কর্মকর্তা-কর্মচারীদের অব্যাহতি দেয়ার তৎপরতা || উত্তরাঞ্চল পিডিবিতে অস্থিরতা

আপডেট: সেপ্টেম্বর ২০, ২০১৭, ১:৪২ পূর্বাহ্ণ

নিজস্ব প্রতিবেদক


বিদ্যুৎ উন্নয়ন বোর্ডের (পিডিবি) রাজশাহী ও রংপুর জোনে লিয়েনে কর্মরত প্রায় ২৬শ কর্মকর্তা-কর্মচারীকে অব্যাহতি দেয়ার তৎপরতা চলছে বলে অভিযোগ উঠেছে। বিষয়টি নিয়ে পিডিবির রাজশাহী ও রংপুর জোনের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের মধ্যে অস্থিরতার সৃষ্টি হয়েছে। কর্মকর্তা-কর্মচারীদের প্রাপ্য পেনশন পরিশোধসহ আনুতোষিক সুবিধাদি না দিয়েই নবগঠিত নর্থ ওয়েস্ট জোন পাওয়ার ডিস্ট্রিবিউশন কোম্পানিতে চাকরি করতে ইচ্ছুক অথবা ইচ্ছুক নয় মর্মে বাধ্যতামূলক কাগজে স্বাক্ষর করিয়ে নেয়া হচ্ছে বলে অভিযোগে পাওয়া গেছে।
কর্মকর্তা ও কর্মচারীরা বলছেন, গত ১৫ সেপ্টেম্বর অপশন প্রদানের (সিদ্ধান্ত নেয়ার) শেষদিন ধার্য ছিলো। কিন্তু সব কর্মকর্তা-কর্মচারীর স্বাক্ষর করাতে ব্যর্থ হওয়ায় ব্যাকডেট দিয়ে স্বাক্ষর করানোর তৎপরতা শুরু হয়েছে। এর ফলে সংশ্লিষ্টদের মাঝে তীব্র ক্ষোভ সৃষ্টি হয়েছে। চাকরির নিশ্চয়তা, পেনশন, গ্রাচ্যুইটিসহ আনুতোষিক অন্যান্য সুবিধা প্রাপ্তি নিয়ে সংশয় রয়েছে।
পিডিবি সূত্রে জানা গেছে, গত বছরের অক্টোবরে পিডিবির রাজশাহী ও রংপুর জোনকে নিয়ে ‘নর্থ ওয়েস্ট জোন পাওয়ার ডিস্ট্রিবিউশন কোম্পানি লিমিটেড’ (নওজোপাডিকো লি.) নামে নতুন একটি বিদ্যুৎ সরবরাহ প্রতিষ্ঠান চালু করা হয়। এই জোনে কর্মরত সকলকে নবগঠিত কোম্পানিতে লিয়েনে ন্যস্ত করা হয়। পিডিবির নাম বাদ দিয়ে নতুন কোম্পানির নামে কার্যক্রম শুরু হলেও সকল কার্যক্রমই পিডিবির বিধি অনুযায়ী পরিচালিত হচ্ছে।
গত ৩১ জুলাই বিদ্যুৎ বিভাগের জারিকৃত বিজ্ঞপ্তিতে নর্থ-ওয়েস্ট জোন পাওয়ার ডিস্ট্রিবিউশন কোম্পানিতে লিয়েনে কর্মরতদের মধ্যে যারা পিডিবির চাকরি ছেড়ে ওই কোম্পানিতে যোগদান করতে ইচ্ছুক, তাদের নামের তালিকা সংযুক্ত ’অপশন’ ছকে যথাযথ কর্তৃপক্ষের মাধ্যমে ১৫ সেপ্টেম্বরের মধ্যে দাখিলের নির্দেশ প্রদান করা হয়। এর প্রেক্ষিতে কোম্পানির ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) প্রকৌশলী জাকিউল ইসলাম গত ১৩ আগস্ট পিডিবির চেয়ারম্যান বরাবর কোম্পানিতে আত্মীকরণ হতে ইচ্ছুক কর্মকর্তা-কর্মচারীদের পাওনাদি এককালীন পরিশোধের ব্যাপারে সিদ্ধান্ত ও সম্ভাব্য সময়সীমাসহ লিয়েনের সর্বোচ্চ সময়সীমা জানতে পত্র দেন।
পরে পিডিবির পক্ষ থেকে জানানো হয়, কোম্পানিতে যেতে ইচ্ছুক ও অনিচ্ছুক কর্মকর্তা-কর্মচারীদের তালিকা পিডিবিতে পাঠাতে হবে। এছাড়া বলা হয় নর্থ-ওয়েস্ট জোন পাওয়ার ডিস্ট্রিবিউশন কোম্পানিতে কর্মরতদের পেনশসহ অন্যান্য পারিতোষিক পরিশোধের লক্ষ্যে প্রয়োজনীয় আর্থিক সহায়তা প্রদানের জন্য ইতোমধ্যে বিদ্যুৎ বিভাগে পত্র প্রেরণ করা হয়েছে। সে অনুযায়ী প্রয়োজনীয় বরাদ্দ পাওয়ার পর কোম্পানিতে অপশন প্রদানকারীদের সরকারি বিধি অনুযায়ী অর্থ পরিশোধের বিষয়ে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।
এরই প্রেক্ষিতে রাজশাহী ও রংপুর বিভাগের প্রতিটি বিদ্যুৎ অফিসে অপশন প্রদানের নির্ধারিত ছক পাঠানো হয়। ছকের অপশনে উল্লেখ আছে, ‘…আমি নি¤্নসাক্ষরকারী বিদ্যুৎ উন্নয়ন বোর্ডের (বিউবো) চাকুরী হইতে অব্যাহতি/স্বেচ্ছায় অবসর গ্রহণ করিয়া বিউবো হইতে বিধি মোতাবেক প্রাপ্র পেনশন /আনুতোষিক সুবিধাসহ নওজোপাডিকো লিঃ এর শর্ত মোতাবেক উক্ত কোম্পানীতে চাকুরী করার ইচ্ছা (অপশন) ব্যক্ত করিতেছি।’
এদিকে অপশনপত্রের বক্তব্য অস্পষ্ট ও রহস্যময় আখ্যা দিয়ে কোম্পানিতে কর্মরতদের সিংহভাগই স্বাক্ষর করেন নি। রাজশাহী, বগুড়া, রংপুর, সিরাজগঞ্জ, নাটোর, ঠাকুরগাঁও, পঞ্চগড়, দিনাজপুর, পাবনা, চাঁপাইনবাবগঞ্জসহ সকল জেলায় কর্মরতরা অপশনকে বয়কট করেছেন। তারা পেনশনসহ আনুতোষিক প্রাপ্য অর্থের ব্যাপারে সুস্পষ্ট ঘোষণা, কোম্পানির শর্তগুলোর বিস্তারিত বিবরণ ও চাকরির নিশ্চয়তার দাবি করেছেন।
সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা বলছেন, সবকিছু স্বচ্ছ ও সরলভাবে উপস্থাপন করা হোক। সবাই নবগঠিত কোম্পানিতে চাকরি করতে চান। তবে কোম্পানির ভেন্ডার এগ্রিমেন্ট ও চাকরির শর্তাবলি প্রকাশ করে সুস্পষ্ট ঘোষণা দিতে হবে।
বিষয়টি সম্পর্কে বক্তব্যের জন্য প্রধান প্রকৌশলী রেজাউল করিমের সঙ্গে যোগাযোগের চেষ্টা করা হয়। কিন্তু প্রধান প্রকৌশলীর কার্যালয় সূত্রে জানা গেছে, তিনি সরকারি সফরে বর্তমানে চিনে অবস্থান করছেন। তবে ভারপ্রাপ্ত প্রধান প্রকেশৈলীর দায়িত্ব পালনকারী রাকিবুল ইসলাম বলেন, প্রধান প্রকৌশলী এ ব্যাপারে বলতে পারবেন। আমি এ বিষয়ে কথা বলতে চাই না। তবে ২৬শ কর্মকর্তা ও কর্মচারীকে পিডিবি থেকে নওজোপাডিকো লিমিটেডে যোগদানের নির্দেশ দেয়া হয়েছে বলে স্বীকার করেন তিনি। কিন্তু কর্মরতদের পেনশন ও গ্রাট্যুইটিসহ অন্যান্য আনুষঙ্গিক সুযোগ-সুবধার সিদ্ধান্তের ব্যাপারে কোন মন্তব্য করতে রাজি হন নি এ প্রকৌশলী কর্মকর্তা।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ