করোনাভাইরাসের ওঠানামা তবুও উদ্বেগ অবসানের অপেক্ষা

আপডেট: সেপ্টেম্বর ৩০, ২০২২, ১২:৩৩ পূর্বাহ্ণ

বিশ্ব কি করোনাভাইরাসকাল অতিক্রম করছে? হয়ত এতো সহজ সরলিকরণ এই মুহূর্তে করা যাচ্ছে না। তবে এতো বলাই যায় যে, করোনা সংক্রমণ ক্রমশই স্থিত হয়ে আসছে। যুক্তরাষ্ট্র ইতোমধেই দেশটিকে করোনামুক্ত ঘোষণা করেছে। এটা আশারই বার্তাবহ। করোনা ভাইরাস দ্রুতই বাগে আনতে টিকার কার্যক্রমে সাফল্য পাওয়া গেছে। এখন পৃথিবী অনেকটাই স্বাভাবিক। তবে করোনার রেখে যাওয়া অভিঘাত মোকাবিলার লাড়াইটা চলছে। বাহ্যদৃষ্টিতে ব্যাপারটা তেমনই মনে হয়।
তবে করোনা সংক্রমণ নামতে নামতে কখনো বা উদ্ধমূখি আচরণও করছে। বাংলাদেশ ও ভারতসহ পৃথিবীর বিভিন্ন দেশে এমন প্রবণতা লক্ষ্য করা যাচ্ছে। সংবাদ মাধ্যমের তথ্য জানাচ্ছেÑ ভারতের কোভিড গ্রাফ ফের ঊর্ধ্বমুখি। মঙ্গলবারের তুলনায় বুধবার সামান্য বাড়ে সংক্রমণ। ফলে দুর্গা পূজার উৎসবের মৌসুমে বাড়ছে উদ্বেগ। বুধবার দেশের স্বাস্থ্যমন্ত্রকের কোভিড বুলেটিন অনুযায়ী, গত ২৪ ঘণ্টায় ভারতে নতুন করে করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন ৩ হাজার ৬১৫ জন। যা মঙ্গলবারের তুলনায় কিছুটা বেশি।
বাংলাদেশেও সংক্রমণ উর্দ্ধমুখি। তথ্যমতে, এক দিনে শনাক্ত কোভিড রোগীর সংখ্যা ফের কিছুটা বেড়েছে; এই সময়ে করোনাভাইরাস আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন ২ জন। স্বাস্থ্য অধিদপ্তর জানিয়েছে, বৃহস্পতিবার সকাল পর্যন্ত ২৪ ঘণ্টায় ৫ হাজার ১৭টি নমুনা পরীক্ষা করে ৬৭৯ জন নতুন রোগী শনাক্ত হয়েছে।
সাত সপ্তাহ পর গত সোমবার দেশে এক দিনে শনাক্ত কোভিড রোগীর সংখ্যা সাতশ ছাড়ায়, সেদিন শনাক্ত হয় ৭১৮ জন রোগী। এরপর মঙ্গলবার তা বেড়ে ৭৩৭ জন হয়। বুধবার শনাক্ত রোগীর সংখ্যা কমে ৬৬৫ জন হয়।
করোনাকালের অবসান না হওয়া অবধি অস্বস্তিটা থেকেই যাচ্ছে। বিশ্বের মানুষ সেই স্বস্তির অবস্থানেই ফিরতে চাচ্ছে। তবে করোনা সংক্রমণের ওঠানামা এ ধরনের শঙ্কাও জিইয়ে রেখেছে। করোনাভাইরাস ধরন পাল্টে আবার মানুষের ঘাড়ে চেপে বসবে কি না- সেই আশংকা একেবারেই উড়িয়ে দেয়া যায় না। তাই সতর্কতার বিকল্পও নেই। বর্তমানে বহু মানুষই করোনা সংক্রমণ নিয়ে উদাসীন। তাই মাস্ক এবং স্যানিটাইজারের ব্যবহারও কমেছে অনেকটাই। বাংলাদেশ ভারতের মত পুরোপুরি দুর্গাপুজাউৎসবের আমেজে। যদিও সাবধানতা সর্ব ক্ষেত্রেই প্রযোজ্য।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ