করোনা দুর্যোগে শিক্ষার্থীদের পাশে রাবির নৃবিজ্ঞান ও আইন বিভাগ

আপডেট: এপ্রিল ১৯, ২০২০, ১০:০৪ অপরাহ্ণ

ওয়াসিফ রিয়াদ, রাবি


পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ের অধিকাংশ শিক্ষার্থীই মধ্যবিত্ত ও নিম্ন মধ্যবিত্ত পরিবার থেকে আসা। বেশিরভাগ শিক্ষার্থীরাই নিজের পড়াশোনার খরচ নিজেরাই জুটিয়ে নেয়। সম্প্রতি বৈশ্বিক মহামারি করোনাভাইরাসের (কভিড-১৯) প্রভাবে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান ছুটি ঘোষণা করায় অধিকাংশই কর্মশূন্য ও দুশ্চিন্তাগ্রস্ত হয়ে পড়েছেন। সংকটে পড়া বিভাগের ওই সকল শিক্ষার্থীদের পাশে দাঁড়িয়েছে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের (রাবি) নৃবিজ্ঞান ও আইন বিভাগ।
করোনা ভাইরাসের কারণে ঝুঁকিতে থাকা নৃবিজ্ঞান বিভাগে অধ্যয়নরত প্রায় ৪৮ শিক্ষার্থীর মধ্যে ২২ শিক্ষার্থীর পরিবারকে প্রথম ধাপে আর্থিক সাহায্য পাঠানো হয়েছে বলে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন বিভাগের শিক্ষকমণ্ডলী।
নৃবিজ্ঞান বিভাগ সূত্রে জানা গেছে, চলমান পরিস্থিতিতে অন্য সব কিছুর মত বন্ধ রয়েছে দেশের সব শিক্ষা প্রতিষ্ঠান। বিশ্ববিদ্যালয়ের অনেক শিক্ষার্থী টিউশনি করে নিজের খরচ নির্বাহ করতেন, চালাতেন নিজের পরিবারও। বিশ্ববিদ্যালয় বন্ধ থাকায় বন্ধ হয়ে গেছে তাদের এই উপার্জনের মাধ্যম। এই দুঃসময়ে তাদের পাশে দাঁড়ানোর জন্য ফান্ড গঠন করতে উদ্যোগ নেন বিভাগের শিক্ষক ও প্রাক্তন শিক্ষার্থীরা। সেই উদ্যোগের প্রাথমিক সাফল্যে উজ্জীবিত হয়ে নৃবিজ্ঞান বিভাগকেন্দ্রিক এই উদ্যোগ এখন সহায়তার পরিধি বিভাগের বাইরেও প্রসারিত করবার লক্ষ্যেও কাজ করছে।
নৃবিজ্ঞান বিভাগের সভাপতি অধ্যাপক বখতিয়ার আহমেদ বলেন, ফেসবুক কেন্দ্রিক সামাজিক গ্রুপে স্বতঃস্ফূর্তভাবে শুরু হওয়া এই উদ্যোগে যোগ দিয়েছেন বিভাগের প্রাক্তন ও বর্তমান শিক্ষার্থীরা। বিভাগের শিক্ষকদের তৎপরতা ও সমন্বয়ে এই উদ্যোগ এখন একটি দীর্ঘমেয়াদি সামাজিক সহায়তা কর্মসূচি গড়ে তোলার কথা ভাবছে করোনা পরিস্থিতির সামাজিক ও অর্থনৈতিক সংকটগুলো বিবেচনায় নিয়ে। এছাড়া প্রাথমিকভাবে একটি একবছর মেয়াদি জরুরি সহায়তা পরিকল্পনা নিয়ে কাজ করা হচ্ছে বলেও জানান তিনি।
এদিকে এই সংকটকালীন মুহূর্তে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের (রাবি) আইন বিভাগের সহকারী অধ্যাপক সাদিকুল ইসলাম সাগরের তত্ত্বাবধানে শিক্ষার্থীদের সহযোগিতায় বিভাগের সংকটাপন্ন শিক্ষার্থীদের পাশে দাঁড়ানোর উদ্যোগ গ্রহণ করেছেন।
আইন বিভাগের অধ্যাপক সাদিকুল ইসলাম সাগর বলেন, বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়া অধিকাংশ শিক্ষার্থীই টিউশনির টাকা দিয়ে পড়াশোনা চালাতো। দেশের বর্তমান সংকটময় পরিস্থিতিতে শুধু শিক্ষার্থীরাই নয়, তাদের পরিবারেরও উপার্জন বন্ধ হয়ে গেছে।
এমতাবস্থায় কিছু সংখ্যক শিক্ষার্থী সংকটের মধ্য দিয়ে দিন পার করছে। আমি ইতোমধ্যে নিজের সামর্থ্য অনুযায়ী কয়েকজনকে সহযোগিতা করেছি। একার পক্ষে সবাইকে সহযোগিতা করা কষ্টসাধ্য। তাই আমি বিষয়টি নিয়ে বিভাগের কিছু শিক্ষার্থীর সাথে আলোচনা করি।
এছাড়াও আমি আমার বিভাগের কয়েকজন শিক্ষকের সাথে কথা বলছি, তারাও হয়ত নিজ নিজ সামর্থ্য অনুযায়ী শিক্ষার্থীদের পাশে দাঁড়াবেন। পরবর্তীতে তাদের নিয়ে এ উদ্যোগ গ্রহণ করা হবে।
তিনি আরও বলেন, বর্তমানে অধ্যয়নরত যে কোনো শিক্ষার্থী উদ্ভূত পরিস্থিতিতে তাঁদের আর্থিক সমস্যা নিয়ে সরাসরি কথা বলতে পারবেন আমাদের সাথে। পরিচয় প্রকাশ বা এজাতীয় বিষয়ে সর্বোচ্চ গোপনীয়তা রক্ষা করা হবে। সংশ্লিষ্ট যে কারোর সাথে যোগাযোগের প্রেক্ষিতে আমরা বিবেচনা সাপেক্ষে নির্দিষ্ট অর্থ সাহায্য সরাসরি সাহায্যপ্রার্থীর কাছে উপহার হিসেবে পৌঁছে দেব। আমাদের এ উদ্যোগে শামিল হতে রাবি আইন বিভাগের যেকোনো সাবেক বা বর্তমান শিক্ষার্থী সরাসরি অর্থ সাহায্য করতে পারবেন।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ