করোনাকালে ঈশ্বরদীর এমপিকে গণসংবর্ধনা

আপডেট: সেপ্টেম্বর ১৮, ২০২১, ৯:২০ অপরাহ্ণ

ঈশ্বরদী (পাবনা) প্রতিনিধি:


‘পাবনার ঈশ্বরদীতে বিমানবন্দর চালু করা হবে, ফ্লাইওভার নির্মাণ করা হবে’ এই আশ্বাসে পাবনা-৪ (ঈশ্বরদী-আটঘরিয়া) আসনের সংসদ সদস্য মো. নুরুজ্জামান বিশ্বাসকে গণসংবর্ধনা দেওয়া হয়েছে। শুক্রবার রাতে ঈশ্বরদী উপজেলা আওয়ামী লীগের ব্যানারে ঈশ্বরদীর পুরাতন মোটর স্ট্যান্ডে মাহবুব আহমেদ খান স্মৃতিমঞ্চে এই সংবর্ধনা অনুষ্ঠিত হয়। তবে করোনাকালে স্বাস্থ্যবিধি না মেনেই গণসংবর্ধনা দেয়ায় সমলোচনাও হচ্ছে।

সাংসদ নুরুজ্জামান বিশ্বাস কয়েক দিন ধরে ঢাকায় অবস্থান করছিলেন। এরই মধ্যে তিনি ঢাকায় বিভিন্ন মন্ত্রণালয় ও দপ্তরে যোগাযোগ করে ঈশ্বরদীর কয়েকটি প্রকল্প অগ্রগামী করেন। প্রকল্পের মধ্যে রয়েছে ঈশ্বরদী রেলগেটে ফ্লাইওভার নির্মাণ, বিমানবন্দর চালুকরণ, পাকশী নৌবন্দর নির্মাণ ও দেশের সর্ববৃহৎ ঈশ্বরদী রেলওয়ে জংশন স্টেশনের আধুনিকায়ন করা। ঢাকা থেকে ‘এক ঝুড়ি প্রকল্প’ নিয়ে ঈশ্বরদীতে ফেরার দিন নির্ধারিত হলে ঈশ্বরদী উপজেলা আওয়ামী লীগের একাংশ শুক্রবার তাকে গণসংবর্ধনা দেওয়ার আয়োজন করে।

শুক্রবার বিকেলে তিনি ঢাকা থেকে সড়কপথে মুলাডুলি পৌঁছালে সেখানে দলের বিপুল সংখ্যক নেতাকর্মী নুরুজ্জামান বিশ্বাসকে অভ্যর্থনা জানান। পরে সেখান থেকে ঈশ্বরদী পর্যন্ত প্রায় ১০ কিলোমিটার রাস্তায় দুই সহস্রাধিক মোটর সাইকেল ও গাড়ি বহর নিয়ে তাকে বরণ করে শহরের মাহবুব আহমেদ স্মৃতি মঞ্চের সংবর্ধনা স্থলে নিয়ে আসা হয়। এসময় তাকে মাহবুব আহমেদ খান উন্মুক্ত স্মৃতিমঞ্চে এই গণসংবর্ধনা দেওয়া হয়।

ঢাকা থেকে ঈশ্বরদীতে আসার পথে উপজেলার মুলাডুলিতে নির্মিত মঞ্চে দলীয় নেতারা বক্তব্য দেন, সেখানে বিভিন্ন সংগঠনের পক্ষ থেকে তাকে ফুল দিয়ে শুভেচ্ছা জানানো হয়। এর আগে ঈশ্বরদীর বিভিন্ন ইউনিয়ন থেকে কয়েক হাজার মোটর সাইকেল ও গাড়ি মুলাডুলিতে গিয়ে জড়ো হয়।

তবে উপজেলা আওয়ামী লীগের ব্যানারে এমপিকে সংবর্ধনা দেওয়া হলেও উপজেলা ও পৌর আওয়ামী লীগ, ছাত্রলীগ, যুবলীগের অপর পক্ষের নেতা-কর্মীরা এ আয়োজনে উপস্থিত ছিলেন না। নাম প্রকাশ না করার শর্তে পৌর আওয়ামী লীগ, যুবলীগ ও ছাত্রলীগের দায়িত্বশীল একাধিক নেতা বলেন, আমাদের এ ব্যাপারে কিছুই জানানো হয়নি। সংবর্ধনার বিষয়ে উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মকলেছুর রহমান মিন্টু বলেন ‘আমি দলের সাধারণ সম্পাদক অথচ এ ব্যাপারে আমাকে কিছুই জানানো হয়নি। সংবর্ধনার আয়োজন নিয়ে দলীয় কোন সিদ্ধান্তও নেওয়া হয়নি।’

আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক এস এম কামাল হোসেন বলেন, করোনাকালের এই সময়ে যদি তিনি সংবর্ধনা নিয়ে থাকেন সেটা তার ব্যক্তিগত বিষয়। তবে স্বাস্থ্যবিধি অনুসরণ করে অনুষ্ঠানের আয়োজন করলে ভাল হতো।

সংবর্ধনার জবাবে এমপি নুরুজ্জামান বিশ্বাস বলেন, বৃষ্টিতে ভিজে আমাকে যেভাবে দলের নেতা-কর্মী ও বিভিন্ন সংগঠনের পক্ষ থেকে অভিনন্দন শুভেচ্ছা জানিয়েছেন আমি তাদের প্রতি কৃতজ্ঞ। সংবর্ধনায় উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি নায়েব আলী বিশ্বাসের সভাপতিত্বে বক্তব্য দেন, উপজেলা আওয়ামী লীগের সিনিয়র সহসভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা গোলাম মোস্তফা চান্না মন্ডল, সহসভাপতি মোহাম্মদ রশিদুল্লাহ, পৌর আওয়ামী লীগের সভাপতি আবুল কালাম আজাদ মিন্টু, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান আব্দুস সালাম খান, কৃষক লীগ নেতা মুরাদ আলী মালিথা, আ’ লীগ নেতা ময়নুল ইসলাম লাহিড়ী মিন্টু, আজিজুর রহমান চঞ্চল, উপজেলার পাকশী, মুলাডুলি, সাঁড়া, সলিমপুর, লক্ষীকুন্ডা, সাহাপুর ও দাশুড়িয়া ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের নেতৃবৃন্দ ও এসব ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যানবৃন্দসহ বিভিন্ন সংগঠনের নেতারা।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ