করোনাভাইরাস আতঙ্ক || সিংড়ায় হঠাৎ বাড়লো চাল-পেঁয়াজসহ নিত্যপণ্যের দাম

আপডেট: মার্চ ২২, ২০২০, ১২:৩৭ পূর্বাহ্ণ

সিংড়া প্রতিনিধি


সিংড়া বাজার তদারকি করছেন ইউএনওসহ উপজেলা প্রশাসন-সোনার দেশ

নাটোরের সিংড়ায় হঠাৎ করেই বৃদ্ধি পেয়েছে চাল-পেঁয়াজসহ নিত্যপণ্যের দাম। গত দু’দিনের ব্যবধানে প্রকারভেদে প্রতি কেজি চালে প্রায় ৪ টাকা বেড়েছে। আর ৫০ কেজির বস্তায় বেড়েছে প্রায় ২০০-৩০০টাকা। বর্তমানে দেশে করোনাভাইরাসের আতঙ্ক বিরাজ করছে। আর এ সুযোগে এক শ্রেণির অসাধু ব্যবসায়ীরা চাল-পেঁয়াজসহ নিত্যপণ্যের দাম বৃদ্ধি করেছে। তবে হঠাৎ করে চাল-পেঁয়াজসহ নিত্যপণ্যের দাম বৃদ্ধি হওয়ায় মধ্যবিত্ত পরিবারগুলোকে হিমশিম খেতে হচ্ছে।
স্বর্ণা-৫ ৫০ কেজির বস্তা ছিলো ১৫’শ টাকা ৩’শ টাকা বেড়ে হয়েছে ১৮’শ টাকা, মিনিকেট ২৪’শ টাকার বস্তা ২৬’শ টাকা, কাটারি ২৫’শ থেকে ২৬’শ এবং উনপঞ্চাশ চাল ১৬’শ থেকে ১৯’শ টাকা বেড়েছে।
এদিকে বৃহস্পতিবার সিংড়া হাটে ও বিভিন্ন বাজারে পেঁয়াজ বিক্রি হয়েছে ৩৫ টাকা, শুক্রবারে তা বেড়ে ৬০-৭০ টাকা হয়েছে। গতকাল শনিবার বিভিন্ন বাজারে বৃদ্ধি হওয়া দামেই বিক্রি হয়েছে পেঁয়াজ।
এছাড়াও ৫০ টাকা কেজির রসুন ১০০ টাকা কেজি, ৯০ টাকা কেজির আঁদা ১৬০ টাকা কেজি, ৮’শ টাকা মণ আলু হয়েছে হাজার টাকা মণ এবং ১৪’শ টাকা মণের কাঁচা মরিচ হয়েছে ১৬’শ টাকা মণ।
সিংড়ার বাজারগুলো ঘুরে দেখা যায়, উনপঞ্চাশ চাল ৩৮ টাকা, যা পূর্বে ছিল ৩৪ টাকা, মিনিকেট ৫০ টাকা, যা পূর্বে ছিল ৪৮ টাকা, কাটারি ৫০ টাকা থেকে বেড়ে ৫২ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। গত দু’দিনের ব্যবধানে প্রকারভেদে প্রতি কেজি চালে প্রায় ৪ টাকা বৃদ্ধি পেয়েছে।
সিংড়া বাজারের চাল ও পেঁয়াজ ব্যবসায়ীরা জানান, গত দু’দিনের চেয়ে এখন চালের দাম একটু বেশি। মোকাম থেকেই আমাদের বেশি দামে কিনতে হচ্ছে তাই বিক্রিও করছি বেশি দামে। এখানে আমাদের কিছুই করার নেই।
পেঁয়াজ, রসুন, আঁদা ও কাঁচা মরিচের দাম বৃদ্ধি পাওয়ায় বাজার তদারকি করেছেন উপজেলা নির্বাহী অফিসারসহ প্রশাসনের কর্মকর্তারা। উপজেলা নির্বাহী অফিসার নাসরিন বানু গতকাল শনিবার দুপুরে উপজেলার বিলদহর ও হাতিয়ান্দহ বাজার তদারকি করেন। এছাড়াও করোনাভাইরাস প্রতিরোধ চামারী ইউনিয়ন কমিটির সঙ্গে মতবিনিময় সভা করেন। এসময় সিংড়া থানার ওসি নুর-এ-আলম সিদ্দিকী, চামারী ইউপি চেয়ারম্যান রশিদুল মৃধা উপস্থিত ছিলেন।
ইউএনও নাসরিন বানু বলেন, চামারী ইউনিয়নে ১৫ জনকে হোম কোয়ারেন্টাইনে রাখা হয়েছে তাদের খোঁজ-খবর নিতে কমিটিকে নির্দেশ দেয়া হয়েছে। এছাড়াও বাজার তদারকি অব্যাহত রয়েছে।
উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) নাসরিন বানু জানান, আজ বিভিন্ন এলাকায় তদারকি করেছি, এ অভিযান অব্যাহত রয়েছে। পর্যায়ক্রমে পুরো উপজেলার বাজারগুলো তদারকি করা হবে।