কমিউটার ট্রেন ও ইট বোঝাই ট্রলির সংঘর্ষ প্রাণে বেঁচে গেলেন শতশত যাত্রী

আপডেট: ডিসেম্বর ১, ২০২২, ১:২৬ পূর্বাহ্ণ

গোমস্তাপুর (চাঁপাইনবাবগঞ্জ) প্রতিনিধি :


চাঁপাইনবাবগঞ্জের নাচোল উপজেলার গোলাবাড়িতে রাজশাহী-রহনপুরগামী কমিউটার ট্রেনের সঙ্গে ইটবোঝাই ট্রলির সংঘর্ষে প্রায় শতাধিক যাত্রী দুর্ঘটনা থেকে বেঁচে গেছেন। বুধবার (৩০ নভেম্বর) বিকেল সাড়ে চারটার দিকে গোলাবাড়ি স্টেশনের পাশে বন্ধুপাড়ামোড় রেলক্রসিংয়ে এ ঘটনা ঘটে। সংঘর্ষে রেলইঞ্জিনে ব্যাপক ক্ষতিসহ ট্রলি ভেঙে চুরমার হয়ে গেছে। এদিকে রেল ইঞ্জিনের হাওয়া ভাকাম ভেঙে যাওয়ায় প্রায় এক কিলোমিটার দূরে এসে ট্রেনটি বন্ধ হয়ে য়ায়। তবে হতাহতের কোন খবর পাওয়া যায়নি।

ট্রেনের যাত্রী নাইমা ইসলাম ও স্থানীয়রা জানান, রাজশাহী রেলস্টেশন থেকে কমিউটার ট্রেনটি বিকেল তিনটায় রহনপুর স্টেশনে আসছিলেন। পথে নাচোল উপজেলা গোলাবাড়ি স্টেশনের কাছে বন্ধুপাড়া রেলক্রসিংয়ে ইটবোঝাই ট্রলি পাড় হচ্ছিল। ওই সময় ট্রেনটি দ্রুতগতিতে আসার সময় ট্রলির সঙ্গে ধাক্কা লাগে। এতে ইটবোঝাই ট্রলি ভেঙে চুরমার হয়ে যায়। পরে যাত্রীবাহী ট্রেনটি দুর্ঘটনা এলাকা থেকে এক কিলোমিটার দূরে পাইকড়া এলাকায় এসে থেমে যায়। সেখানে তড়িঘড়ি করে যাত্রীরা নেমে যান।
ট্রেনের যাত্রী ও উপজেলা প্রেসক্লাব গোমস্তাপুরের সভাপতি আতিকুল ইসলাম আজম বলেন, ট্রেন ও ট্রলির সংঘর্ষে যাত্রীরা আতংকিত হয়ে পড়েন। পরে যাত্রীরা নেমে বিভিন্ন যানবাহনে বাড়ি ফিরে আসেন।

ট্রেনে দায়িত্বে থাকা রেলপুলিশ মাহবুব জানান, দুর্ঘটনার পর যাত্রীদের নিরাপদে ট্রেন থেকে বের করা হয়।
কমিউটার ট্রেনের সহকারী চালক বুলবুল আহমেদ বলেন, রহনপুর স্টেশনে আসার সময় ওই স্থানে হঠাৎ রেললাইনে ওপরে উঠে পড়ে ইটবোঝাই ট্রলিটি। এতে ট্রেনের ইঞ্জিনের ব্যাপক ক্ষতি হয়ে গেছে। অনেক যন্ত্রাংশ ভেঙে গেছে। হাওয়া ভাকাম ভেঙে যাওয়ার ট্রেনটি বন্ধ হয়ে যায়। রাজশাহী থেকে আরেকটি ইঞ্জিন আসলে ট্রেনটি গন্তব্যস্থল রহনপুর স্টেশনে পৌঁছাবে।

রহনপুর রেলওয়ে ষ্টেশন মাস্টার মির্জা কামরুল ইসলাম জানান, কমিউনিটি ট্রেনটি বিকেলে পাঁচটায় রহনপুর স্টেশন থেকে ছেড়ে যাওয়ার কথা ছিল। দুর্ঘনার কারনে যাত্রীরা নির্ধারিত সময়ে যেতে পারেন নি। তবে রাত আটটার পর রহনপুর থেকে ছেড়ে যাবে বলে তিনি জানান।