করোনাভাইরাস: ঈশ্বরদীর সব চায়ের দোকান বন্ধ ঘোষণা: ১৭১ বিদেশীসহ প্রায় ২শ’জন হোম কোয়ারেন্টাইনে

আপডেট: মার্চ ২৩, ২০২০, ১২:৩৬ পূর্বাহ্ণ

সেলিম সরদার, ঈশ্বরদী


ঈশ্বরদীর সকল চায়ের দোকান বন্ধ ঘোষণার নির্দেশ দিয়েছে প্রশাসন। গতকাল রোববার সন্ধ্যা থেকে এই উপজেলার সব চায়ের দোকান বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে।
এদিকে বিদেশ থেকে ফিরে আসা প্রবাসীদের খুঁজে খুঁজে বের করে তাদের বাড়ির দরজায় এবং সদ্য বিদেশ থেকে আসা প্রবাসীদের হাতে হাতে বিশেষ স্টীকার ও সিল লাগানো শুরু করেছে প্রশাসন। গতকাল রোববার পর্যন্ত ৯ জনের হাতে সিল ও তাদের বাড়িতে স্টিকার লাগানো হয়েছে বলে জানায় পুলিশ। তবে বিভিন্ন দেশ থেকে ঈশ্বরদীতে আসা শতাধিক প্রবাসীদের নিয়ে বিপাকে পড়েছে প্রশাসন। ঈশ্বরদীতে এলেও তারা কোয়ারেন্টাইন না মানায় হিমশিম খেতে হচ্ছে পুলিশকে। ঈশ্বরদীর রূপপুরে নির্মাণাধীন রূপপুর পারমাণবিক বিদ্যুৎ কেন্দ্র নির্মাণ প্রকল্পে কর্মরত প্রায় ২ হাজার রাশিয়ান নাগরিকদের মধ্যে সর্বশেষ বাংলাদেশে আসা ১৭১ জনকে হোম কোয়ারেন্টাইনে রাখা হয়েছে। এই প্রকল্পে কর্মরত রাশিয়ান নাগরিকদের হোম কোয়ারেন্টাইনে রেখে স্ব-স্ব কোম্পানী বিশেষ নজরদারিতে রেখেছেন, এদের মধ্যে যারা নির্দিষ্ট সময় অতিক্রম করেছেন তাদের প্রকল্পে এসে কাজে যোগদান করতে বলা হলেও ‘সাবধানে’ কাজ করতে বলা হয়েছে। রূপপুর প্রকল্পের দায়িত্বশীল সূত্র নাম প্রকাশ না করার অনুরোধ জানিয়ে বলেন, এখানে যেসব কোম্পানী কাজ করছে তাদের নিজ দায়িত্বে প্রকল্পের আবাসিক এলাকা গ্রীনসিটিতে হোম কোয়ারেন্টাইন নিশ্চিত করতে নির্দেশনা প্রদান করা হয়েছে এবং নতুন করে কোন রাশিয়ান নাগরিককে ঈশ্বরদীতে না আসার জন্যও বলা হয়েছে।
ঈশ্বরদী উপজেলা, থানা প্রশাসন ও রূপপুর প্রকল্পের দায়িত্বশীল কর্মকর্তাদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, গত ১ মার্চ থেকে গতকাল পর্যন্ত রাশিয়া থেকে ঈশ্বরদীতে রূপপুর প্রকল্পে এসেছেন ১শ’৭১ জন এবং সিঙ্গাপুর, শ্রীলঙ্কা, ভারতসহ অন্যান্য দেশ থেকে এসেছেন ১শ’১৫ জন প্রবাসী বাঙালি। এদের মধ্যে মাত্র ১৬ জনকে পাওয়া গেছে, ৯ জনের হাতে সিল ও তাদের বাড়িতে স্টিকার লাগানো হয়েছে। বাকিদের ঠিকানা ধরে খুঁজে খুঁজে বের করতে মাঠে নেমেছে পুলিশ।
ঈশ্বরদী বাজার, সাহাপুর, পাকশী, জয়নগরসহ বিভিন্ন হাট-বাজারে শত শত বিদেশী নাগরিকদের অবাধ বিচরণ, সাধারণ বাঙালির সঙ্গে মিশে গিয়ে প্রতিদিন তারা স্থানীয় বাজারে নিত্য প্রয়োজনীয় দ্রব্য কেনাকাটাসহ অবাধে মেলামেশা করায় স্থানীয়রা বিপাকে পড়েছেন প্রশাসন। রূপপুর প্রকল্পে কর্মরত এক রাশিয়ান নাগরিক পদ্মা নদীতে এক বাঙালির সঙ্গে নৌকায় চড়ে ঘুরে বেড়ানোর সময় স্থানীয়দের মাধ্যমে খবর পেয়ে সাঁড়া এলাকা থেকে এক যুবককে আটক করেছে পুলিশ।
ঈশ্বরদী থানার ওসি তদন্ত অরবিন্দ সরকার এ তথ্য নিশ্চিত করে বলেন, বিদেশী নাগরিকদের সঙ্গে এভাবে ঘুরে বেড়ানো যাবেনা।
ঈশ্বরদী উপজেলা নির্বাহী অফিসার শিহাব রায়হান বলেন, পুলিশকে সঙ্গে নিয়ে দিনরাত আমরা করোনাভাইরাস প্রতিরোধে কাজ করছি, গতকাল রোববার থেকে ঈশ্বরদীর সকল চায়ের দোকান বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে বলে জানান তিনি।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ