করোনাভাইরাসে বিভিন্ন দেশে ৫৩ বাংলাদেশির মৃত্যু

আপডেট: এপ্রিল ১, ২০২০, ৭:৩২ অপরাহ্ণ

সোনার দেশ ডেস্ক


প্রাণঘাতী করোনাভাইরাসে যুক্তরাষ্ট্রে ৩২ বাংলাদেশিসহ বিশ্বের বিভিন্ন দেশে ৫৩ জন বাংলাদেশি প্রাণ হারিয়েছেন। বিভিন্ন সূত্রে পাওয়া খবরে তা জানা গেছে। এসব দেশের মধ্যে রয়েছে- যুক্তরাষ্ট্রে ৩২, ব্রিটেনে ১১, ইতালিতে দুই, কাতারে দুই, সৌদি আরবে দুই, স্পেনে এক, সুইডেনে এক, লিবিয়ায় এক এবং গাম্বিয়ায় একজন বাংলাদেশি মার গেছেন।
নিউইয়র্কস্থ বাংলাদেশ কনসাল জেনারেল সাদিয়া ফয়জুন্নেছা জানান, গত রবি ও সোমবার দু’দিনে নিউইয়র্কে সবচেয়ে বেশি মৃত্যুর ঘটনা ঘটেছে। কমিউনিটির বিভিন্ন সূত্রে দূতাবাস বাংলাদেশিদের আক্রান্ত ও মৃত্যুর খবর পান। সরকারিভাবে কোনো তথ্য সরবরাহ করা হয় না বা চাওয়া যায় না।
সাদিয়া বলেন, নিউইয়র্কে এমন পরিস্থিতি হাসপাতালে যাওয়ার মতো অবস্থা নেই। তাই মিশন জরুরি যোগাযোগে একটি চিকিৎসক-পুল তৈরি করেছে, যেখানে ঘরে বসে বাংলাদেশিরা চিকিৎসকের সঙ্গে কথা বলতে পারবেন এবং আতঙ্কিত না হয়ে চিকিৎসকের পরামর্শ অনুযায়ী পরবর্তী পদক্ষেপ নিতে পারবেন। যুক্তরাষ্ট্রের অন্য দায়িত্বশীল কূটনৈতিক সূত্র জানিয়েছে, মিশিগানের ডেট্রয়েট সিটিতে একজন ও নিউ জার্সির প্যাটারসনে একজন বাংলাদেশি নারী করোনায় মারা গেছেন।
মঙ্গলবার স্থানীয় সময় সকালে নিউইয়র্কে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান একজন প্রবাসী ফটোসাংবাদিক। শারীরিক নানা জটিলতায় হাসপাতালে ভর্তি হওয়া ওই সাংবাদিক করোনায় আক্রান্ত হয়ে কুইন্সের হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ছিলেন। তাছাড়া গত দু’দিনে যারা মারা গেছেন আরো আটজন বাংলাদেশি। পারিবারিক আপত্তির কারণে তাদের নাম প্রকাশ করা সম্ভব হচ্ছে না।
যুক্তরাষ্ট্রের পর করোনায় বাংলাদেশি বংশোদ্ভূতদের মারা যাওয়ার তালিকায় দ্বিতীয় অবস্থানে ব্রিটেন। দেশটিতে সোমবার পর্যন্ত ১১ বাংলাদেশি মারা গেছেন। এর মধ্যে ১০ জনই লন্ডনে। একজন বার্মিংহামে। ব্রিটেনে বাংলাদেশ হাইকমিশনের প্রেস মিনিস্টার আশিকুন নবী চৌধুরী জানান, গত ২৪ ঘণ্টায় ব্রিটেনের করোনায় ৩৯৩ জনের মৃত্যু হয়েছে। আশার দিক হচ্ছে ওই তালিকায় কোনো বাংলাদেশি নেই। সোমবার পর্যন্ত ১১ বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত মারা গেছেন মর্মে কমিউনিটি সূত্রে মিশন নিশ্চিত হয়েছেন।
কাতারের দোহায় নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত আসুদ আহমেদ জানান, কাতারে এক প্রবাসী চিকিৎসাধীন অবস্থায় মঙ্গলবার মারা গেছেন। তার বাড়ি গাজীপুরের কালিয়াকৈরে। এর আগে গত ২৩ মার্চ আরো একজন মারা যান। তার বাড়ি শ্রীমঙ্গলে।
তথ্যসূত্র: জাগোনিউজ