কথা আর ফুলঝুরি নয়, আমি কাজে বিশ্বাসী-আব্দুল ওদুদ

আপডেট: জানুয়ারি ২৮, ২০২৩, ১:০৫ অপরাহ্ণ


চাঁপাইনবাবগঞ্জ প্রতিনিধি :


আগামী ১ ফেব্রুয়ারি চাঁপাইনবাবগঞ্জ-২ ও ৩ আসনে উপনির্বাচন। এ নির্বাচনকে সামনে রেখে প্রার্থীদের প্রতিশ্রæতি আর প্রচার-প্রচারণায় পুরো এলাকা মুখরিত হয়ে উঠেছে। পোস্টার আর ব্যানারে ছেয়ে গেছে শহরের অলি-গলি থেকে বিভিন্ন প্রান্তরে।

নির্বাচনের সময় যতই ঘনিয়ে আসছে, প্রার্থীসহ নেতা-কর্মী আর সমর্থকদের। প্রার্থীরা দলীয় নেতাকর্মীদের সাথে নিয়ে সকালে বিভিন্ন এলাকায় গণসংযোগ এবং পথসভায় ব্যস্ত রয়েছেন। ভোটাররা বলছেন যারা গণবিচ্ছিন্ন তাদেরকে নয়, এই এলাকার উন্নয়ন যিনি করবেন তাকেই ভোট দিবেন।

এদিকে, চায়ের স্টলসহ সকল জায়গাতেই চলছে প্রার্থীদের নিয়ে আলোচনা আর জল্পনা-কল্পনা। মাইকিং ছাড়াও সামাজিক যোগাযোগেও চালাচ্ছে প্রার্থীর সমর্থনে নির্বাচনী প্রচারনা। প্রার্থীরা এ অঞ্চলের উন্নয়নে নাগরিকদের দিচ্ছেন বিভিন্ন প্রতিশ্রুতি। জানা গেছে, চাঁপাইনবাবগঞ্জ-৩ (সদর ও পৌরসভা) আসনে মোট ভোটার ৪ লাখ ১১ হাজার ৪৯৫।

ভোটাররা তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগ করবেন। এরমধ্যে পুরুষ ভোটার ২ লাখ ৮ হাজার ৮৮৩ ও নারী ভোটার ২ লাখ ৫ হাজার ৬১২ জন। এ উপনির্বাচনে চাঁপাইনবাবগঞ্জ-৩ আসনে সংসদ সদস্য পদে লড়ছেন আওয়ামীলীগ মনোনীত নৌকা প্রতিকের জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও গণমানুষের নেতা আব্দুল ওদুদ, বিএনএফ’র টেলিভিশন প্রতীকের কামরুজ্জামান খাঁন ও স্বতন্ত্র প্রার্থী আপেল প্রতীকের সামিউল হক লিটন প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন।

এদিকে নৌকা প্রতীকের প্রার্থী ২বারের সাবেক সংসদ সদস্য আব্দুল ওদুদ গতকাল শনিবার সদর উপজেলার ঝিলিম ইউনিয়নের বিভিন্ন স্থানে জনগণের কাছে গিয়ে ভোট চাইছেন। এবারে এ অঞ্চলকে আধুনিকমানের গড়তে ও পরিবর্তনের অঙ্গীকার নিয়ে আওয়ামী লীগের দলীয় সংসদ সদস্য প্রার্থী আব্দুল ওদুদ বলেন, সদর উপজেলাবাসীকে সাথে নিয়ে গড়ে তুলতে চাই একটি উন্নত আধুনিকমানের এলাকা ।

এ অঞ্চলের নাগরিকরা যে উন্নয়নের আশা করেছিলেন তা বিগত সময়ে যিনি সংসদ সদস্য হিসেবে দায়িত্বে ছিলেন, তিনি সেসব উন্নয়নে কোনই ভ‚মিকা রাখেননি। জনগণের ভোটে নির্বাচিত হলেও ন্যুনতম কাজও করেননি। ভোটারদের কাছে গিয়ে তাদের সে আশা-আকাক্সক্ষার কথা শুনেছি।

তারা এ অঞ্চলের উন্নয়ন চাই, আর প্রতিশ্রুতি শুনতে চাই না। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সারাদেশে যেভাবে উন্নয়ন করেছেন এবার নৌকাকে ভোট দিয়ে নৌকার হাত ধরে আবার এ এলাকার উন্নয়নের ধারা শুরু হবে। তিনি আরো বলেন, সোনামসজিদ পর্যন্ত রেললাইন সম্প্রসারণ, অর্থনৈতিক অঞ্চল, হাইটেক পার্ক, ৪ লেনের মহাসড়ক নির্মাণ কাজের উদ্যোগ গ্রহণ করা হবে।

তিনি সংসদ সদস্য নির্বাচিত হলে, যেসব উন্নয়ন থেকে বঞ্চিত হয়ে আছে সেসব কাজ সর্বাগ্রে হবে। কথা ও ফুলঝুরিতে নই, আমি কাজে বিশ^াসী। নৌকার বিজয় হবে বলে তিনি আশাবাদ ব্যক্ত করেন। এদিকে, স্বতন্ত্র প্রার্থী আপেল প্রতীকের প্রার্থী সামিউল হক লিটন চরাঞ্চলের ইউনিয়ন ও বাজারসহ বিভিন্ন স্থানে গণসংযোগ চালিয়ে যাচ্ছেন

। সকাল থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত বিভিন্ন এলাকার পথসভায় বক্তব্য রাখছেন। বিভিন্ন প্রতিশ্রুতি দিয়ে ভোটারদের মন জয় করার চেষ্টা করছেন তিনি। যোগ্য প্রার্থীকে ভোট দিয়ে উন্নয়নের স্বার্থে জয়যুক্ত করার আহŸান জানান। এছাড়া বিএনএফ সমর্থিত প্রার্থী টেলিভিশন প্রতীকের কামরুজ্জামান খাঁনের তেমন প্রচার-প্রচারণা নেই।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ