাদশেকে টকিয়িে রাখা।

রাজশাহী শক্ষিা র্বোডরে সাবকে চয়োরম্যান দীপ কন্দ্রে দাসরে সভাপতত্বিে মতবনিমিয় সভায় বক্তব্য রাখনে, রাজশাহী সটিি করপোরশেনরে প্যানলে ময়ের-১ সরফিুল ইসলাম বাবু, বীর মুক্তযিোদ্ধা আবুল কালাম আজাদ, সাবকে ছাত্রনতো মনজুর র্মোসদে চুন্না, রাজশাহী থয়িটোররে সভাপতি কামারুল্লাহ কামাল,

বশিষ্টি সমাজসবেক এ কে মাসুদ, বশিষ্টি সমাজসবেক সলেমি মনোয়ার, দগিন্ত প্রসারী সংঘরে সাধারণ সম্পাদক নুরুল হক, রাজশাহী রক্ষা সংগ্রাম পরষিদরে নতো গোলাম মাওলা রনি প্রমুখ। সভাটি সঞ্চালনা করনে মহানগর ওর্য়ার্কাস র্পাটরি সাধারণ সম্পাদক দবোশষি প্রামানকি দবেু।