করোনায় : বাঘায় স্বাস্থ্যবিধির না মানায় বাড়ছে ঝুঁকি

আপডেট: June 26, 2020, 12:49 am

বাঘা প্রতিনিধি:


রাজশাহীর বাঘায় করোনাভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা দিন দিন বেড়েই চলেছে। বৃহস্পতিবার (২৫ জুন) পর্যন্ত এই সংখ্যা দায়িয়েছে ১৪ জন। তবে উপসর্গ নিয়ে মৃত্যু হয়েছে ২ জন। তারপরেও কোথাও স্বাস্থ্যবিধি ও সামাজিক দূরত্ব মানা হচ্ছে না। ফলে বাড়ছে স্বাস্থ্যঝুঁকি। উপজেলার রাস্তাঘাট, দোকানপাট, বাজার, পাড়া মহল্লাসহ সবখানে সামাজিক দূরত্ব না মেনে চলাফেরা করছে মানুষ। ফলে স্বাস্থ্যসচেতনায় অনেকেই এই পরিস্থিতিতে পড়েছে বিপাকে। চাইলেও সচেতন অনেক মানুষের ভিড় এড়িয়ে চলা সম্ভব হচ্ছে না।

বাঘায় স্বাস্থ্যবিধি না মেনে এভাবে চলছে বেচাকনো- সোনার দেশ

সরেজমিনে উপজেলার বাঘা বাজার, আড়ানী বাজার, দিঘা বাজার, মনিগ্রাম বাজার, চন্ডিপুর বাজার, গড়গড়ি বাজার, পাকুড়িয়া বাজার, খানপুর, চাঁনপুর, বাউসা, তেঁথুলিয়া, হরিনা, আড়পাড়া, মাঝপাড়া, আলাইপুর, পানি কামড়া, বিনোদপুর, হাবাসপুর এলাকায় ঘুরে দেখা যায় শত শত মানুষ স্বাস্থ্যবিধি ও সামাজিক দূরত্ব না মেনে চলাচল করছে। তবে কিছু দোকানের সামনে রাখা হয়েছে হাত ধোয়ার পাত্র ও সাবান। কিন্তু তা ব্যবহার করা হচ্ছে না। এরমধ্যে অনেকের মুখে মাস্ক নেই। এছাড়া চায়ের স্টলে আড্ডা, মুুদি দোকান সর্বত্রই মানুষের ভিড় লক্ষ করা গেছে। এদিকে পাড়া মহল্লাতেও মানা হচ্ছে না সামাজিক দূরত্ব।

 

এ বিষয়ে বাঘা দরগা মেডিকেল হলের পল্লী চিকিৎসক আবদুল লতিফ মিঞা জানান, বিগত সময়ে মানুষের বাথরুমে সাবান ব্যবহার করতে সময় লেগেছে প্রায় এক যুগ। এই করোনা পরিস্থিতির মেয়াদ হলো প্রায় ৫ মাস। এরমধ্যে কেউ কেউ স্বাস্থ্যবিধি মানলেও অধিকাংশরাই মানছে না। এদিকে স্বাস্থ্যবিধি মানাকে কেন্দ্র করে এলাকায় বেশ কিছু অপ্রীতিকর ঘটনাও ঘটেছে।
উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. আখতারুজ্জামান বলেন, এ বিষয়ে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স সুত্রে জানা গেছে, ৬ এপ্রিল থেকে ২৫ জুন পর্যন্ত ২৪৬ জনের নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে। এরমধ্যে আক্রান্তের সংখ্যা দাড়িয়েছে ১৪ জনে। উপসর্গ নিয়ে মৃত্যু হয়েছে ২ জনের।
বাঘা উপজেলা নির্বাহী অফিসার শাহিন রেজা জানান, উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে মাস্ক ব্যবহারে বাধ্য করার জন্য চালানো হচ্ছে ভ্রাম্যমাণ আদালতের অভিযান। এদিকে উপজেলা প্রশাসন নিয়মিত তদারকি করছে। এ জন্য জনগণকেও সচেতন হতে হবে। করোনার মতো ভয়ঙ্কর ব্যাধিকে মোকাবিলা করতে জনসচেতনতার বিকল্প নেই।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ